আব্দুল্লাহ ওজালান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আব্দুল্লাহ ওজালান

আব্দুল্লাহ ওজালান একজন কুর্দি রাজনৈতিক বন্দী[১][২] এবং কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।[৩][৪][৫][৬] তিনি অপো [৭][৮] (কুর্দি ভাষায় আবদুল্লাহ এবং "কাকা" উভয়ের জন্য সংক্ষিপ্ত) নামেও পরিচিত।[৯][১০]

আব্দুল্লাহ ১৯৭৯ সাল থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত সিরিয়ায় ছিলেন।[১১] তিনি ১৯৭৮ সালে পিকেকে প্রতিষ্ঠা করতে সাহায্য করেছিলেন এবং ১৯৪৮ সালের কুর্দি-তুর্কি সংঘর্ষে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তিনি তার বেশিরভাগ নেতৃত্বের জন্য সিরিয়ায় ছিলেন, যা ১৯৯০-এর দশকের শেষ পর্যন্ত পিকেকে-এর মুক্ত অঞ্চল বা অভয়ারণ্য সরবরাহ করেছিল।

সিরিয়া ছাড়তে বাধ্য হওয়ার পর, আব্দুল্লাহকে ১৯৯৯ সালে নাইরোবিতে তুর্কি ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি (এমআইটি) (ইউএসএর সহায়তায়) অপহরণ করে তুরস্কে নিয়ে যায়,[১২] যেখানে তাকে তুর্কি দণ্ডবিধির সশস্ত্র সংগঠন গঠনের বিষয় অনুচ্ছেদ ১২৫-এর অধীনে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।[১৩] যখন তুরস্ক মৃত্যুদণ্ড বাতিল করে, তখন এই সাজা বাড়িয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে রূপান্তরিত করা হয়। তিনি ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত মারমারা সাগরের ইমরাল কারাগারে[১৪] ছিলেন, যেখানে তিনি এখনও বন্দী। [১৫][১৬]

আব্দুল্লাহ ১৯৯৩ সালের কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির যুদ্ধবিরতির পর থেকে সংঘাতের রাজনৈতিক সমাধানের পক্ষে মত দিয়েছেন।[১৭][১৮] আব্দুল্লাহের কারাগারের বন্দী জীবন দীর্ঘ সময় ধরে অন্তরণের মধ্যে দোলায়িত ছিল, বন্দী অবস্থায় তাকে বাইরের বিশ্বের সাথে যোগাযোগের অনুমতি দেওয়া হয়নি, তবে তাকে দেখার অনুমতি দেওয়া হয়।[১৯] তিনি তুর্কি সরকারের সাথে আলোচনায়ও জড়িত ছিলেন, যার ফলে ২০১৩ সালে অস্থায়ী কুর্দি-তুর্কি শান্তি প্রক্রিয়া শুরু হয়।[২০]

আব্দুল্লাহ কারাগার থেকে বেশ কয়েকটি বই প্রকাশ করেছেন। মহিলাদের বিজ্ঞান নামে পরিচিত জিনোলজি হল আব্দুল্লাহ দ্বারা সমর্থিত নারীবাদের একটি রূপ[২১] ও পরবর্তীকালে কুর্দিস্তান কমিউনিটিজ ইউনিয়নের (কেসিকে) একটি মৌলিক নীতি।[২২] গণতান্ত্রিক সংঘবদ্ধতার আব্দুল্লাহ দর্শন ২০১২ সালে সিরিয়ায় গঠিত একটি স্বায়ত্তশাসিত সরকার উত্তর ও পূর্ব সিরিয়ার স্বায়ত্তশাসিত প্রশাসনের রাজনৈতিক কাঠামোর উপর একটি শক্তিশালী প্রভাব ফেলেছে।

