অচিন্ত্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অচিন্ত্য,তুংগাল
সাঙ্ঘ্যাং ওয়িধি ওয়াসা
Acintya Bali.jpg
একটি খালি সিংহাসনের পিছনে, জিমবারান, বালিতে দ্যুতিমান সূর্য দেবতা হিসাবে অচিন্ত্যের চিত্র
অন্তর্ভুক্তিজগদীশ্বর
প্রতীকখালি সিংহাসন

অচিন্ত্য / অতিন্ত্য( Atintya) ( সংস্কৃত : "ধারণাতীত", "অকল্পনীয়") [১][২] বা তুংগাল (Tunggal) ( বালিনীয় : "ঐক্য", "ডিভাইন একত্ব") [১][৩][৪] জগদীশ্বর হলেনইন্দোনেশিয়ার হিন্দুধর্মের ঈশ্বর (আনুষ্ঠানিকভাবে আগাম হিন্দু ধর্ম নামে পরিচিত), বিশেষত বালি দ্বীপে। তিনি ভারতীয় হিন্দুধর্মের ব্রহ্মার সমতুল্য এবং ঐতিহ্যবাহী ওয়ায়াং ( ছায়া পুতুল ) নাটকে সর্বশ্রেষ্ঠ ঈশ্বর। [৪] তিনি সাং হ্যাং ওয়িধি ওয়াসা (Sang Hyang Widhi Wasa) ,সাঙ্ঘ্যাং ওয়িধি ওয়াসা (Sanghyang Widi Wasa) ("ডিভাইন অর্ডার") নামেও পরিচিত। [১] সমস্ত দেবতা, দেবী এবং অস্তিত্ব বালিয় হিন্দুধর্মের মতে অচিন্ত্যের প্রকাশ হিসাবে বিশ্বাস করা হয়। [১]

ভূমিকা[সম্পাদনা]

অচিন্ত্যের খালি সিংহাসন

বালিতে তিনি অদ্বৈতবাদের অনুরুপ, যা অনুযায়ী সৃষ্টিকর্তা একজন এবং অন্যান্য দেবতারা শুধুমাত্র তার প্রকাশ[৫][৬] অচিন্ত্য শূন্যতা এবং মহাবিশ্বের উৎপত্তি হিসাবে বিবেচিত। তার থেকে উৎপন্ন অন্যান্য সমস্ত দেবতা। [৭]

প্রায়শই সূর্য দেবতার সাথে তার তুলনা হয় [৫] এবং মানুষের রূপে চিত্রিত হন ।তাঁর চারপাশে থাকে অগ্নিশিখা । [৫] তার নগ্নতা প্রকাশ করে যে "তার চেতনা আর তার অনুভূতি দ্বারা অনুভূত হয় না"। [৩]

প্রার্থনা এবং অর্চনা সরাসরি অচিন্ত্যকে নয়, বরং দেবতার অন্যান্য প্রকাশের জন্য করা হয়। [৫] তিনি প্রায়শই প্রতিনিধিত্ব করেন ন। সে ক্ষেত্রে বালিয় মন্দিরের ভিতরে কেবল খালি সিংহাসনের পিছনে একটি স্তম্ভের উপরে চিত্রিত হন ( পদ্মসানা , "লোটাস সিংহাসন")। [৮]

সৃষ্টিকর্তার পূজাবেদী হিসেবে পদ্মাসনের প্রবর্তন, একটি ১৬ শতকের হিন্দু সংস্কার আন্দোলনের ফল। যার নেতৃত্বে ছিলেন গেল্গেল রাজা বাতু রেংগঙ্গের(এছাড়াও ওয়াতুরেংগং) পুরোহিত দাঙ্গ হায়ং নিরর্থ (Dang Hyang Nirartha) , যখন ইসলাম জাভার মাধ্যমে পশ্চিম থেকে ছড়িয়ে পড়ছিল। [৯] দাঙ্গ হায়ং নিরর্থ বালিতে অনেক মন্দির নির্মাণ করেছিলেন এবং তিনি যে মন্দিরগুলি পরিদর্শন করেছিলেন সেগুলিতে পদ্মাসন মন্দির যোগ করেছিলেন। [১০]

রাজনৈতিক দিক[সম্পাদনা]

