আন্তর্জাতিক ভলিবল সংস্থা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আন্তর্জাতিক ভলিবল সংস্থা (এফআইভিবি)
আন্তর্জাতিক ভলিবল সংস্থার অফিসিয়াল লোগো.jpg
গঠিত১৯৪৭
ধরণক্রীড়া সংস্থা
সদর দপ্তরসুইজারল্যান্ড লৌজানে, সুইজারল্যান্ড
সদস্যপদ
২২০ জাতীয় ভলিবল সংস্থা
সভাপতি
চীন উই জিঝং (চীনা: 魏纪中)
ওয়েবসাইটwww.FIVB.org

আন্তর্জাতিক ভলিবল সংস্থা বা এফআইভিবি (ইংরেজি: Fédération Internationale de Volleyball) বীচ ভলিবলসহ ইনডোর ভলিবল এবং ঘাষপূর্ণ মাঠে ভলিবল খেলার আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণকারী ক্রীড়া পরিচালনাকারী সংস্থা হিসেবে পরিচিত।[১] সংস্থার সদর দফতর সুইজারল্যান্ডের লৌজানে অবস্থিত। বর্তমানে এর সভাপতি হিসেবে রয়েছেন চীনের উই জিঝং।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ভলিবলের ১০০ বছরের ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ছিল এপ্রিল, ১৯৪৭ সালে সংস্থাটির গঠন। বেলজিয়াম, ব্রাজিল, চেকস্লোভাকিয়া, মিশর, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ড, হাঙ্গেরী, ইতালি, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, রোমানিয়া, উরুগুয়ে, যুক্তরাষ্ট্র এবং যুগোস্লাভিয়া - এ ১৪ দেশের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে আন্তর্জাতিক ভলিবল সংস্থা ফ্রান্সের প্যারিসে ফরাসী ভলিবল সংস্থার সভাপতি পল লিবঁদের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি সংস্থাটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। এর সদর দফতর প্যারিসে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। তিনি দীর্ঘ ৩৭ বছর এর সভাপতি ছিলেন। পরবর্তীতে ড. রুবেন একোস্তা তাঁর কাছ থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন।

অলিম্পিকে অন্তর্ভুক্তি[সম্পাদনা]

আকর্ষণীয় ও মর্যাদাপূর্ণ খেলা হিসেবে পরীক্ষিত হবার পর ১৯৫৯ সালে মিউনিখে অণুষ্ঠিত আইওসি'র সভায় অলিম্পিক প্রতিযোগিতায় ভলিবল ক্রীড়াকে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে আলোচনা করা হয়। ১৯৬৪ সালের টোকিও অলিম্পিকে প্রথমবারের মতো খেলা হয়। এতে পুরুষ বিভাগে ১০টি এবং মহিলা বিভাগে ৬টি দেশ অংশ নেয়। দলগত ক্রীড়া হিসেবে ভলিবলের পুরুষ বিভাগে সোভিয়েত ইউনিয়ন ও মহিলা বিভাগে জাপান স্বর্ণপদক লাভ করে। কাকতালীয়ভাবে অলিম্পিকের পর জাপানে ভলিবল খেলায় প্রাণচাঞ্চল্যের পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

৩২ বছর পর ১৯৯৬ সালে আটলান্টা অলিম্পিকে বিশ্বের অন্যতম দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠা বীচ ভলিবলের অন্তর্ভুক্তি ঘটে। উল্লেখ্য যে, বীচ ভলিবল ইনডোর ভলিবলের অন্যতম সফল দ্বিতীয় সারির খেলা।

ফিভবি হিরোজ[সম্পাদনা]

আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণায় ফিভবি হিরোজ ব্যবহার করা হচ্ছে। এ প্রচারণার মূল্য উদ্দেশ্য হচ্ছে খেলোয়াড়দের মধ্যে সচেতনতা, উজ্জ্বীবিতকরণ এবং বৈশ্বিকভাবে ভলিবল খেলার গুরুত্ব জনসমক্ষে তুলে ধরা। ফিভবি হিরোজে ১৯ দেশের ৩৩ জন অসাধারণ ভলিবল এবং ২৯ জন বীচ ভলিবল খেলোয়াড়কে সংশ্লিষ্ট করা হয়েছে।

অলিম্পিক সংবাদে বলা হয় যে, সম্প্রতি রোমে ফিভবি হিরোজ উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রচারণার লক্ষ্যে বিলবোর্ড, পোস্টার এবং শীর্ষস্থানীয় ক্রীড়াবিদদের প্রতিকৃতি রয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]