আফানাসেভো সংস্কৃতি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আফানাসেভো সংস্কৃতি
Afanasievo culture.jpg
Alternative namesআফানাসিয়েভো; আফানাসেভান
ভৌগলিক সীমাদক্ষিণ মধ্য সাইবেরিয়া
সময়তাম্র যুগ
তারিখখ্রিস্টপূর্ব ৩৩০০ - ২৫০০ অব্দ
প্রধান স্থানমিনুসিনস্ক হলো
উত্তরসূরীওকুনেভ সংস্কৃতি, অ্যান্দ্রোনোভো সংস্কৃতি[১]

আফানাসেভো সংস্কৃতি (Afanasevo culture) বা আফানাসিয়েভো সংস্কৃতি (Afanasievo culture) বা আফানাসেভান সংস্কৃতি (Afanasevan culture) (রুশ Афанасьевская культура Afanas'yevskaya kul'tura) হচ্ছে এপর্যন্ত জানা দক্ষিণ সাইবেরিয়ার সব থেকে প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক সংস্কৃতি যা তাম্রযুগের সময় খ্রিস্টপূর্ব আনু. ৩৩০০ থেকে আনু. ২৫০০ অব্দ পর্যন্ত মিনুসিনস্ক বেসিন ও আলতাই পর্বতমালায় অবস্থিত ছিল। এটি একটি নিকটবর্তী পর্বত, গোরা আফানাসিয়েভা ( রুশ: Гора Афанасьева, অনুবাদ 'আফানাসিয়েভ এর পর্বত' ) এর নামে নামকরণ করা হয়েছে, যা এখন রাশিয়ার খাকাসিয়া অঞ্চলের ব্রোগাডস্কি জেলায় অবস্থিত।[২]

ডেভিড ডব্লিউ. অ্যান্থনি বিশ্বাস করতেন, ডন-ভোলগা অঞ্চল এর রেপিন সংস্কৃতি থেকে আনু. খ্রিস্টপূর্ব ৩৭০০-৩৩০০ অব্দে ইউরেশীয় স্তেপ অঞ্চল জুড়ে অভিপ্রায়ণ করা মানবগোষ্ঠীর বংশধর (এবং সম্ভবত পার্শ্ববর্তী ইয়ামনায়া সংস্কৃতির সদস্য)।[৩] ভৌগলিক অবস্থান এবং ডেটিং এর মাধ্যমে প্রাপ্ত এদের সময়কালের কারণে অ্যান্টনি এবং পূর্ববর্তী পণ্ডিত লিও ক্লেইন, জে. পি. ম্যালরিভিক্টর এইচ. মেয়ার আফানাসেভানদের প্রত্ন-তোখারীয় ভাষার সাথে যুক্ত করেছেন।[৪][৫][৬][৭]

ডেটিং[সম্পাদনা]

প্রচলিত প্রত্নতাত্ত্বিক ডেটিং অনুযায়ী এই সংস্কৃতির সময়কাল ৩০০০-২৫০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে ছিল। তবে রেডিওকার্বন ডেটিং অনুসারে এদের সময়কাল ছিল কাঠের সরঞ্জামগুলি অনুযায়ী খ্রিস্টপূর্ব ৩৭০৫ অব্দ এবং মানব অবশেষ অনুযায়ী খ্রিস্টপূর্ব ২৮৭৪ অব্দ।[৮] এর মধ্যে বেশি অতীতের হিসাব দেয়া ডেটিংকে পরিহার করা হয়েছে, এখন মনে করা হয় মোটামুটি খ্রিস্টপূর্ব ৩৩০০ অব্দ ছিল এই সংস্কৃতির সূচনা।[৯]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

এই সংস্কৃতিতে গণসমাধির সন্ধান পাওয়া খুব একটা স্বাভাবিক নয়।[১০] আফানাসেভো সমাধিস্থলসমূহে একক ও ক্ষুদ্র সমষ্টিগত উভয় ধরনের সমাধি পাওয়া যায়, যেখানে মৃতদেহকে সাধারণত একটি কুপে পিঠের উপর ভর দিয়ে বাঁকিয়ে রাখা হত। সমাধিকূলগুলি আয়তক্ষেত্রাকার, কখনও কখনও বৃত্তাকার, এবং পরিবেষ্টন পাথরের দেয়াল দ্বারা নির্মিত। যুক্তি দেয়া হয়, সমাধিসমূহ , যেখানে চার বা পাঁচটি পরিবেষ্টন দিয়ে একটি স্থানীয় সামাজিক গোষ্ঠী সম্বলিত পারিবারিক সমাধিস্থলের প্রতিনিধিত্ব করে।

