আমিনুল ইসলাম হত্যাকাণ্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

আমিনুল ইসলাম (১৯৭৩ – ৪ এপ্রিল ২০১২) একজন বাংলাদেশী শ্রম সংগঠক ছিলেন যিনি ২০১২ সালে খুন হয়েছিলেন এবং বিষয়টি আন্তর্জাতিক দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন। [১]

জীবনী[সম্পাদনা]

কর্ম[সম্পাদনা]

প্রাক্তন পোশাক শ্রমিক ইসলাম আশুলিয়াসাভার চ্যাপ্টার্স বাংলাদেশ গার্মেন্টস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল ওয়ার্কার্স ফেডারেশনের [২] এবং বাংলাদেশ শ্রমিক সংহতির কেন্দ্রের নেতা ছিলেন, যা কাজের অবস্থার উন্নতি ও উচ্চ বেতনের পক্ষে ছিলেন। ২০১০ সালে, সংগঠনটি বাংলাদেশ টেক্সটাইল শিল্পে গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরির বৃহত্তর বর্ধনের জন্য প্রতিবাদের নেতৃত্ব দেয়। এই বিক্ষোভের অভিযোগে ইসলাম এবং অন্যান্য শ্রমিক নেতাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। [৩] ২০১০ সালে গ্রেপ্তারের সময় তাকে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের দ্বারা শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছিল। [৪]

পরিবার[সম্পাদনা]

আমিনুল ইসলাম বিবাহিত ছিলেন এবং তার দুটি পুত্র এবং একটি কন্যা ছিল। [৩]

হত্যা[সম্পাদনা]

৬ এপ্রিল ২০১২-এর বাংলা ভাষা পত্রিকা আমার দেশ পত্রিকার একটি ব্যক্তির ছবি বহন করেছিল যার পরিচয় তখন অজানা ছিল এবং যার লাশ টাঙ্গাইল পুলিশ পেয়েছিল। আমার দেশে প্রকাশিত ছবি থেকে, ইসলামের পরিবার তাকে চিনতে সক্ষম হয়েছিল।

আমিনুল ইসলামের লাশ ৫ এপ্রিল ২০১২ সালে ঢাকার ৬১ মাইল উত্তরে ঘাটাইল এর কাছাকাছি একটি রাস্তার পাশে খুঁজে পাওয়া গেছে। তার দেহে নির্যাতনের চিহ্ন ছিল। ঢাকার কাছে পোশাক শিল্পের কেন্দ্র আশুলিয়ায় তাকে শেষবার জীবিত দেখা গিয়েছিল। [৩] বাংলাদেশের গার্মেন্টস সেক্টরের সাধারণ কর্মী হত্যঅর বিচার চাইতে গিয়ে ওই আন্দোলনে তিনি জড়িত থাকার কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

 আমিনুল ইসলামের হত্যার বিষয়টি এখনও নিষ্পত্তি হয়নি, তবে এএফএল-সিআইও এবং মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের কাছ থেকে তার মামলা আন্তর্জাতিক মনোযোগ পেয়েছে। [১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Yardley, Jim (২০১২-০৯-০৯)। "Fighting for Bangladesh Labor, and Ending Up in Pauper's Grave"। New York Times। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৩-২৬ 
  2. উদ্ধৃতি খালি (সাহায্য) 
  3. Killing of Bangladeshi Labor Organizer Signals an Escalation in Violence 
  4. Bjorn Claeson (নভেম্বর ২০১০)। Enemies of the Nation or Human Rights Defenders?Labour Behind the Label। পৃষ্ঠা 28–31। ২০১৪-০৯-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৪-১৮