আধিপত্যবাদী পুরুষত্ব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

লিঙ্গ বিষয়ক বিদ্যায়, আধিপত্যবাদী পুরুষত্ব (hegemonic masculinity) আর. ডব্লিউ. কনেলের লৈঙ্গিক ক্রম তত্ত্বের একটি অংশ, যেখানে একাধিক পুরুষত্বের স্বীকৃতি দেয়া হয় যেগুলো সময়, সংস্কৃতি ও ব্যক্তিভেদে পৃথক হতে পারে। আধিপত্যবাদী পুরুষত্বকে একটি চর্চার দ্বারা সংজ্ঞায়িত করা হয় যা সমাজে পুরুষের কর্তৃত্বমূলক অবস্থানকে সিদ্ধ করে এবং নারী এবং পুরুষের অন্যান্য প্রান্তিক অবস্থার অধীনতাকে ন্যায্যতা প্রদান করে।[১] ধারণাগতভাবে আধিপত্যবাদী পুরুষত্ব ব্যাখ্যা করে যে, কিভাবে ও কেন নারী ও অন্যান্য লৈঙ্গিক পরিচয়ের উপর কর্তৃত্ববাদী সামাজিক ভূমিকাকে পুরুষ রক্ষা করে চলে, যেসব লৈঙ্গিক পরিচয়কে সমাজে "নারীসুলভ" হিসেবে দেখা হয়।

সমাজতাত্ত্বিক ধারণা অনুসারে, "আধিপত্যবাদী পুরুষত্বের" আধিপত্যবাদী প্রকৃতিটি নেয়া হয়েছে মার্ক্সবাদী তাত্ত্বিক এন্টনিও গ্রামসির সাংস্কৃতিক আধিপত্যবাদ এর তত্ত্ব থেকে, যা বিভিন্ন সামাজিক শ্রেণীর মধ্যে ক্ষমতা সম্পর্ককে বিশ্লেষণ করে। তাই, "আধিপত্যবাদী পুরুষত্ব" শব্দটির বিশেষণ আধিপত্যবাদী দ্বারা সামাজিক গতিবিদ্যা নির্দেশ করে, যার দ্বারা একটি সামাজিক গোষ্ঠী সামাজিক ক্রমোচ্চ শ্রেণীবিভাগে কর্তৃত্বমূলক অবস্থান দাবী করে, অধিকার করে এবং এর নেতৃত্ব দেয়। আধিপত্যবাদী পুরুষত্ব এক ধরনের সামাইক সংগঠনকে নির্দেশ করে যা পরিবর্তনশীল এবং সমাজতত্ত্বে এটি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Connell, R.W. (২০০৫)। Masculinities (2nd সংস্করণ)। Berkeley, CA: University of California Press। আইএসবিএন 9780745634265