আউট (ক্রিকেট)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
প্রতীকী ছবি

আউট (ইংরেজি: Dismissal); ক্রিকেট খেলায় একজন বলার বা প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় অন্য দলের খেলোয়াড় বা ব্যাটসম্যানকে পিচ বা মাঠ থেকে বের করার বৈধ নিয়মকে আউট বলে।

এই আউট ১১ (এগারো) প্রকার। যেমন:

১. রিটায়ার্ড : কোন কারণে যদি ব্যাটসম্যান ক্রিজে সমস্যায় পড়ে এবং ব্যাটিং করা অসম্ভব হয়ে পড়ে তখন সেই ব্যাটসম্যানকে রিটায়ার্ড হার্ট। যদি কেউ নিজের ইচ্ছাতে ফিরে আসে তবে তাকে রিটার্য়াড আউট বলে।


২. বোল্ড : বোলার বল করার পর সেটি যদি ব্যাটসম্যানকে ফাঁকি দিয়ে সরাসরি স্ট্যাম্পে আঘাত হানে তবে সেটি বোল্ড আউট।যদি বল স্ট্যাম্পে আঘাত করে কিন্তু বেইল না পরে তাহলে ব্যাটসম্যান আউট হবে না।

৩. টাইমড আউট : একজন ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার ৩ মিনিটের মধ্যে যদি পরবর্তী ব্যাটসম্যান ক্রিজে না নামে তবে সেই ব্যাটসম্যান টাইমড আউট বলে বিবেচিত হবে।

৪. কট আউট : ব্যাটসম্যান বলকে হিট করার পর যদি শূন্যে থাকা অবস্থায় কোন ফিল্ডার সেটি তালুবন্দি করে তবে সেটি ক্যাচ আউট।

৫. হ্যান্ডেল্ড দ্যা বল : বোলার বল করার পর ব্যাটসম্যান যদি সেই বল ব্যাটের বদলে হাত দিয়ে ধরে তবে সেটি দ্যা বল আউট।

৬. হিট দ্যা বল টোয়াইচ : প্রথম বার ব্যাট চালানোর পর যদি ব্যাটে না লাগার পর দ্বিতীয় বার ব্যাট চালায় এবং ব্যাটে বল লাগায় তবে সেটি ও আউট।

৭. হিট উইকেট : বল যদি ব্যাট থেকে স্ট্যাম্পে আঘাত হানে তবে সেটি হিট আউট।

৮. লেগ বিফোর উইকেট ( LBW ) : বলার বল করার পর যদি ব্যাটসম্যান পা দিয়ে বলকে থামায় এবং সেটি যদি স্ট্যাম্প বরাবর হয় তবে সেটি LBW আউট।

৯. অবস্ট্রাকটিং দা ফিল্ড : রান নেওয়ার সময় ফিল্ডার থ্রো করা বল যদি ব্যাটসম্যান ইচ্ছাকৃতভাবে আটকায় তবে সেটি আউট বলে ঘোষণা করা হয়।

১০. রান আউট : ব্যাটসম্যান রান নেওয়ার সময় ক্রিজে প্রবেশ করার আগে যদি ফিল্ডারের করা বল যদি সরাসরি / কিপার দ্বারা স্ট্যাম্পে আঘাত হানে তবে সেটি রান আউট।

১১. স্ট্যাম্পড : বোলার বল করার পর যদি ব্যাটসম্যান ক্রিজ থেকে বের হয়ে এসে বলকে ব্যাটে লাগাতে ব্যর্থ হয় ও কিপার স্ট্যাম্প ভেঙ্গে দেয় তবে সেটি স্ট্যাম্পড আউট।