প্রাথমিক জীবন ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

আব্দুল্লাহ পূর্ব তুরস্কের শানলুরফা প্রদেশের হালফেতি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।[২৩] যদিও কিছু সূত্র, তার জন্ম তারিখ হিসাবে ১৯৪৮ সালের ৪ এপ্রিলকে নথিভুক্ত করে, ফলে তার জন্য কোন আনুষ্ঠানিক জন্ম নথি নেই এবং তিনি নিজেই দাবি করেন, যে তিনি কখন জন্মগ্রহণ করেছিলেন তা সঠিকভাবে জানেন না, অনুমান করা হয় যে তিনি ১৯৪৬ বা ১৯৪৭ সালে জন্মগ্রহণ করেন।[২৪] তিনি পিতামাতার সাত সন্তানের মধ্যে সবচেয়ে বড়। [২৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Locked in a fateful embrace: Turkey's PM and his Kurdish prisoner"The Guardian। ২ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  2. "Turkey slams honorary citizenship for Ocalan"ANSA.it। ৬ মার্চ ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  3. "Chapter 6—Terrorist Groups"Country Reports on TerrorismUnited States Department of State। ২৭ এপ্রিল ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুলাই ২০০৮ 
  4. Powell, Colin (৫ অক্টোবর ২০০১)। "2001 Report on Foreign Terrorist Organizations"Foreign Terrorist Organizations। Bureau of Public Affairs, U.S. State Department। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুন ২০১৭ 
  5. Traynor, Ian; Istanbul, Constanze Letsch (২০১৩-০৩-০১)। "Locked in a fateful embrace: Turkey's PM and his Kurdish prisoner"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-২১"We have to manage public opinion. Öcalan is a political prisoner who still has influence over his organisation." - Hüseyin Çelik 
  6. "AMs criticise Kurdish leader's treatment"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০৩-২০। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-২১ 
  7. Political Violence against Americans 1999Bureau of Diplomatic Security। ডিসেম্বর ২০০০। পৃষ্ঠা 123আইএসবিএন 978-1-4289-6562-1 
  8. Encyclopædia Britannica 
  9. Mango, Andrew (২০০৫)। Turkey and the War on Terror: 'For Forty Years We Fought Alone'। London। পৃষ্ঠা 32। আইএসবিএন 978-0-203-68718-5 
  10. Jongerden, Joost (২০০৭)। The Settlement Issue in Turkey and the Kurds: An Analysis of Spatical Policies, Modernity and War। Brill। পৃষ্ঠা 57আইএসবিএন 9789004155572 
  11. "Jailed PKK leader Abdullah Ocalan granted rare family visit"Rudaw। ৩ মার্চ ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  12. Weiner, Tim (১৯৯৯-০২-২০)। "U.S. Helped Turkey Find and Capture Kurd Rebel (Published 1999)"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-০৭ 
  13. "Öcalan v Turkey (App no 46221/99) ECHR 12 May 2005 | Human Rights and Drugs"www.hr-dp.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-০৭ 
  14. "Prison island trial for Ocalan"BBC News। ২৪ মার্চ ১৯৯৯। 
  15. Marlies Casier, Joost Jongerden, Nationalisms and Politics in Turkey: Political Islam, Kemalism and the Kurdish Issue, Taylor & Francis, 2010, p. 146.
  16. Council of Europe, Parliamentary Assembly Documents 1999 Ordinary Session (fourth part, September 1999), Volume VII, Council of Europe, 1999, p. 18
  17. Özcan, Ali Kemal (২০০৬)। Turkey's Kurds: A Theoretical Analysis of the PKK and Abdullah Ocalan (ইংরেজি ভাষায়)। Routledge। পৃষ্ঠা 205আইএসবিএন 9780415366878 
  18. Mag. Katharina Kirchmayer, The Case of the Isolation Regime of Abdullah Öcalan: A Violation of European Human Rights Law and Standards?, GRIN Verlag, 2010, p. 37
  19. "Jailed PKK leader visit ban lifted, Turkish minister says"Reuters। ১৬ মে ২০১৯। 
  20. "What kind of peace? The case of the Turkish and Kurdish peace process"openDemocracy (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-০৭ 
  21. Argentieri, Benedetta (৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "One group battling Islamic State has a secret weapon – female fighters"Reuters। ২২ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৬ 
  22. Lau, Anna; Baran, Erdelan (১৮ নভেম্বর ২০১৬)। "A Kurdish response to climate change"openDemocracy। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৬ 
  23. "A Short Biography"Partiya Karkerên Kurdistan / Kurdistan Workers Party। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  24. Kutschera, Chris (১৯৯৯)। "Abdullah Ocalan's Last Interview"। ১৭ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০১৩ 
  25. Aliza Marcus, Blood and Belief, New York University Press, 2007. (p.16)