সিসিফাস-পুরাণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সিসিফাস এঁকেছেন টিটিয়ান, ১৫৪৯

মিথ অফ সিসিফাস, আলবেয়ার কামু রচিত একটি দার্শনিক প্রবন্ধ। এটি প্রায় ১২০ পৃষ্ঠার এবং প্রথম প্রকাশিত হয়েছিলো ১৯৪২ সালে, ফ্রেঞ্চ ভাষায়, নাম ছিলো Le Mythe de Sisyph; প্রথম এর ইংরেজি অনুবাদ করেন জাস্টিন ও’ব্রায়েন, ১৯৫৫ সালে।

রচনাটিতে কামু মূলত তাঁর এবসার্ড বিষয়ক দর্শনকে তুলে ধরেন: মানুষের নিরর্থক অর্থ খুঁজে বেড়ানোর প্রচেষ্টা, ঈশ্বরহীন দুর্বোধ্য পৃথিবীর একতা এবং স্বচ্ছতা এবং চিরকালীন সত্য কিংবা মূল্যবোধ- সমূহ। সত্যিকারের এবসার্ডের উপলব্ধির জন্য কি আত্মহত্যা জরুরি? কামু বলেছেনঃ “না। দরকার শুধু মাত্র বিদ্রোহের।” এরপর তিনি এবসার্ড জীবনের কিছু রূপরেখা দেখিয়েছেন। শেষ অধ্যায়টিতে তিনি মানুষের জীবনের অদ্ভুতত্ব (এবসার্ডিটি) -এর তুলনা করেছেন সিসিফাসের অবস্থার সাথে। গ্রিক পুরাণে দেবতাদের দ্বারা অভিশপ্ত চরিত্র সিসিফাস, যাকে একটা পাথরকে গড়িয়ে গড়িয়ে পাহাড়ের চূড়ায় নিয়ে যেতে হয় যেখানে থেকে ওটা নিজের ভারে আপনা থেকেই আবার গড়িয়ে পড়ে যায়। সিসিফাসকে এই কাজ করে যেতে হয় অনন্তকাল ধরে।রচনাটির শেষাংশ ছিলো এমন, “ এই পরিশ্রম নিজেই... যথেষ্ট কারো হৃদয়কে ভরে তুলতে। যে কেউই সিসিফাসকে সুখী হিসেবে কল্পনা করবে।”

কামুর এই লেখার সাথে তাঁর আরো কিছু লেখার সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, উপন্যাস “দ্য আউটসাইডার” (১৯৪২), নাটক “ক্যালিগুলা” (১৯৪৫), এবং বিশেষ করে তাঁর প্রবন্ধ “দ্য রেবেল” (১৯৫১)।

দোহাই[সম্পাদনা]

http://en.wikipedia.org/wiki/The_Myth_of_Sisyphus