আই লভ ইউ (২০০৭-এর বাংলা চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আই লভ ইউ
আই লাভ ইউ চলচ্চিত্রের কভার.jpg
পরিচালকরবি কিনাগী
প্রযোজকশ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস
চিত্রনাট্যকারএন.কে. সলিল
উৎসপারুচুরি ভ্রাতৃদ্বয় কর্তৃক 
নুভোস্তান্তে নিনদান্তানা
শ্রেষ্ঠাংশেদেব
পায়েল সরকার
সুরকারজিৎ গাঙ্গুলী
চিত্রগ্রাহকনাইড়ু
সম্পাদকরবি কিনাগী
পরিবেশকশ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস
মুক্তিজুলাই, ২০০৭
দৈর্ঘ্য১৫০ মিনিট
দেশভারত
ভাষাবাংলা

আই লভ ইউ খ্যাতিমান পরিচালক রবি কিনাগী পরিচালিত এবং শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস প্রযোজিত ২০০৭ সালের একটি বাংলা চলচ্চিত্র।[১][২] চলচ্চিত্রটির কাহিনী ১৯৮৯ সালের সূরয আর. বার্জাত্য পরিচালিত ম্যাঁয়নে পেয়ার কিয়া চলচ্চিত্রের ন্যায়। চলচ্চিত্রটি মূলত অণুপ্রাণিত হয়েছে ২০০৫ সালের তেলেগু চলচ্চিত্র নুভোস্তান্তে নিনদান্তানা থেকে।

কাহিনী[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি এক ধনী পুত্র এবং দরিদ্র কন্যার মধ্যকার প্রেমের গল্প। রাহুল (দেব) তার বোন বর্ষা এর বিয়ের জন্য লন্ডন থেকে ফিরে আসে। তার বাবা (অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়) বিরাট আয়োজনে মেয়ের বিয়ে ব্যবস্থা করেছেন। বিয়ের জন্য বর্ষা তার সেরা বন্ধু পূজা (পায়েল সরকার) কে নিয়ে আসে। এদিকে রাহুল-এর সাথে মোনার বিয়ে আগে থেকেই মুখের কথায় ঠিক করা হয়েছে। তাই মোনার বাবা (রজতাভ দত্ত) ও মোনার মা (কমলিকা বন্দ্যোপাধ্যায়) বিয়েবাড়িতে উপস্থিত হয়। এদিকে দেখতে দেখতে রাহুলপূজার মধ্যে নানা খুনসুটি থেকে ভালবাসা হয়ে যায়। তাই পূজার বড়ভাই (তাপস পাল) বিয়েতে কমদামি উপহার নিয়ে এলে মোনার বাবারাহুলের বাবা তাকে অপমান করে। তিনি পূজাকে নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যান।

রাহুল পূজার কাছে যেতে চায়। তাই সে বাড়ির সম্পত্তি এবং মোনাকে রেখে পূজাদের গ্রামের বাড়িতে যায়। কিন্তু পূজার বড়ভাই কিছুতেই ধনীর ছেলের কাছে নিজের বোনকে তুলে দেবেন না। তিনি রাহুলকে তাদের জীবনধারায় অভ্যস্ত হওয়ার কঠিন চ্যালেঞ্জ দেন। রাহুল তা মোকাবেলা করে সফল হয় এবং পূজার বড়ভাইয়ের মনজয় করে নেয়। রাহুলের বাবারাহুলকে নিয়ে যেতে গ্রামে এসে তার ভালবাসার একাগ্রতা দেখে মনে মনে মেনে নেয়।

কিন্তু মোনার বাবা কিছুতেই মেনে নেয়না। সে পূজাকে গ্রামেরই এক গুণ্ডাকে দিয়ে অপহরণ করায়। কিন্তু শেষে রাহুল সবাইকে বাঁচায়। গুণ্ডাকে সে মারতে গেলে তার জায়গায় পূজার বড়ভাই এসে মেরে ফেলে। ফলে তার জেল হয়।

চলচ্চিত্রে দেখানো হয় যে তিনি জেল থেকে মুক্তির আগের দিন কারাগারের দ্বারবানকে এই সমস্ত কাহিনী বলছেন এবং তার ভাগ্নে/ভাগ্নির নাম ঠিক করছেন কারণ তিনি নিশ্চিত ছিলেন যে পূজারাহুল-এর বিয়ে হয়ে গেছে। কিন্তু জেল থেকে বেরিয়ে তিনি দেখতে পান যে তারা বড়ভাইয়ের আশীর্বাদ পাবেনি দেখে বিয়ে করেনি। পরে পূজার বড়ভাই আশীর্বাদ করলে বিয়ে করবে বলে ঠিক করেছিল তারা।

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

আই লভ ইউ
জিৎ গাঙ্গুলী কর্তৃক সঙ্গীত অ্যালবাম
মুক্তির তারিখ২০০৭
ঘরানাচলচ্চিত্রের গান
জিৎ গাঙ্গুলী কালক্রম
'
(২০১১)String Module Error: Match not found২০১১
আই লভ ইউ
(২০০৭)

শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের ব্যানারের এই চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা করেন জিৎ গাঙ্গুলী[৩]

নং.শিরোনামকণ্ঠশিল্পী(রা)দৈর্ঘ্য
১."আই লভ ইউ"শান, শ্রেয়া ঘোষাল 
২."ভালবাসা হাত বাড়াল"শান, শ্রেয়া ঘোষাল 
৩."দূর ঐ পাহাড় মিশেছে"বাবুল সুপ্রিয়, শ্বেতা, শ্রেয়া ঘোষাল 
৪."একটা কথা বলব"বাবুল সুপ্রিয়, শ্রেয়া ঘোষাল 
৫."মন মানে না"সনু নিগম 
৬."চলরে চলরে ভাই"সনু নিগম 

চরিত্রের মানচিত্র এবং পুনঃনির্মাণ[সম্পাদনা]

নুভোস্তান্তে নিনদান্তানা (২০০২)
(তেলেগু)
সামথিং সামথিং... উনাক্কাম এনাক্কাম (২০০৩)
(তামিল)
নিনিল্লো নানাল্লে (২০০৫)
(কানন্দা)
রামাইয়া বাস্তাবাইয়া (২০১৪)
(হিন্দি)
আই লাভ ইউ (২০০৭-এর চলচ্চিত্র)
সুনা ছাদহেই মো রূপা ছাদহেই (ওড়িয়া)
নিঃশ্বাস আমার তুমি (বাংলাদেশ)
শ্রী হরি ফবু বিষ্ণুবর্ধণ সোনু সূদ তাপস পাল সিদ্ধার্থ মহাপত্র মিশা সওদাগর

সমালোচকদের গ্রহণ[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের কাছ থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পেলেও বাণিজ্যিকভাবে সফল ছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bhattacharya, Arnab (২০০৭-০১-২৬)। "The Telegraph - Calcutta : I Love You"। Calcutta, India: www.telegraphindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-২৩ 
  2. "I Love You (2007) Movie"। www.gomolo.in। ২০০৯-০৮-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-২৩ 
  3. Songs">"I Love You 2007 -> Songs" 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:রবি কিনাগী টেমপ্লেট:শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস