অভিযান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

অভিযান বলতে বোঝায় কোন তথ্য বা সংস্থান আবিষ্কারের উদ্দেশ্যে অনুসন্ধান করাকে। মানুষ সহ সকল প্রকার প্রাণীরা অভিযান করে থাকে। মানব ইতিহাসে, এর নাটকীয় উত্থান আবিষ্কারের যুগে ঘটেছিল যখন ইউরোপীয় অভিযাত্রীরা বিভিন্ন কারণে বিশ্বের বাকি অংশ যাত্রা করেছিলেন। সেই থেকে আবিষ্কারের যুগ পরবর্তী বড় অনুসন্ধানগুলি মূলত তথ্য অনুসন্ধানের উদ্দেশ্যেই ঘটেছিল।

মানব অনুসন্ধানের উল্লেখযোগ্য সময়কাল[সম্পাদনা]

ফিনিশিয়ান গ্যালির নৌযান[সম্পাদনা]

ফিনিশিয়ানরা (খ্রিস্টপূর্ব ১৫০০ – খ্রিস্টপূর্ব ৩০০) ভূমধ্যসাগর এবং আনাতুলিয়া জুড়ে ব্যবসা করত যদিও তাদের বেশিরভাগ ভ্রমণপথ আজও অজানা। কিছু ফিনিশিয়ান নিদর্শনগুলিতে টিনের উপস্থিতি বোঝায় যে তারা সম্ভবত ব্রিটেন ভ্রমণ করেছিলেন। ভার্জিলের আনিড এবং অন্যান্য প্রাচীন উৎস অনুসারে, কিংবদন্তি কুইন দিদো ছিলেন সোরের ফিনিশিয়ান যিনি উত্তর আফ্রিকায় যাত্রা করেছিলেন এবং কার্থেজ শহরটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

পশ্চিম আফ্রিকার কার্টেজিনান অভিযান[সম্পাদনা]

হ্যানো নেভিগেটর (খ্রিস্টপূর্ব ৫০০), একজন কার্থাজেইন অভিযাত্রী যিনি আফ্রিকার পশ্চিম উপকূলে অভিযান করেছিলেন।

উত্তর ইউরোপ এবং থুলিতে গ্রীক ও রোমানদের অভিযান[সম্পাদনা]

মার্সেই, পাইথিয়াসের গ্রীক অভিযাত্রী (৩৮০ - খ্রিস্টপূর্ব ৩১০ খ্রিস্টাব্দ) সর্বপ্রথম গ্রেট ব্রিটেন, জার্মানিতে অভিযান চালিয়েছিলেন এবং থুলিতে পৌঁছেছিলেন (সাধারণভাবে যাকে শিটল্যান্ড দ্বীপপুঞ্জ বা আইসল্যান্ড বলে মনে করা হতো)।

রোমান অভিযান[সম্পাদনা]

আফ্রিকা অভিযান

রোমানরা সাহারা মরুভূমি পার হওয়ার জন্য পাঁচটি বিভিন্ন পথ দিয়ে অভিযানের পরিকল্পনা করেছিল:

এই সমস্ত অভিযানগুলি লিজিওনারিদের দ্বারা সমর্থিত এবং মূলত একটি বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে সংঘটিত হয়েছিল। ৬২ খ্রিস্টাব্দে দুটি সেনাদল নীল নদের উৎস অনুসন্ধান করেছিলেন; সম্রাট নেরো কর্তৃক চালানো একমাত্র এই অভিযানটিকেই ইথিওপিয়া বা নুবিয়া বিজয়ের প্রস্তুতি বলে মনে হয়েছিল।

অনুসন্ধানের মূল কারণগুলির মধ্যে একটি ছিল স্বর্ণ লাভ করে উটের মাধ্যমে তা পরিবহন করা।

আফ্রিকার পশ্চিম এবং পূর্ব উপকূলের কাছাকাছি অভিযান রোমান জাহাজ দ্বারা সমর্থিত ছিল এবং নৌ বাণিজ্যগুলির সাথে গভীরভাবে সম্পর্কিত ছিল (মূলত ভারত মহাসাগরের দিকে)। রোমানরা উত্তর ইউরোপেও বিভিন্ন অভিযান চালিয়েছিল এবং এশিয়াতে চীন পর্যন্ত অভিযান করেছিল।

খ্রিষ্টপূর্ব ৩০ অব্দ-৬৪০ খ্রিস্টাব্দ

টলেমেক মিশর অধিগ্রহণের সময় রোমানরা ভারতের সাথে বাণিজ্য শুরু করে। সাম্রাজ্যটির এখন মশলা বাণিজ্যের সাথে সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে যা মিশর খ্রিস্টপূর্ব ১১৮ অব্দের প্রথম দিকে শুরু করেছিল।

১০০ খ্রিস্টাব্দ-১৬৬ খ্রিস্টাব্দ

এ সময়ে রোমান-চীনা সম্পর্ক শুরু হয়। টলেমি গোল্ডেন চেরোনাসি (অর্থাৎ মালয় উপদ্বীপ) এবং কাটিগারা বাণিজ্য বন্দরের কথা লিখেছেন, যা এখন উত্তর ভিয়েতনামের এসি ইও নামে পরিচিত। এটি চীনা হান সাম্রাজ্য এর একটি প্রদেশ জিয়াওঝোর অংশ।

পলিনেশিয়ান যুগ[সম্পাদনা]

পলিনেশিয়ানরা উপকূলবর্তী মানুষ ছিলেন, তারা নিউজিল্যান্ড আবিষ্কার করার সময় প্রায় ৫০০ বছর ধরে অভিযান চালানোর পর মধ্য ও দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরকে আবিষ্কার করেছিলেন। তাদের অভিযানের মূল আবিষ্কারটি ছিল আউটরিগার ক্যানো, যা মানুষ ও পণ্য পরিবহনের জন্য একটি দ্রুত এবং স্থিতিশীল মঞ্চে পরিণত হয়। ধারণা করা হয় যে, নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশ্যে করা ভ্রমণটি সুচিন্তিত ছিল।

আচরণগত বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

২০১৫ সালের একটি গবেষণা , যা মোবাইল ফোনের ডেটা এবং ইতালির ব্যক্তিগত যানবাহনের জিপিএস ট্র্যাকার এর উপর ভিত্তি করে তৈরি করাহয়েছিল, তা প্রমাণিত করে যে, ব্যক্তিরা স্বাভাবিকভাবে তাদের গতিশীলতার অভ্যাস অনুসারে দুটি সু-সংজ্ঞায়িত বিভাগে বিভক্ত হয়ে যায়, যার মধ্যে একটি হলো "অভিযাত্রী" এবং অপরটি হলো "প্রত্যাবর্তনকারী"।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

অভিযানের প্রকার

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]