আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1944-12-10) ১০ ডিসেম্বর ১৯৪৪ (বয়স ৭৪)
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ (জন্ম: ১০ ডিসেম্বর ১৯৪৪) হলেন একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ ও সংসদ সদস্য। তিনি বরিশাল-১ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য। সংবিধান অনুযায়ী দশম জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে ৩ জানুয়ারী ২০১৯ তারিখে একাদশ সংসদের সংসদ সদস্য হিসেবে তিনি শপথবাক্য পাঠ করেন।[১]

জন্ম ও পরিচয়[সম্পাদনা]

আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ ১৯৪৪ সালের জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা প্রাক্তন আওয়ামী লীগ নেতা ও পানিসম্পদ মন্ত্রী আব্দুর রউফ সেরনিয়াবাত, যাকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট শেখ মুজিবর রহমানের সাথে হত্যা করেছিল। সেদিন তার মা ও সহোদরকেও হত্যা করে করেছিল। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই। তার ছেলে সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

হাসনাত আবদুল্লাহ ১৯৭৩ সালে বরিশাল উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে বরিশাল ১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২৬ জুন ২০০০ সালে তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হন। হাসনাত আবদুল্লাহ ১৯৯৬ থেকে ২০০০ পর্যন্ত জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ ছিলেন।

৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ২০১৪ সাধারণ নির্বাচনে হাসনাত আবদুল্লাহ তৃতীয় বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।[২] ১৮ জানুয়ারি ২০১৮ সালে তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক জাতীয় কমিটির আহবায়ক মনোনীত হন,[৩] যা বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রীর পদমর্যাদার।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "শপথ নিলেন নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা"www.prothomalo.com। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Constituency 119_10th_Bn"www.parliament.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-২১ 
  3. "পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন কমিটি পুনর্গঠন"কালের কণ্ঠ। ২০১৮-০১-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-২১