আন্দ্রে অ্যাডামস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আন্দ্রে অ্যাডামস
Andre Adams.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআন্দ্রে রায়ান অ্যাডামস
জন্ম (1975-07-17) ১৭ জুলাই ১৯৭৫ (বয়স ৪৪)
অকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ২১৯)
৩০ মার্চ ২০০১ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১২২)
১০ এপ্রিল ২০০১ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই৬ জানুয়ারি ২০০৭ বনাম শ্রীলঙ্কা
ওডিআই শার্ট নং৪১
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ )
১৭ ফেব্রুয়ারি ২০০৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টি২০আই২৬ ডিসেম্বর ২০০৬ বনাম শ্রীলঙ্কা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯৭/৯৮ – ২০১২/১৩অকল্যান্ড
২০০১হিয়ারফোর্ডশায়ার
২০০৪–২০০৬এসেক্স
২০০৭–২০১৪নটিংহ্যামশায়ার
২০০৮কলকাতা টাইগার্স
২০১২খুলনা রয়্যাল বেঙ্গল
২০১৫হ্যাম্পশায়ার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪২ ১৭৩ ১৬৫
রানের সংখ্যা ১৮ ৪১৯ ৪,৫৪০ ১,৫০৪
ব্যাটিং গড় ৯.০০ ১৭.৪৫ ২১.৩১ ১৬.৭১
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ৩/১৮ ০/১
সর্বোচ্চ রান ১১ ৪৫ ১২৪ ৯০*
বল করেছে ১৯০ ১,৮৮৫ ৩৩,৩৮০ ৭,৫৬১
উইকেট ৫৩ ৬৯২ ২০৯
বোলিং গড় ১৭.৫০ ৩১.০০ ২৩.৯৫ ২৮.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট ২৭
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৪৪ ৫/২২ ৭/৩২ ৫/৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/০ ৮/০ ১১৪/– ৪০/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৮ মার্চ ২০১৯

আন্দ্রে রায়ান অ্যাডামস (ইংরেজি: Andre Adams; জন্ম: ১৭ জুলাই, ১৯৭৫) অকল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী এবং ক্যারিবীয় বংশোদ্ভূত প্রথিতযশা ও সাবেক নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১] নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ২০০১ থেকে ২০০৭ সময়কালে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে অকল্যান্ড এবং ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে এসেক্স, নটিংহ্যামশায়ার ও হ্যাম্পশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতেন আন্দ্রে অ্যাডামস

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

মার্চ, ২০০২ সালে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে বড়োদের খেলায় আন্দ্রে অ্যাডামসের অভিষেক ঘটে। কিন্তু, আঘাতের কবলে পড়ায় ২০০২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমনের উদ্দেশ্যে জ্যাকব ওরামকে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়। এরফলে একটিমাত্র টেস্টে তার অংশগ্রহণ করা সম্ভব হয়। এরপর তার খেলার বিষয়ে প্রশ্ন উত্থাপিত হতে থাকে। ২০০৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নেন তিনি। কিন্তু, এর পরপরই আবারো তাকে স্থানচ্যূত হতে হয়। ২০০৪ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ন্যাটওয়েস্ট সিরিজে নিউজিল্যান্ডের একদিনের দলে ঠাঁই হয় তার। ডিসেম্বর, ২০০৬ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনটি ওডিআই খেলার জন্যে আমন্ত্রিত হন। তবে, ২০০৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে উপেক্ষিত হন। পরের মৌসুমে স্টেট চ্যাম্পিয়নশীপে বেশ ভালো করলেও জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পাননি। হতাশাচ্ছন্ন অবস্থায় অধুনা বিলুপ্ত ইন্ডিয়ান ক্রিকেট লীগ খেলার উদ্দেশ্যে দুই বছর মেয়াদে চুক্তি করেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০০৬-০৭ মৌসুমের ঘরোয়া ক্রিকেটে অকল্যান্ডের পক্ষে দূর্দান্ত খেলেন। প্রথম-শ্রেণীর স্টেট চ্যাম্পিয়নশীপে ১৮.৭৮ গড়ে ৩২ উইকেট ও ৩৯.৭৫ গড়ে ৩১৮ রান তুলেন তিনি। কিন্তু, সেন্ট্রালে ডিস্ট্রিক্টসের ব্যাটসম্যান বেভান গ্রিগসের হেলমেট ধরে আটকিয়ে রাখার কারণে একমাসের নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েন তিনি যা তার এ সাফল্যেকে ম্লান করে দিয়েছিল।

