আব্দুল কুদ্দুস (পণ্ডিত)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মাওলানা

আব্দুল কুদ্দুস
মহাসচিব, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ
কাজের মেয়াদ
২০১৬ – ২০২০
পূর্বসূরীআবদুল জাব্বার জাহানাবাদী
উত্তরসূরীমাহফুজুল হক
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৫০
জাতীয়তাবাংলাদেশি
ব্যক্তিগত
আখ্যাসুন্নি
ব্যবহারশাস্ত্রহানাফি
আন্দোলনদেওবন্দি
প্রধান আগ্রহ
ঊর্ধ্বতন পদ
এর শিষ্যশাহ আহমদ শফী

আব্দুল কুদ্দুস (জন্ম: ১৯৫০) একজন বাংলাদেশি দেওবন্দি ইসলামি পণ্ডিত ও শিক্ষাবিদ। তিনি হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাবেক নায়েবে আমির, আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশের সাবেক কো-চেয়ারম্যান, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সাবেক মহাসচিব এবং জামিয়া আরাবিয়া ইমদাদুল উলুম ফরিদাবাদের মুহতামিম।

জীবনী[সম্পাদনা]

আব্দুল কুদ্দুস ১৯৫০ সালে জন্মগ্রহণ করেন। ২০১৬ সালে বেফাকের দীর্ঘ সময়ের তৎকালিন মহাসচিব আবদুল জাব্বার জাহানাবাদীর ইন্তেকালের পর তিনি প্রথমে ভারপ্রাপ্ত পরে কাউন্সিলে মহাসচিব নির্বাচিত হন। তার সময়ের মৌলিক অর্জন বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা সনদের সরকারি স্বীকৃতি[১][২][৩]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. শ্বেতপত্র: বাংলাদেশে মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের ২০০০ দিন। মহাখালী, ঢাকা-১২১২: মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস তদন্তে গণকমিশন। ফেব্রুয়ারি ২০২২। পৃষ্ঠা ১৯৯–২০০। 
  2. "অবশেষে পদ ছাড়ছেন বেফাক মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস!"দৈনিক আমাদের সময়। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০। 
  3. "বেফাকের দায়িত্বে নতুন ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ও বিশেষ কমিটি"বাংলা ট্রিবিউন। ২১ নভেম্বর ২০১৬।