অপরাধ ও শাস্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অপরাধ ও শাস্তি
ফিওদর দস্তয়েভস্কি - অপরাধ ও শাস্তি (বাংলা).jpg
বাংলা সংস্করণের প্রচ্ছদ
লেখকফিওদর দস্তয়েভস্কি
মূল শিরোনামПреступление и наказание
দেশরাশিয়া
ভাষারুশ
ধারাবাহিক১২
ধরনদর্শন সম্বন্ধীয়,
মনোবিজ্ঞান সম্বন্ধীয়,
অপরাধবিজ্ঞান সম্বন্ধীয়
প্রকাশকদ্য রাশিয়ান মেসেঞ্জার (১২ পর্ব)
প্রকাশনার তারিখ
১৯৬৬; পৃথক প্রকাশনা ১৮৬৭
ওসিএলসি২৬৩৯৯৬৯৭
891.73/3 20
এলসি শ্রেণীPG3326 .P7 1993

অপরাধ ও শাস্তি (রুশ: Преступлéние и наказáние, উচ্চারণ: প্রিস্তুপ্‌লেনিয়ে ই নাকাজানিয়ে, আ-ধ্ব-ব[prʲɪstʊˈplʲenʲɪje ɪ nəkɐˈzanʲɪje]) ফিওদর দস্তয়েভস্কি কর্তৃক রুশ ভাষায় রচিত ১৮৬৬ সালে প্রকাশিত উপন্যাস। এর ইংরেজি অনুবাদ ‘Crime and punishment’। উপন্যাসটি সাহিত্য পত্রিকা দ্য রাশিয়ান মেসেঞ্জার-এ ১৯৬৬ সালের ১২ পর্বে প্রকাশিত হয়।[১] ১৯৬৭ সালে তা একত্রে প্রকাশিত হয়। এটা দস্তয়েভস্কির সাইবেরিয়ায় ১০ বছর নির্বাসন শেষে ফিরে এসে লেখা তার দ্বিতীয় দীর্ঘ উপন্যাস।[২]

অপরাধ ও শাস্তি উপন্যাসে সেন্ট পিটার্সবার্গের একজন প্রাক্তন আইনের শিক্ষার্থী রোদিওন রাস্কল্‌নিকভের দারিদ্র্যতার কষাঘাতে মানসিক জরাগ্রস্ততা ও নৈতিক দোটানা ফুটে উঠেছে। যে আইন পড়ার খরচ জোগাতে বিভিন্নভাবে অর্থের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে লোভের বশীভূত হয়ে একজন মহিলা মহাজনকে খুন করার পরিকল্পনা করে। হত্যার আগে তার বিশ্বাস ছিল মহাজনের অর্থ দিয়ে সে তার দারিদ্র্য কাটিয়ে তুলবে এবং মহৎ কাজে মনোনিবেশ করতে পারবে।কিন্তু হত্যাকান্ডের পরে রাস্কল্‌নিকভ প্রচন্ড আত্মগ্লানি, বিভ্রম এবং মানসিক কষ্টে ভুগতে থাকে এবং তার কাজের জন্য নিজের প্রতি ঘৃণা অনুভব করে। এই নৃশংস কাজের উপর তার আত্মপক্ষ সমর্থন পুরোপুরি ভেঙে যায় যখন সে তার কাজের ভয়াবহতা ও বাস্তব ফলাফলের মুখোমুখি হয়।[৩]

পটভূমি[সম্পাদনা]

১৮৬৫ সালের গ্রীষ্মে দস্তয়েভস্কি 'পিয়েরে ফ্রন্সোয়্যাজ লাসেনেয়ার'এর হত্যা মামলা দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে 'ক্রাইম আ্যন্ড পানিশমেন্ট(অপরাধ ও শাস্তি)' উনপন্যাসটির জন্ম দেন।[৪]

চরিত্র[সম্পাদনা]

  • রদিও রোমানভিচ রাস্কল্‌নিকভ - উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র। ২৩ বছর বয়সী প্রাক্তন শিক্ষার্থী এবং বর্তমানে বঞ্চিত। দেখতে খুবই সুদর্শন, স্বাভাবিকের চেয়ে লম্বা, কালো চোখ ও গাঢ় বাদামি চুলের অধিকারী।
  • সোফিয়া সেমিওনভনা মার্মেলাদোভা - সোনিয়া ও সোনেচ্‌কা নামেও পরিচিত, সেমিওন জাখারভিচ মার্মেলাদোভের মেয়ে, যার সাথে উপন্যাসের শুরুতেই রাস্কল্‌নিকভের সাক্ষাৎ হয়।
  • আভদত্য রোমানভা রাস্কল্‌নিকভা - রাস্কল্‌নিকভের কর্তৃত্বপূর্ণ কিন্তু দরদী বোন, দুনইয়া বা দুনেচ্‌কা নামেও ডাকা হয়।
  • পুলখেরিয়া আলেক্সাদ্রভনা রাস্কল্‌নিকভা - রাস্কল্‌নিকভের দূরসম্পর্কের আত্মীয়, আশাবাদী এবং স্নেহবতী মা।
  • দিমিত্রি প্রকফিচ ভ্রাজুমিখিন - রাজুমিখিন নামেও পরিচিত, রাস্কল্‌নিকভের বিশ্বস্ত বন্ধু এবং প্রাক্তন আইনের শিক্ষার্থী।

বাংলা অনুবাদ[সম্পাদনা]


চলচ্চিত্র নির্মাণ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

সমালোচনা

অনলাইন টেক্সট

মানচিত্র

পর্যালোচনা