অস্কার দা কস্তা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অস্কার দা কস্তা
অস্কার দা কস্তা.jpg
১৯৩৩ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে অস্কার দা কস্তা
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅস্কার কনস্ট্যান্টাইন দা কস্তা
জন্ম১১ সেপ্টেম্বর, ১৯০৭
কিংস্টন, জ্যামাইকা
মৃত্যু১ অক্টোবর, ১৯৩৬
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৭)
৩ এপ্রিল ১৯৩০ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট২৪ জানুয়ারি ১৯৩৫ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৯
রানের সংখ্যা ১৫৩ ১,৫৬৩
ব্যাটিং গড় ১৯.১২ ২৯.৪৯
১০০/৫০ ০/০ ১/৯
সর্বোচ্চ রান ৩৯ ১০৫*
বল করেছে ৩৭২ ৪,১২৮
উইকেট ৪৪
বোলিং গড় ৫৮.৩৩ ৪০.১৩
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ১/১৪ ৪/৩১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৫/০ ৩০/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৯ জানুয়ারি ২০২০

অস্কার কনস্ট্যান্টাইন দা কস্তা (ইংরেজি: Oscar Da Costa; জন্ম: ১১ সেপ্টেম্বর, ১৯০৭ - মৃত্যু: ১ অক্টোবর, ১৯৩৬) জ্যামাইকার কিংস্টন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৩০ থেকে ১৯৩৫ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে জ্যামাইকা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন অস্কার দা কস্তা। মাত্র ২৯ বছর বয়সে অকালমৃত্যু ঘটে তার।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯২৮-২৯ মৌসুম থেকে ১৯৩৪-৩৫ মৌসুম পর্যন্ত অস্কার দা কস্তা’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ১৯৩০-এর দশকের শুরু থেকে মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য অল-রাউন্ডার হিসেবে সুনাম কুড়িয়েছেন।

বিশ্বস্ত ব্যাটসম্যান ও কার্যকরী মিডিয়াম পেস বোলিং করতেন অস্কার দা কস্তা। ফিল্ডিংয়ের ক্ষেত্রেও যথেষ্ট তৎপরতা দেখাতেন। ফেব্রুয়ারি, ১৯২৯ সালে জ্যামাইকার সদস্যরূপে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। স্যার জুলিয়েন কানের নেতৃত্বাধীন সফররত ইংরেজ একাদশের বিপক্ষে খেলেন। প্রথম ইনিংসে প্রতিপক্ষীয় অধিনায়ককে শূন্য রানে বোল্ড করেন। ১৯৩০ সালের মধ্যে মাত্র পাঁচটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশগ্রহণের সুযোগ হয় তার।

অন্য কোন ঔপনিবেশিক দ্বীপপুঞ্জের বিপক্ষে কোন প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নেননি। অংশগ্রহণকৃত ৩৯টি প্রথম-শ্রেণীর খেলার মধ্যে মাত্র নয়টি জ্যামাইকার পক্ষে খেলেছিলেন তিনি। সবগুলো খেলাই নির্বাচিত একাদশ, বা ১৯৩৩ সালের সফরে কাউন্টি দল কিংবা বিশ্ববিদ্যালয় দলের বিপক্ষে বা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট খেলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন অস্কার দা কস্তা। ৩ এপ্রিল, ১৯৩০ তারিখে কিংস্টনে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ২৪ জানুয়ারি, ১৯৩৫ তারিখে পোর্ট অব স্পেনে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ টেস্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পান। কিংস্টনে অনুষ্ঠিত অসীম সময়ের ঐ টেস্টে ৮ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামেন। ক্রিজে একবারই ব্যাটিং করেন ও ৩৯ রান তুলেন। উভয় ইনিংসে একটি করে উইকেট পান ও খেলায় সর্বমোট তিনটি ক্যাচ তালুবন্দী করেছিলেন তিনি।

ইংল্যান্ড গমন[সম্পাদনা]

১৯৩৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজে দলের সদস্যরূপে ইংল্যান্ড গমনের জন্যে মনোনীত হন। এ সফরে ২৬.৮২ গড়ে সহস্রাধিক রান সংগ্রহ করেন তিনি। তন্মধ্যে নিজস্ব প্রথম ও একমাত্র সেঞ্চুরির সন্ধান পান। লেটনে এসেক্সের বিপক্ষে ১০৫ রানের মনোমুগ্ধকর ইনিংস খেলেন তিনি। এটিই তার সমগ্র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনের একমাত্র শতরানের ইনিংস ছিল। কিন্তু অংশগ্রহণকৃত তিন টেস্টে কম সফল ছিলেন। ছয় ইনিংসে অংশ নিয়ে মাত্র ৭০ রান ও একটিমাত্র উইকেট পান।

এ সফরের পর অস্কার দা কস্তা ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আর একটিমাত্র খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। ১৯৩৪-৩৫ মৌসুমে ইংল্যান্ড দল ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে পদার্পণ করে। পোর্ট অব স্পেনে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে অংশ নেন। এ পর্যায়ে স্বাগতিক দলের সান্তনাসূচক জয়ে প্রভূতঃ ভূমিকা রাখেন। এ পর্যায়ে বোলিংয়ের তুলনায় ব্যাটিংয়ের দিকেই অধিক মনোনিবেশ ঘটান।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

আমোদপ্রিয় ব্যক্তি হিসেবে অস্কার দা কস্তা’র পরিচিতি ছিল। সময় বাঁচাতে দর্শকদের অনুরোধ রক্ষাকল্পে স্বাক্ষরের জন্যে রাবার স্ট্যাম্প ব্যবহার করতেন যাতে কেউ ভগ্ন মনোরথে ফিরে না যান।

১ অক্টোবর, ১৯৩৬ তারিখে মাত্র ২৯ বছর বয়সে অস্কার দা কস্তা’র দেহাবসান ঘটে। প্রথম ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার হিসেবে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। তবে, উইজডেনে শুরুতে তার শোকসংবাদ প্রকাশ করেনি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. World Cricketers - A Biographical Dictionary by Christopher Martin-Jenkins published by Oxford University Press (1996),
  2. The Wisden Book of Test Cricket, Volume 1 (1877-1977) compiled and edited by Bill Frindall published by Headline Book Publishing (1995),
  3. The Complete Record of West Indian Test Cricketers by Bridgette Lawrence & Ray Goble published by ACL & Polar Publishing (UK) Ltd. (1991)

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]