আফানাসেভো অর্থনীতিতে গরু, ভেড়া এবং ছাগল অন্তর্ভুক্ত ছিল। বন্য বা গৃহপালিত ঘোড়ার অবশেষও পাওয়া গেছে। আফানাসেভো জনগণ এই অঞ্চলে প্রথম খাদ্য উৎপাদনকারী ছিলেন। সরঞ্জামগুলি পাথর (কুঠার, তীরের মাথা), হাড় (মাছ ধরার আংটা, পয়েন্ট) এবং হরিণের শিং থেকে তৈরি করা হয়েছিল। হরিণের শিং এর সরঞ্জামগুলোর মধ্যে এমন জিনিস রয়েছে যাকে ঘোড়ার লাগাম হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ওই অঞ্চলে পাওয়া চাকাযুক্ত যানবাহনের শৈল্পিক উপস্থাপনার কৃতিত্ব আফনাসেভো সংস্কৃতিকে দেয়া হয়েছে। তামা, রৌপ্যসোনার অলঙ্কারও পাওয়া গেছে।[৪]

জৈবিক নৃতত্ত্ব[সম্পাদনা]

আফানাসেভো গোরায় মানুষ অবশেষের দাঁত থেকে ইয়ারসিনিয়া পেস্টিস এর দুইটি স্ট্রেইন বের করা হয়েছে। একটি খ্রিস্টপূর্ব ২৯০৯–২৬৭৯ অব্দের; অন্যটি খ্রিস্টপূর্ব ২৮৮৭–২৬৭৭ অব্দের। উভয়কেই পাওয়া গেছে সাত জনের একই গণসমাধি থেকে এবং এদেরকে সমকালীন কাছাকাছি বলে ধরে নেওয়া হয়।[১০] এই স্ট্রেইনের জিনগুলি ফ্ল্যাজেলিন প্রকাশ করে যা মানুষের রোগ-প্রতিরোধের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে; সুতরাং এটি বুবোনিক প্লেগ ছিল না।[১১]

জিনতত্ত্ব[সম্পাদনা]

নেচার সাময়িকীতে প্রকাশিত ২০১৫-এর জুন মাসের একটি জিনতাত্ত্বিক গবেষণায় আফসানসিভো সংস্কৃতি থেকে পাওয়া চারজন নারীর অবশেষ নিয়ে বিশ্লেষণ করা হয়। এদের মধ্যে দু'জন ব্যক্তি হ্যাপ্লোগ্রুপ J2a2a (mtDNA), একজন হ্যাপ্লোগ্রুপ T2c1a2 (mtDNA) এবং আরেকজন হ্যাপ্লোগ্রুপ U5a1a1 (mtDNA) বহন করে।[১][১২] গবেষণার লেখকরা আবিষ্কার করেছেন যে আফানাসেভো সংস্কৃতি জিনগতভাবে ইয়াম্নায়া সংস্কৃতি থেকে আলাদা ছিল না। গবেষণার ফলাফল নির্দেশ করে যে, আলতাই অঞ্চলে আফানাসেভো জনগোষ্ঠীর পূর্বপুরুষদের সম্প্রসারণ "বড় মাপের অভিপ্রায়ণ এবং জনসংখ্যার স্থানান্তর" এর মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়, সেখানকার স্থানীয় জনসংখ্যার সাথে সংমিশ্রণ ছাড়াই।[১৩] আফানাসেভো সংস্কৃতির লোকেরা পলতাভকা সংস্কৃতির (Poltavka culture) সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত ছিল। গবেষণার লেখকের মতে, গবেষণাটি এই সত্যতা প্রমাণ করে যে, আফানাসেভো জনগোষ্ঠী ইন্দো-ইউরোপীয় ছিল, এবং সম্ভবত তোখারীয়দের পূর্বপুরুষ ছিল।

২০১৮ সালে সায়েন্স সাময়িকীতে প্রকাশিত একটি জিনতাত্ত্বিক গবেষণায়, আফানাসেভো সংস্কৃতির বলে অভিহিত ২৪ জন মানুষের অবশেষ বিশ্লেষণ করা হয়েছিল। এদের থেকে ১৪টি নমুনা থেকে ওয়াই-ডিএনএ নিষ্কাসন করা হয়, এদের মধ্যে ১০টি ছিল হ্যাপ্লোগ্রুপ R1b1a1a2a2 (Y-DNA) এর, তিনটি হ্যাপ্লোগ্রুপ Q1a2 এর, এবং একটি হ্যাপ্লোগ্রুপ R1b1a1a2a এর। মাইটোকন্ড্রিয়াল ডিএনএ এর ক্ষেত্রে, বেশিরভাগ নমুনা হ্যাপ্লোগ্রুপ U (mtDNA) সাবক্লেড এর (বিশেষতঃ হ্যাপ্লোগ্রুপ U5 সাবক্লেডের), যদিও হ্যাপ্লোগ্রুপ T, J, HK-ও সনাক্ত করা হয়। গবেষণার লেখকরা উল্লেখ করেন, এই ফলাফল থেকে প্রমাণিত হয় যে, পন্টিক–ক্যাস্পিয়ান স্তেপ থেকে অভিপ্রায়ণের ফলে এই সংস্কৃতিটির উত্থান হয়েছিল।[১৪]

অন্যান্য সংস্কৃতির সম্ভাব্য সূত্রসমূহ[সম্পাদনা]

যেমন ধাতুর ব্যবহার, ঘোড়া এবং চাকাযুক্ত যানবাহন, এবং কুর্গান স্তেপ সংস্কৃতির সাথে সাংস্কৃতিক সম্পর্কের মত আফানাসেভো সংস্কৃতির অসংখ্য বৈশিষ্ট্য প্রারম্ভিক ইন্দো-ইউরোপীয় হওয়ায়, আফনানসভানরা ইন্দো-ইউরোপীয়-ভাষী ছিল বলে বিশ্বাস করা হয়।[৪] যাইহোক, স্টেট অফ দি আর্ট বায়ো-আর্কিওলজিকাল স্টাডিস দেখিয়েছে যে আফানাসিয়েভো সংস্কৃতি সাইবেরীয়-উদ্ভাবিত ওকুনেভ সংস্কৃতি (Okunev culture) দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়েছিল স্থানীয়ভাবে বিলুপ্ত হয়ে যায়। সুতরাং, আফসানিয়েভো সংস্কৃতির সাথে কয়েক হাজার বছর পরে উদ্ভূত তোখারীয়দের মধ্যে কোন যোগসূত্র নেই।[১৫]

অসংখ্য পণ্ডিত পরামর্শ দিয়েছেন যে চীনে ধাতববিদ্যার প্রবর্তনের কৃতিত্ব আফানাসেভো সংস্কৃতির।[১৬][১৭]

উত্তরাধিকারী[সম্পাদনা]

আফানাসেভো সংস্কৃতির পর তাদের অঞ্চলে স্থলাভিষিক্ত হয় ওকুনেভ সংস্কৃতি, যাকে সেই অঞ্চলের মধ্যে স্থানীয় অ-ইন্দো-ইউরোপীয় বন সংস্কৃতির একটি সম্প্রসারণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।[৪] তবুও ওকুনেভ সংস্কৃতি পূর্ববর্তী আফানাসেভো সংস্কৃতির প্রভাবসমূহ প্রদর্শন করে।[১] পরবর্তীকালে এই অঞ্চল দখল করে যথাক্রমে অ্যান্দ্রোনোভো, কারাসুক, তাগারতাশতিক সংস্কৃতি[১৮][১৯]

অ্যালেনটফ্‌ট প্রমুখ (২০১৫) গবেষণাটিও নিশ্চিত করে যে আফসানসেভো সংস্কৃতিটি ব্রোঞ্জ যুগের শেষের দিকে এবং লৌহযুগের প্রথম দিকে অ্যান্দ্রোনোভো সংস্কৃতি (Andronovo culture) থেকে আসা ইন্দো-ইউরোপীয় অভিপ্রায়ণের দ্বিতীয় তরঙ্গের দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়। গবেষণায় বলা হয়, "মধ্য এশিয়া ও সম্ভবত মঙ্গোলিয়া ও চীনে আফানাসেভো সংস্কৃতি টিকে থাকে, এবং শেষপর্যন্ত সেটি হিংস্র রথচালক যোদ্ধার সংস্কৃতি সিনতাশতা সংস্কৃতির (অ্যান্দ্রোনোভো সংস্কৃতি নামেও পরিচিত) দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়।"[১][২০] গবেষণায় দেখা গেছে তারিম মমিগুলো ইয়াম্নায়া সংস্কৃতি ও আফানাসেভো সংস্কৃতির তুলনায়[২১] অ্যান্দ্রোনোভো সংস্কৃতির সাথে জিনগতভাবে বেশি ঘনিষ্ঠ।

টীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Allentoft, ME (জুন ১১, ২০১৫)। "Population genomics of Bronze Age Eurasia"। Nature Research: 167–172। doi:10.1038/nature14507PMID 26062507 
  2. The set sites of the Afanasievo culture। Azbuka। ২০১৪। 
  3. Anthony, David W. (জুলাই ২৬, ২০১০)। The Horse, the Wheel, and Language: How Bronze-Age Riders from the Eurasian Steppes Shaped the Modern WorldPrinceton University Press। পৃষ্ঠা 307–310। আইএসবিএন 978-1400831104। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৮, ২০১৫ 
  4. Mallory, J. P. (১৯৯৭)। Encyclopedia of Indo-European CultureTaylor & Francis। পৃষ্ঠা 4–6। আইএসবিএন 1884964982। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৫ 
  5. Anthony, David W. (জুলাই ২৬, ২০১০)। The Horse, the Wheel, and Language: How Bronze-Age Riders from the Eurasian Steppes Shaped the Modern WorldPrinceton University Press। পৃষ্ঠা 264–265, 308। আইএসবিএন 978-1400831104। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৮, ২০১৫ 
  6. Mallory, J. P.; Mair, Victor H. (২০০০)। The Tarim Mummies: Ancient China and the Mystery of the Earliest Peoples from the West। Thames & Hudson। 
  7. Клейн Л. С. Миграция тохаров в свете археологии // Stratum plus. Т. 2. С. 178—187.
  8. Svyatko, S. (২০০৯)। "New Radiocarbon Dates and a Review of the Chronology of Prehistoric Populations from the Minusinsk Basin, Southern Siberia, Russia": 243–273 & appendix I p.266। 
  9. Anthony, D. W. (২০১৩)। "Two IE phylogenies, three PIE migrations, and four kinds of steppe pastoralism" (PDF): 1–21। 
  10. Rasmussen, S15-16. These samples are marked "RISE509" and "RISE511".
  11. Rasmussen, 575.
  12. Mathieson, Iain (ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৮)। "The Genomic History of Southeastern Europe"Nature Research: 197–203। doi:10.1038/nature25778PMID 29466330পিএমসি 6091220অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  13. Mathieson, Iain (নভেম্বর ২৩, ২০১৫)। "Genome-wide patterns of selection in 230 ancient Eurasians"Nature Research: 499–503। doi:10.1038/nature16152PMID 26595274পিএমসি 4918750অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  14. Narasimhan, Vagheesh M. (সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৯)। "The formation of human populations in South and Central Asia"American Association for the Advancement of Science: eaat7487। doi:10.1126/science.aat7487PMID 31488661পিএমসি 6822619অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  15. Hollard, Clémence; Zvénigorosky, Vincent (২০১৮)। "New genetic evidence of affinities and discontinuities between bronze age Siberian populations": 97–107। doi:10.1002/ajpa.23607 
  16. Baumer, Christoph (১১ ডিসেম্বর ২০১২)। The History of Central Asia: The Age of the Steppe WarriorsI.B. Tauris। পৃষ্ঠা 122। আইএসবিএন 978-1780760605 
  17. Keay, John (১ অক্টোবর ২০০৯)। China: A HistoryBasic Booksআইএসবিএন 978-0465020027 
  18. "Central Asian Arts: Neolithic and Metal Age cultures"Encyclopædia Britannica OnlineEncyclopædia Britannica। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২, ২০১৫ 
  19. "Stone Age: European cultures"Encyclopædia Britannica OnlineEncyclopædia Britannica। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২, ২০১৫ 
  20. অ্যালেন্টফ্‌ট প্রমুখ (২০১৫) গবেষণা অনুসারে, "মধ্য এশিয়া ও সম্ভবত মঙ্গোলিয়া ও চীনে আফানাসেভো সংস্কৃতি টিকে থাকে, এবং শেষপর্যন্ত সেটি হিংস্র রথচালক যোদ্ধার সংস্কৃতি সিনতাশতা সংস্কৃতির (অ্যান্দ্রোনোভো সংস্কৃতি নামেও পরিচিত) দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়।"
  21. Haak, Wolfgang (জুন ১১, ২০১৫)। "Massive migration from the steppe was a source for Indo-European languages in Europe"Nature Research: 207–211। doi:10.1038/nature14317PMID 25731166পিএমসি 5048219অবাধে প্রবেশযোগ্য 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]