হিস্টেরিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

হিস্টেরিয়া বলতে সাধারণ অর্থে বোঝায় অনিয়ন্ত্রীত আবেগের আধিক্য । হিস্টিরিয়াগ্রস্ত ব্যক্তি প্রায়ই অতিরিক্ত ভয় পেয়ে আত্মনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে, যার কারণ হতে পারে সেই ব্যক্তির অতীত জীবনে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনা যেখানে বড় ধরণের কোন দ্বন্দ্ব/সংঘাত হয়েছিল। এই ভয় শরীরের কোন একটি অংশে কেন্দ্রীভূত হতে পারে অথবা যেমনটা প্রায়ই দেখা যায়, শরীরের সেই নির্দিষ্ট অংশে কোন কল্পিত সমস্যা হয়ে দেখা দিতে পারে। অসুখ হওয়া এর একটা সাধারণ অভিযোগ। সাধারণভাবে, আধুনিক চিকিৎসাবিদগণ হিস্টেরিয়াকে রোগনির্ণয়ের সাধারণ শ্রেণী হিসেবে ব্যবহার করা ছেড়ে দিয়ে এর পরিবর্তে তারা ব্যবহার করছেন সুনির্দিষ্টভাবে সংজ্ঞায়িত শ্রেণীসমূহ যেমন: সোমাটাইজেশন ডিসর্ডার। ১৯৮০ সালে আমেরিকান সাইকিয়াট্রিক এসোসিয়েশন আনুষ্ঠানিকভাবে রোগনির্ণয়ে হিস্টেরিক্যাল নিউরোসিস কনভার্শন টাইপ কে পরিবর্তণ করে কনভার্শন ডিসর্ডার করেছে।

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Chodoff, P. et al. (1982). Hysteria. New York, NY: John Wiley & Sons.
  • Halligan, P.W., Bass, C., & Marshall, J.C. (Eds.) (2001) Contemporary Approach to the Study of Hysteria: Clinical and Theoretical Perspectives. Oxford University Press, UK.
  • Sander Gilman, Roy Porter, George Rousseau, Elaine Showalter, and Helen King (1993). Hysteria Beyond Freud (Berkeley, Los Angeles, and Oxford: University of California Press).

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]