অমূল্যচন্দ্র অধিকারী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অমূল্যচন্দ্র অধিকারী
জন্ম১৯০১
মৃত্যু১৯৫১
জাতিসত্তাবাঙালি
আন্দোলনব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলন

অমূল্যচন্দ্র অধিকারী (১৯০১ - ১৯৫১) ছিলেন ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন অন্যতম ব্যক্তিত্ব, অগ্নিযুগের বিপ্লবী এবং সাম্যবাদী চিন্তা ও আদর্শের অনুসারী।

জন্ম ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

অমূল্যচন্দ্র অধিকারীর জন্ম নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার বাড়রী গ্রামে। তার পিতার নাম শরৎচন্দ্র অধিকারী। তার ছাত্রজীবন কাটে ঈশ্বরগঞ্জকলকাতায়[১][২]

বিপ্লবী কর্মকান্ড[সম্পাদনা]

অল্প বয়সেই বিপ্লবী অনুশীলন দলের প্রবোধ দাশগুপ্ত প্রমুখ বিপ্লবীদের সংস্পর্শে আসেন। ঐ দলেরই বিশ্বাসঘাতক হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত আছেন সন্দেহক্রমে ১৯১৭ সালে পুলিস তাকে বছর দুই অন্তরীণ করে রাখে। মুক্তিলাভের পর জ্ঞানচন্দ্র মজুমদারের সঙ্গে অসহযোগ আন্দোলনে ব্যক্তিগতভাবে অংশ নেন_যদিও অনুশীলন দল এই আন্দোলনে যোগ দেয়নি। আত্মগোপনকারী বহু নেতাকে নানাভাবে সাহায্য করতেন। দলের অর্থ সংগ্রহের প্রয়োজনে ডাকাতির পরিকল্পনায় এবং বেআইনি অস্ত্রশস্ত্র সংগ্রহের কাজে নিযুক্ত ছিলেন। ১৯২২ সনে সোভিয়েত বিপ্লবের প্রশংসাসূচক এক প্রবন্ধ লিখে পত্রিকায় প্রকাশ করেন। ১৯২৪-২৮ ও ১৯৩০-৩৮ সালে কারারুদ্ধ ছিলেন।[৩] তিনি জেলে মোট ২০ বছর বন্দি ছিলেন এবং মোট ৫০ দিন অনশন করেন।[১] তার উদ্যোগে দলের অধিকাংশ যুবকর্মী ও নেতাদের নিয়ে বিপ্লবী সমাজতন্ত্রী দল (R. S. P.) গঠিত হয়।[৩] ১৯৪০ সালে বিপ্লবী সমাজতন্ত্রী দলের (আরএসপি) প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। রাজনীতি, বিশেষত মার্কসীয় রাজনীতি বিষয়ে অনেক প্রবন্ধ রচনা করেছিলেন। ত্রৈলোক্যনাথ চক্রবর্তী প্রমুখ বিপ্লবী নেতৃবৃন্দের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ত্রৈলোক্যনাথ চক্রবর্তী, জেলে ত্রিশ বছর, পাক-ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম, ধ্রুপদ সাহিত্যাঙ্গণ, ঢাকা, ঢাকা বইমেলা ২০০৪, পৃষ্ঠা ২১৩।
  2. দরজি আবদুল ওয়াহাব, ময়মনসিংহের চরিতাভিধান, ময়মনসিংহ জেলা দ্বিশতবার্ষিকী উদযাপন কর্তৃপক্ষ, ময়মনসিংহ, বাংলাদেশ, এপ্রিল ১৯৮৯, পৃষ্ঠা ১০।
  3. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, সংশোধিত ও পরিমার্জিত পঞ্চম সংস্করণ, দ্বিতীয় মুদ্রণ, নভেম্বর ২০১৩, পৃষ্ঠা ৪০-৪১, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