অচিন্ত্যের মূর্তি, বালি যাদুঘর

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষের দিকে এবং ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতা যুদ্ধের পর থেকে ইন্দোনেশিয়া প্রজাতন্ত্র পঞ্চাশিলার রাজনৈতিক দর্শন (আক্ষরিক অর্থে "পাঁচটি নীতি") গ্রহণ করে, যা ধর্মের স্বাধীনতা দেয়। এ অনুযায়ী কোন ধর্মকে অবশ্যম্ভাবীরূপে একক, সর্বশক্তিমান দেবতার বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে একেশ্বরবাদী হওয়া প্রয়োজন। এই ব্যবস্থার অধীনে, ছয় ধর্মকে স্বীকৃত করা হয়: ইসলাম , বৌদ্ধ , ক্যাথলিক , প্রোটেস্ট্যান্টিজম , হিন্দুধর্ম এবং পরে কনফুসিয়ানবাদ[১১] এই বিধান মেনে চলার জন্য, বালিয় হিন্দুরা একেশ্বরবাদী বিশ্বাসের উপাদানকে শক্তিশালী করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। এক্ষেত্রে অচিন্ত্য আরো জোরপূর্বক ভূমিকা পালন করে। [১২] তাকে বোঝানোর জন্য, তারা সাং হায়াং উইদি ভাসা ("ঈশ্বর সর্বশক্তিমান" হিসাবে অভিহিত) শব্দটি বেছে নিয়েছিল। যদিও খ্রিস্টান ঈশ্বরের বর্ণনা করার জন্য প্রোটেস্ট্যান্ট মিশনারিরা ১৯৩০ সালে শব্দটি তৈরি করেছিল। তবু হিন্দু সৃষ্টিকর্তার বর্ণনা করার জন্য এটি উপযুক্তভাবে অভিযোজিত ছিল বলে মনে করা হয়। । [১১] এইভাবে এই নামটি এখন আধুনিক বালিয়দের দ্বারা আরও বেশি ব্যবহৃত হয়। [৫]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Margaret J. Wiener (১৯৯৫)। Visible and Invisible Realms: Power, Magic, and Colonial Conquest in Bali। University of Chicago Press। পৃষ্ঠা 51–55। আইএসবিএন 978-0-226-88580-3 
  2. Helen M. Creese (২০১৬)। Bali in the Early Nineteenth Century: The Ethnographic Accounts of Pierre Dubois। BRILL Academic। পৃষ্ঠা 226–227। আইএসবিএন 978-90-04-31583-9 
  3. Hobart, Angela (২০০৩)। Healing Performances of Bali: Between Darkness and Light। Berghahn Books। পৃষ্ঠা 151। আইএসবিএন 9781571814814 
  4. Hobart, Angela (১৯৮৭)। Dancing Shadows of Bali: Theatre and Myth। KPI। পৃষ্ঠা 48। আইএসবিএন 9780710301086 
  5. Toh, Irene; Morillot, Juliette (২০১০)। Bali: A Traveller's Companion। Editions Didier Millet। পৃষ্ঠা 45–46। আইএসবিএন 9789814260268 
  6. Reader, Lesley; Ridout, Lucy (২০০২)। The Rough Guide to Bali and Lombok। Rough Guides। পৃষ্ঠা 97। আইএসবিএন 9781858289021 
  7. Wiener, Margaret J. (১৯৯৫)। Visible and Invisible Realms: Power, Magic, and Colonial Conquest in Bali। University of Chicago Press। পৃষ্ঠা 51। আইএসবিএন 9780226885827 
  8. Bali & Lombok (15 সংস্করণ)। ১ মে ২০১৫। পৃষ্ঠা 26। আইএসবিএন 978-1743213896 
  9. Bali & Lombok (15 সংস্করণ)। ১ মে ২০১৫। পৃষ্ঠা 46–47। আইএসবিএন 978-1743213896 
  10. Eiseman Jr, Fred B. (১৯৯০)। Bali, sekala and niskala। Periplus Editions। পৃষ্ঠা 266। আইএসবিএন 0-945971-03-6 
  11. Eiseman Jr, Fred B. (১৯৯০)। Bali, sekala and niskala। Periplus Editions। পৃষ্ঠা 38–39। আইএসবিএন 0-945971-03-6 
  12. McDaniel, June (2013), A Modern Hindu Monotheism: Indonesian Hindus as ‘People of the Book’. The Journal of Hindu Studies, Oxford University Press, ডিওআই:10.1093/jhs/hit030