আনোয়ার জাহিদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আনোয়ার জাহিদ
আনোয়ার জাহিদ.jpg
তথ্য, ত্রাণ এবং শ্রম-জনশক্তি মন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
৭ মে ১৯৮৬ – ১ জানুয়ারি ১৯৮৮
ঝিনাইদহ-২ আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
৭ মে ১৯৮৬ – ৩ মার্চ ১৯৮৮
উত্তরসূরীআশরাফুল আবেদিন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১২ জুন ১৯৩৮
ঝিনাইদহ জেলা
মৃত্যু১৩ আগস্ট ২০০৮
ইউনাইটেড হাসপাতাল, গুলশান, ঢাকা
সমাধিস্থলমিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থান
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
দাম্পত্য সঙ্গীকামরুননাহার লাইলী (বি. ১৯৬১)
সন্তান১ পুত্র ও এক কন্যা
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,
রাজশাহী কলেজ,
বি এল কলেজ

আনোয়ার জাহিদ (১২ জুন ১৯৩৮–১৩ আগস্ট ২০০৮) বাংলাদেশের ঝিনাইদহ জেলার রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, লেখক, ঝিনাইদহ-২ আসনের সংসদ সদস্যতথ্য, ত্রাণ এবং শ্রম-জনশক্তি মন্ত্রী ছিলেন।[১][২]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

আনোয়ার জাহিদ ১২ জুন ১৯৩৮ সালে ঝিনাইদহের ঘোড়াশাল ইউনিয়নের নারিকেল বাড়িয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা এ এম দেলোয়ার হোসেন ও মাতা রাজিয়া বেগম। তিনি ১৯৫৬ সালে ঝিনাইদহ মডেল হাইস্কুল হতে প্রবেশিকা পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হন। তিনি খুলনা বিএল কলেজ, রাজশাহী সরকারি কলেজঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন। ১৯৬১ সালে তিনি কারাগারে আইনজীবী কামরুননাহার লাইলীকে বিয়ে করেন। তাদের এক পুত্র ও এক কন্যা।[৩]

রাজনৈতিক ও কর্মজীবন[সম্পাদনা]

সাংবাদিকতা[সম্পাদনা]

আনোয়ার জাহিদ ৫৫ সালে সাহিত্য মজলিসের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৫৬ সালে দৈনিক ইত্তেহাদের সহকারি সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫৮ সালে অর্ধ সাপ্তাহিক ধূমকেতুর সহকারি সম্পাদক, ১৯৫৯ সালে দৈনিক সংবাদের সহকারি সম্পাদক, ১৯৬০ সালে দৈনিক ইত্তেফাকের সহকারি সম্পাদক, ১৯৬৩ সালে সাপ্তাহিক জনতার সম্পাদক, ১৯৬৬ সালে ইংরেজি সাপ্তাহিক হলিডের উপসম্পাদক, ১৯৭০ সালে সাপ্তাহিক গণবাংলা পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক, ১৯৭২ সালে ইংরেজি দৈনিক ডেইলি পিপলসের বার্তাসম্পাদক ও বাংলাদেশ টাইমসের নির্বাহী সম্পাদক ছিলেন। সর্বশেষ কাজ করেন দৈনিক ইনকিলাবে[২]

তিনি ১৯৬২, ৬৩, ৬৪, সালে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজ) সাধারণ সম্পাদক, ১৯৬৫ ও ৬৬ সালে সহসভাপতি, ১৯৭৮ ও ৮৩ সালে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[২]

রাজনীতি[সম্পাদনা]

১৯৫৬ ছাত্রলীগের ঝিনাইদহ মহকুমার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে ঝিনাইদহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৫৪ সালে ছাত্র ইউনিয়নে যোগ দেন।

১৯৫৬ সালে রাজশাহী সরকারী কলেজের ছাত্রসংসদের জি এস নির্বাচিত হন। ১৯৫৭ সালে পূর্ব পাকিস্তান যুবলীগের সেক্রেটারি নির্বাচিত হন। ১৯৬১ সালে গ্রেফতার হয়ে কারাবরণ করেন। ১৯৬২ সালে কারামুক্ত হন। ১৯৬৫ সালে নিখিল-পাকিস্তান ন্যাপের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে তিনি ভূমিকা রাখেন। ১৯৭৬ সালে ন্যাপ দুই ভাগে বিভক্ত হলে তিনি মাওলানা ভাসানীর নেতৃত্বাধীন ন্যাপের যুগ্নসম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৭ সালে ন্যাপ পূনর্গঠিত হলে তিনি কেন্দ্রীয় সদস্য হন।

১৯৭৮ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়উর রহমানের নেতৃত্বে জাতীয়তাবাদী ফ্রন্ট গঠন ও ঘোষণাপত্র তৈরিতে ভূমিকা রাখেন। একই সাথে তিনি ন্যাপের সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন। পরে গণতন্ত্রী পার্টি গঠনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়ে তৃতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহ-২ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[১] তখন এরশাদ সরকারের তথ্য, ত্রাণ এবং শ্রম-জনশক্তি মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জানুয়ারি ১৯৮৮ সালে মন্ত্রীপরিষদ থেকে পদত্যাগ করেন।[২]

১৯৮৯ সালে তিনি ও সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী এনডিপি এবং ১৯৯১ সালে বিএনডিপি গঠন করে দলের চেয়ারম্যানের দায়ীত্ব পালন করেন। ১৯৯২ সালের ১০ দলের সমন্বয়ে গঠিত এনডিএ'র সিক্রেটারি জেনারেল নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে বিএনপিতে যোগ দেন এবং ২০০১ সাল পর্যন্ত বিএনপি চেয়ারপার্সনেরর তথ্য উপদেষ্ঠা ছিলেন।[২]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

আনোয়ার জাহিদ ১৩ আগস্ট ২০০৮ সালে ঢাকার গুলশানে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।[৪][৫][৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "৩য় জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. নিজস্ব প্রতিবেদক (১৩ আগস্ট ২০১৪)। "রাজনীতিক-সাংবাদিক আনোয়ার জাহিদের মৃত্যুবার্ষিকী আজ"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ১২ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০২০ 
  3. "আনোয়ার জাহিদ"যশোর ইনফো। ১১ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০২০ 
  4. স্টাফ রিপোর্টার (১৪ আগস্ট ২০১৮)। "আনোয়ার জাহিদ ছিলেন ঐক্যের রাজনীতির পথ প্রদর্শক, দশম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণসভায় বক্তারা"দৈনিক ইনকিলাব। ১১ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০২০ 
  5. "আনোয়ার জাহিদ জাতীয়তাবাদী রাজনীতির ধ্রুবতারা"দৈনিক সংগ্রাম। ১৫ আগস্ট ২০১৮। ১২ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০২০ 
  6. নিজস্ব প্রতিবেদক (১০ আগস্ট ২০১৯)। "মৃত্যুবার্ষিকীতে ন্যাপের স্মরণসভা আজীবন জাতীয় ঐক্যের রাজনীতি করেছেন আনোয়ার জাহিদ"দৈনিক নয়া দিগন্ত। ১২ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০২০