শৈবধর্ম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শৈবধর্মের সর্বোচ্চ দেবতা শিব।

শৈবধর্ম বা শৈবপন্থ (সংস্কৃত: शैव पंथ) হিন্দুধর্মের চারটি প্রধান সম্প্রদায়ের অন্যতম (অন্য সম্প্রদায়গুলি হল বৈষ্ণবধর্ম, শাক্তধর্মস্মার্তধর্ম)। এই ধর্মের অনুগামীদের "শৈব" নামে অভিহিত করা হয়। শৈবধর্মে শিবকে সর্বোচ্চ দেবতা বলে মনে করা হয়; এই ধর্মের অনুগামীরা তাঁকেই সৃষ্টা, পালনকর্তা, ধ্বংসকর্তা, সকল বস্তুর প্রকাশ ও গোপনকর্তা বলে মনে করেন। ভারত, নেপালশ্রীলঙ্কায় শৈবধর্ম সুপ্রচলিত। দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুরইন্দোনেশিয়াতেও শৈবধর্মের প্রসার লক্ষিত হয়।

শৈবধর্মের প্রাচীন ইতিহাস নিরুপণের কাজটি দুঃসাধ্য।[১] শ্বেতাশ্বেতর উপনিষদ (৪০০-২০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ) [২] শৈবধর্মের প্রথম সুসংহত দর্শনগ্রন্থ।[৩] গেভিন ফ্লাডের মতে:

... a theology which elevates Rudra to the status of supreme being, the Lord (Sanskrit: Īśa) who is transcendent yet also has cosmological functions, as does Śiva in later traditions.[৪]

গুপ্তযুগে (৩২০ – ৫০০ খ্রিষ্টাব্দ) পৌরাণিক হিন্দুধর্ম বিকাশলাভ করে। এই সময়ই শৈবধর্মের ব্যাপক প্রসার ঘটেছিল। ক্রমে পৌরাণিক উপাখ্যানের কথক ও গায়কদের মাধ্যমে এই ধর্ম সমগ্র উপমহাদেশে ছড়িয়ে পড়ে।[৫]

প্রধান শাখাসমূহ[সম্পাদনা]

শৈব শাখাসমূহ

স্থান, প্রথা ও দর্শন ভেদে শৈবদের ভিন্ন ভিন্ন শাখা রয়েছে।[৬] শৈবধর্মের সুবিশাল ধর্মীয় সাহিত্যে একাধিক দার্শনিক মতের উল্লেখ পাওয়া যায়। এর মধ্যে "অভেদ" (অদ্বৈত), "ভেদ" (দ্বৈত) ও "ভেদাভেদ" (অদ্বৈত ও দ্বৈতের মিশ্রণ) শাখা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।[৭]

শৈব ধর্মগ্রন্থ ও সাহিত্য[সম্পাদনা]

শ্বেতাশ্বেতর উপনিষদ্‌ (রচনাকাল: খ্রিস্টপূর্ব ৪০০ - ২০০ অব্দ)[৮] শৈব দর্শনের প্রাচীনতম গ্রন্থ। এই গ্রন্থেই প্রথম শৈব দর্শন সুসংহতভাবে ব্যাখ্যা করা হয়।[৯] শিব পুরাণ, লিঙ্গ পুরাণ, স্কন্দ পুরাণ, অগ্নি পুরাণবায়ু পুরাণ হল শৈবদের প্রধান পুরাণ গ্রন্থ। এগুলি সবকটিই মহাপুরাণ[১০] শৈবদের প্রধান উপপুরাণগুলি হল শিব পুরাণ, সৌর পুরাণ, শিবধর্ম পুরাণ, শিবধর্মোত্তর পুরাণ, শিব রহস্য পুরাণ, একাম্র পুরাণ, পরাশর পুরাণ, বশিষ্ঠলৈঙ্গ পুরাণবিখ্যাদ পুরাণ[১১]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Tattwananda 1984, পৃ. 45.
  2. For dating to 400-200 BCE see: Flood (1996), p. 86.
  3. For Śvetāśvatara Upanishad as a systematic philosophy of Shaivism see: Chakravarti 1994, পৃ. 9.
  4. Flood (1996), p. 153.
  5. For Gupta Dynasty (c. 320 - 500 CE) and Puranic religion as important to the spread across the subcontinent, see: Flood (1996), p. 154.
  6. For an overview of the Shaiva Traditions, see Flood, Gavin, "The Śaiva Traditions", in: Flood (2003), pp. 200-228. For an overview that concentrates on the Tantric forms of Śaivism, see Alexis Sanderson's magisterial survey article Śaivism and the Tantric Traditions, pp.660--704 in The World's Religions, edited by Stephen Sutherland, Leslie Houlden, Peter Clarke and Friedhelm Hardy, London: Routledge, 1988.
  7. Tattwananda 1984, পৃ. 54.
  8. For dating to 400-200 BCE see: Flood (1996), p. 86.
  9. For Śvetāśvatara Upanishad as a systematic philosophy of Shaivism see: Chakravarti 1994, পৃ. 9.
  10. Nair, Shantha N. (2008)। Echoes of Ancient Indian Wisdom: The Universal Hindu Vision and Its Edifice। Delhi: Hindology Books। পৃ: 266। আইএসবিএন 978-81-223-1020-7 
  11. Rocher, Ludo (1986)। "The Purāṇas"। in Jan Gonda (ed.)। A History of Indian Literature। Vol.II, Epics and Sanskrit religious literature, Fasc.3। Wiesbaden: Otto Harrassowitz Verlag। পৃ: 228। আইএসবিএন 3-447-02522-0 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Bhandarkar, Ramakrishna Gopal (1913)। Vaisnavism, Śaivism, and Minor Religious Systems। New Delhi: Asian Educational Services। আইএসবিএন 81-206-0122-X  Third AES reprint edition, 1995.
  • Bhattacharyya (Editor), Haridas (1956)। The Cultural Heritage of India। Calcutta: The Ramakrishna Mission Institute of Culture।  Four volumes.
  • Chakravarti, Mahadev (1994), The Concept of Rudra-Śiva Through The Ages (Second Revised সংস্করণ), Delhi: Motilal Banarsidass, আইএসবিএন 81-208-0053-2 
  • Flood, Gavin (1996)। An Introduction to Hinduism। Cambridge: Cambridge University Press। আইএসবিএন 0-521-43878-0 
  • Flood, Gavin (Editor) (2003)। The Blackwell Companion to Hinduism। Malden, MA: Blackwell Publishing Ltd.। আইএসবিএন 1-4051-3251-5 
  • Keay, John (2000)। India: A History। New York: Grove Press। আইএসবিএন 0-8021-3797-0 
  • Tattwananda, Swami (1984), Vaisnava Sects, Saiva Sects, Mother Worship (First Revised সংস্করণ), Calcutta: Firma KLM Private Ltd. 


বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]