হেনরিক মুলার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হেনরিক মুলার

হেনরিক মুলার
ডাকনাম "গেস্টাপো মুলার"
জন্ম ২৮শে এপ্রিল ১৯০০
মিউনিখ
মৃত্যু মে ১৯৪৫ (অনুমান)
বার্লিন (অনুমান)
আনুগত্য  নাৎসি জার্মানি
সার্ভিস/শাখা মিউনিখ পুলিশ (১৯১৯-১৯৩৩)
গেস্টাপো ১৯৩৩-১৯৪৫
কার্যকাল ১৯৩৩-১৯৪৫
পদমর্যাদা SS-Gruppenführer Collar Rank.svg SS-Gruppenführer und Generalleutnant der Polizei
নেতৃত্বসমূহ গেস্টাপো প্রধান (১৯৩৯-১৯৪৫)
যুদ্ধ/সংগ্রাম প্রথম বিশ্বযুদ্ধ
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ
পুরস্কার Knights Cross of the War Merit Cross with Swords
War Merit Cross 1st Class with Swords
War Merit Cross 2nd Class with Swords
Iron Cross 1st Class with 1939 Clasp
Iron Cross 2nd Class with 1939 Clasp
Bavarian Military Merit Cross 2nd Class with Swords
Golden Party Badge Планка Золотой партийный знак НСДАП.svg
Sudetenland Medal
Anschluss Medal
Honour Cross for Combatants

হেনরিক মুলার (জন্ম: ২৮ এপ্রিল ১৯০০; মৃত্যু অজানা, কিন্তু প্রামাণিক তথ্য এটিকে মে ১৯৪৫ নির্দেশ করে[১][২]) ছিলেন ভাইমার প্রজাতন্ত্রনাৎসি জার্মানি উভয় দেশের অধীন একজন জার্মান পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি নাৎসি জার্মানির রাজনৈতিক সিক্রেট স্টেট পুলিশ গেস্টাপোর প্রধান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন এবং হলোকস্ট পরিকল্পনা ও হত্যাকান্ডে জড়িত ছিলেন। এসএস বাহিনীতে অন্য একজন হেনরিক মুলার থাকার কারণে তিনি গেস্টাপো মুলার হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তাকে সর্বশেষ ১লা মে ১৯৪৫ সালে বার্লিনের ফিউরে বাংকারে দেখা গিয়েছিল এবং নাৎসি শাসনামলের সবচেয়ে সিনিয়র ব্যক্তিত্ব যিনি গ্রেফতার হননি বা মৃত্যু নিশ্চিত করা যায়নি।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

মুলার কর্মজীবী পিতামাতার ঘরে বায়ার্ন-এর মিউনিখে জন্মগ্রহন করেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের শেষ বর্ষে আর্টিলারি স্পটিং উইনিটের পাইলট হিসেবে কাজ করার পর তিনি ১৯১৯ সালে বায়ার্ন পুলিশে যোগদান করেন। আর্টিলারি স্পটিং উইনিটে থাকার সময় কয়েকবার তাকে সম্মানে অলঙ্কৃত করা হয় (আয়রন ক্রস ফার্স্ট ও সেকেন্ড ক্লাস, বায়ার্ন মিলিটারি ক্রস সেকেন্ড ক্লাস উইথ সোর্ড ও বায়ার্ন পুলিশ ব্যাজ)। তখনকার জার্মানির এন্টি-কমিউনিস্ট প্যারামিলিটারি দল ফ্রি ক্রপস-এর সদস্য না হয়েও তিনি যুদ্ধ পরবর্তী বছরগুলোতে কমিউনিস্ট উত্থান দমনে জড়িত ছিলেন। বাভারিয়ান সোভিয়েত প্রজাতন্ত্রের সময় মিউনিখে বিদ্রোহী রেড আর্মি কর্তৃক বন্দীদের উপর গুলিবর্ষণ প্রত্যক্ষ করার পর তার কমিউনিজমের প্রতি সাড়াজীবনের জন্য ঘৃণার জন্ম হয়।[৩] ভাইমার প্রজাতন্ত্রের বছরগুলোতে তিনি তিনি ছিলেন মিউনিখ রাজনৈতিক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের প্রধান এবং এসময় তার সাথে অনেক নাৎসি সদস্যের পরিচয় ঘটে; তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন হেনরিক হিমলার ও রেইনহার্ড হেডরিক। যদিও ভাইমার আমলে তাকে সাধারনত বিভিন্ন সময় বাভারিয়ান পিপল’স পার্টি সাপোর্ট করতে দেখা গিয়েছে।

পদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Weale 2010, পৃঃ  412
  2. Joachimsthaler 1999, পৃঃ  285
  3. Evans, Richard (2005). The Third Reich in Power, Allen Lane, p. 97

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]