২০০৭ সালে আন্দ্রে অ্যাডামস ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে নটিংহ্যামশায়ারের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন। ২০১০ সালের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপে ৬৮ উইকেট নিয়ে বোলিংয়ে ক্লাবের শীর্ষস্থানীয় বোলারে পরিণত হন। এ পর্যায়ে মৌসুমের শেষদিনে শিবনারায়ণ চন্দরপলের উইকেট নিয়ে দলের শিরোপা বিজয়ে প্রভূতঃ ভূমিকা রাখেন। ২০১১ মৌসুমে ৫৫০ রান ও ১৬ খেলায় ২২.৬১ গড়ে ৬৭ উইকেট পান তিনি। তন্মধ্যে, ৭বার পাঁচ-উইকেট লাভ করেন। ফলশ্রুতিতে, সামগ্রিকভাবে ঐ মৌসুমে তৃতীয় স্থান দখল করেছিলেন।

২০১০-১১ মৌসুমে নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ওয়ানডে কাপ ও টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতার শিরোপা বিজয়ী অকল্যান্ড দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। পরবর্তীতে দলটির সাথে ২০১১ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লীগ টি২০ খেলার উদ্দেশ্যে ভারত গমন করেছিলেন।

অবসর[সম্পাদনা]

নটিংহ্যামশায়ারের পক্ষে পেশাদারী পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন সমাপ্তির কথা ঘোষণা করেন। ২৪.১৮ গড়ে ৩৩৪টি প্রথম-শ্রেণীর উইকেট পান তিনি। ২০১৫ মৌসুমের শুরুতে হ্যাম্পশায়ারের সাথে তিনমাস মেয়াদী চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।[২] কিন্তু আঘাতের কারণে খেলায় অংশগ্রহণ সীমিত হয়ে পড়ে। হ্যাম্পশায়ারের পক্ষে মাত্র তিনটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিতে পেরেছিলেন তিনি। অবশেষে, ৩৯ বছর বয়সে অবসর গ্রহণ করেন।[৩] সাবেক দল নটিংহ্যামশায়ার থেকে ভূয়সী প্রশংসা পান। দলটিতে আট মৌসুম অতিবাহনকালে তরুণ বোলারদেরকে উদ্দীপনা যোগাতেন আন্দ্রে অ্যাডামস।[৪]

কোচিং[সম্পাদনা]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলোয়াড়ী জীবন থেকে অবসর গ্রহণের পর কোচিং জগতের দিকে ধাবিত হন। ২০১৫ সালে অকল্যান্ড ক্রিকেট ক্লাবের বোলিং কোচ হিসেবে যোগ দেন। ঐ মৌসুমে ক্লাবটি প্রভূতঃ সফলতার মুখ দেখে। এরপর ২০১৬-১৭ মৌসুমে অকল্যান্ড এ দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালনের জন্যে আন্দ্রে অ্যাডামসকে মনোনীত করা হয়।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Windies fall to Calypso Kiwi Retrieved 29 July 2010.
  2. "Sport Cricket 2 September 2014"BBC। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৬ 
  3. "Sport Cricket 8 June 2015"BBC। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৬ 
  4. "Andre Adams retires from ..... 5 June 2015"Sky Sports। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৬ 
  5. "New roles for Adams & Abbas 16 August 2016"Auckland Cricket Club। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]