অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বি-কোষ ও টি-কোষের মাধ্যমে প্রথম পর্যায়ের অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়ার চিত্র

অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়া বলতে প্রতি-উদ্দীপকের উদ্দীপনার ফলশ্রুতিতে দেহের অনাক্রম্যতন্ত্র কর্তৃক সৃষ্ট প্রতিক্রিয়াকে বোঝায়। প্রতি-উদ্দীপক রোগসৃষ্টিকারী জীবাণু যেমন ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস হলে অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়াটি ঐগুলি থেকে দেহকে প্রতিরক্ষা করে তথা অনাক্রম্যতা দান করে। আবার অনেক সময় দেহ নিজেই ভুলবশত দেহের নিজস্ব উপাদান (স্বয়ং প্রতি-উদ্দীপক), বা বহিরাগত নির্দোষ উপাদান (অতিসংবেদনশীলতা) এবং সংযোজিত অঙ্গ প্রত্যাখানের ক্ষেত্রে স্বয়ং-অনাক্রম্যতা নামক অবস্থার সৃষ্টি করতে পারে।

অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়াতে মূল ভূমিকা পালনকারী কোষগুলি হল টি-কোষবি-কোষ (এক ধরনের লসিকাকোষ) এবং বৃহৎ ভক্ষককোষ বা ম্যাক্রোফাজ (এক ধরনের শ্বেত রক্তকণিকা)। এই কোষগুলি লিম্ফোকাইন বা লসিকাপদার্থ নিঃসরণ করে যা অন্যান্য কোষের কর্মকাণ্ডকে প্রভাবিত করে। বি-কোষগুলি পরিপক্কতা লাভ করে অ্যান্টিবডি বা প্রতিবস্তু (ইমিউনোগ্লোবিন) উৎপাদন করে যা প্রতি-উদ্দীপকগুলির উপর ক্রিয়াশীল হয়। একই সময়ে বৃহৎ ভক্ষককোষগুলি প্রতি-উদ্দীপকগুলিকে বিশ্লেষণ করে অনাক্রম্যতাকারক একক তৈরি করে যেগুলি বি-লসিকাকোষগুলিকে বহুসংখ্যক প্রতিবস্তু বা অ্যান্টিবডি-ক্ষরণকারী প্লাজমা কোষে রূপান্তরিত হতে উদ্দীপ্ত করে। এছাড়া এগুলি টি-কোষগুলিকে লসিকাপদার্থ নিঃসরণে উদ্দীপ্ত করে।[১]

এছাড়া সম্পূরক ব্যবস্থা (কমপ্লিমেন্ট সিস্টেম) বলে রক্তরসস্থিত স্বাভাবিক কিছু প্রোটিনের দল আছে যেগুলি অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়াটির শক্তিবৃদ্ধি করে। প্রতি-উদ্দীপক-প্রতিবস্তু আন্তঃক্রিয়ার ফলাফলস্বরূপ এই সম্পূরক ব্যবস্থাটি সক্রিয় হয়।

যেকোন প্রতি-উদ্দীপকের সাথে প্রথমবারের মত সংস্পর্শে আসলে ব্যক্তির দেহ সংবেদনশীল হয়ে ওঠে এবং "প্রাথমিক পর্যায়ের অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়া"র সৃষ্টি হয়। একই ব্যক্তি আবার ঐ একই প্রতি-উদ্দীপকের সংস্পর্শে আসলে দেহে অনেক দ্রুত ও ব্যাপক প্রতিক্রিয়া ঘটে, যার নাম "দ্বিতীয় পর্যায়ের অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়া"। একে অনেক সময় শক্তিবর্ধক প্রতিক্রিয়া বা বুস্টার প্রতিক্রিয়া ("booster response" বুস্‌টার রিঅ্যাকশন) অথবা স্মৃতিমূলক প্রতিক্রিয়া ("anamnestic reaction" অ্যানামেস্টিক রিঅ্যাকশন) নামেও ডাকা হয়। রক্তে সঞ্চারমান রক্তরসীয় প্রতিবস্তু বা অ্যান্টিবডির মাত্রা দেখে দ্বিতীয় পর্যায়ের অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে আঁচ করা যায়।[২][৩] অনাক্রম্য প্রতিক্রিয়াটি রক্তরসীয় প্রতিবস্তু বা অ্যান্টিবডির প্রদানের মাধ্যমে সংবেদনশীল ব্যক্তির থেকে অসংবেদী ব্যক্তির দেহে স্থানান্তর করা সম্ভব। তবে এটি প্রদত্ত জীবাণু বা প্রতি-উদ্দীপকের জন্য অত্যন্ত সুনির্দিষ্ট একটি প্রতিক্রিয়া এবং সাধারণত বহিরাগত প্রোটিন পদার্থের বিরুদ্ধে এটি ব্যবহার করা হয়। [২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. King R. C., Stransfield W. D. (১৯৯৮)। Dictionary of genetics। New York, Oxford: Oxford University Press। আইএসবিএন 0-19-50944-1-7 
  2. Hadžiselimović R., Pojskić N. (২০০৫)। Uvod u humanu imunogenetiku / Introduction to Human Immunogenetics। Sarajevo: INGEB। আইএসবিএন 9958-9344-3-4 
  3. Lawrence E., Ed., সম্পাদক (১৯৯৯)। Henderson's Dictionary of Biological Terms। London: Longman। আইএসবিএন 0-582-22708-9 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]