অতিরিক্ত খেলোয়াড় (ক্রিকেট)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

অতিরিক্ত খেলোয়াড় ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণকারী স্থলাভিষিক্ত খেলোয়াড়। তিনি আম্পায়ার কর্তৃক অনুমোদনক্রমে মাঠে নামেন। কোন কারণে মূল খেলোয়াড় আঘাতপ্রাপ্ত অথবা পীড়িত হবার সমূহ সম্ভাবনার প্রেক্ষিতে খেলা শুরুর পূর্বেই নির্দিষ্ট খেলোয়াড়দেরকে এ দায়িত্ব পালনে উল্লেখ করা হয়। ক্রিকেটের আইনের ২নং ধারায় অতিরিক্ত খেলোয়াড় সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

দায়িত্বাবলী[সম্পাদনা]

একজন অতিরিক্ত খেলোয়াড় মাঠে অবস্থানরত অবস্থায় আঘাতপ্রাপ্ত অথবা অসুস্থ খেলোয়াড়ের পরিবর্তে মাঠে নামেন। কিন্তু তিনি অধিনায়কদের পারস্পরিক সম্মতি ছাড়া বোলিং করা, ব্যাটিং করা, উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করাসহ অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না। একটি জনপ্রিয় উদাহরণ হচ্ছে - ১৯৮৬ সালে লর্ডসে অনুষ্ঠিত ইংল্যান্ডনিউজিল্যান্ডের মধ্যকার টেস্ট খেলায় ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল মূল উইকেট-রক্ষকের পরিবর্তে চারজন খেলোয়াড়কে উইকেট-রক্ষণের দায়িত্ব দিয়েছিল।[১] খেলার অংশ হিসেবে একজন অতিরিক্ত খেলোয়াড় ব্যাট, বল ও ফিল্ডিং করার অধিকারী।

দৃষ্টান্ত[সম্পাদনা]

একজন অতিরিক্ত খেলোয়াড় অন্য খেলোয়াড়ের সাথে ক্যাচ নেবার ক্ষেত্রে অংশীদারত্ব করতে পারবেন। ১৮৮৪ সালে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার খেলায় অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক বিলি মারডক ইংল্যান্ডের পক্ষে অতিরিক্ত খেলোয়াড় হিসেবে অংশগ্রহণ করেন ও দলীয় সঙ্গী টাপ স্কটের ক্যাচ নেন যা টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম ঘটনা।[২][৩]

কেবলমাত্র দুইজন ব্যাটসম্যান টেস্ট ক্রিকেট থেকে রিটায়ার্ড আউট হয়েছেন। উভয় ঘটনাই একই টেস্টে ঘটেছে ২০০১ সালে। কলম্বোতে অনুষ্ঠিত ২য় টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান মারভান আতাপাত্তুমাহেলা জয়াবর্ধনে এ উদাহরণের সূচনা করেন।[৪]

কনসেশন বিকল্প[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Scorecard Test No. 1049"Cricinfo.com 
  2. "Scorecard Test No. 15"। Cricinfo.com। 
  3. Frindall, Bill (২০০৯)। Ask BeardersBBC Books। পৃষ্ঠা 46আইএসবিএন 978-1-84607-880-4। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুন ২০১১ 
  4. Cricinfo scorecard 2nd Test Sri Lanka vs Bangaladesh at Colombo 6-10 September 2001