শিরডি সাই বাবা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শিরডি সাই বাবা
Baba stone.jpg
জন্ম ১৮৩৫
মৃত্যু ১৫ অক্টোবর, ১৯১৮ (বয়স ৮৩)
যুগ বিংশ শতাব্দী
অঞ্চল ভারত
ধারা হিন্দুধর্ম (অদ্বৈত বেদান্ত) ও ইসলাম (সুফিবাদ)

শিরডি সাই বাবা (১৮৩৫ - ১৫ অক্টোবর, ১৯১৮) (মারাঠি: शिर्डीचे श्री साईबाबा,উর্দু: شردی سائیں بابا) ছিলেন একজন ভারতীয় ধর্মগুরু, যোগী ও ফকির। হিন্দুমুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের ভক্তরাই তাঁকে সন্ত আখ্যা দিয়েছিলেন।

হিন্দু ভক্তেরা তাঁকে দত্তাত্রেয়ের অবতার মনে করতেন। অনেক ভক্তের মতে, তিনি ছিলেন সদ্গুরু, সুফি পির বা কুতুব। বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে তাঁর পরিচিতি ছড়িয়ে পড়লেও, ভারতেই তিনি সর্বাধিক শ্রদ্ধা অর্জন করেছিলেন।

সাই বাবার প্রকৃত নাম জানা যায় না। শিরডিতে আগমনের পর তাঁকে "সাই" নাম দেওয়া হয়। তাঁর জন্ম বা জন্মস্থান সংক্রান্ত কোনো তথ্যও জানা যায় না। সাই বাবা তাঁর পূর্বাশ্রমের কথা জানিয়ে যাননি। সাই শব্দটি সংস্কৃত ভাষা থেকে উৎসারিত। এই শব্দের অর্থ "সাক্ষাৎ ঈশ্বর" বা "দিব্য"। ভারতীয় ভাষাগুলিতে সাম্মানিক "বাবা" কথাটির অর্থ "পিতা", "পিতামহ", "বৃদ্ধ ব্যক্তি" বা "মহাশয়"। অর্থাৎ, সাই বাবা নামের অর্থ "দিব্য পিতা" বা "পিতৃরূপী সন্ত"।[১]

তাঁর পিতামাতা, জন্মের বৃত্তান্ত এবং ষোলো বছর বয়সের পূর্বের কথা জানা যায় না। তাই তাঁর পূর্বাশ্রম সম্পর্কে নানা জল্পনা-কল্পনা করা হয়ে থাকে।

সাই বাবা পার্থিব বস্তুর প্রতি আগ্রহী ছিলেন না। তাঁর একমাত্র চিন্তা ছিল আত্ম-উপলব্ধি। তিনি সন্ত হিসেবে খুবই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন।[২] বিশ্বের নানা অংশের মানুষ তাঁর পূজা করেন। তিনি ভালবাসা, ক্ষমা, পরস্পরকে সহায়তা, দান, সন্তুষ্টি, আন্তরিক শান্তি ও ঈশ্বর ও গুরুর প্রতি ভক্তির শিক্ষা দিতেন। সাই বাবার শিক্ষার উপাদান সংগৃহীত হয়েছিল হিন্দুইসলাম উভয় ধর্ম থেকেই। যে মসজিদে তিনি বাস করতেন, তার একটি হিন্দু নামও দিয়েছিলেন। এই নামটি হল "দ্বারকাময়ী"।[৩] তিনি হিন্দু ও মুসলিম উভয় ধর্মেরই অনুষ্ঠানাদি পালন করতেন। উভয় সম্প্রদায়ের ভাষা ও ব্যক্তিত্বদের উদাহরণ দিয়ে উপদেশ দান করতেন। শিরডির একটি হিন্দু মন্দিরে তাঁকে সমাহিত করা হয়। তাঁর বিখ্যাত উক্তি "সবকা মালিক এক" ("একই ঈশ্বর সকলকে শাসন করেন")। কথাটি ইসলাম ও সুফিবাদের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। তিনি সর্বদা "আল্লাহ্‌ মালিক" ("ঈশ্বরই রাজা") কথাটি উচ্চারণ করতেন।

বহু হিন্দু ও সুফি ধর্মনেতা সাই বাবাকে শ্রদ্ধা করতেন। তাঁর কয়েকজন শিষ্য বিশিষ্ট ধর্মগুরুও হয়েছিলেন। এঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য উপাসনি মহারাজ, সন্ত বিদকর মহারাজ, সন্ত গঙ্গাগির, সন্ত জানকিদাস মহারাজ ও সতী গোদাবরী মাতাজি।[৪][৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Rigopoulos, Antonio (1993)। The Life and Teachings of Sai Baba of ShirdiSUNY। পৃ: 3। আইএসবিএন 0791412687 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; srinivas নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  3. Hoiberg, Dale; I. Ramchandani (2000)। Students' Britannica India। Popular Prakashan। সংগৃহীত 2007-12-01  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  4. Ruhela, S. P. (ed), Truth in Controversies about Sri Shirdi Sai Baba, Faridabad, Indian Publishers Distributors, 2000. ISBN 81-7341-121-2
  5. Dabholkar, Govind Raghunath, Shri Sai Satcharita: the life and teachings of Shirdi Sai Baba (1999)

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Arulneyam, Durai, The Gospel of Shri Shirdi Sai Baba. A Holy Spiritual Path, New Delhi, Sterling, 2008. ISBN 978-81-207-3997-0
  • Bharadwaja, Acharya, Sai Baba the Master, Andhra Pradesh, Sree Guru Paduka Publications, 1996 available online
  • Dabholkar, Govindrao Raghunath (alias Hemadpant), Shri Sai Satcharita Shri Sai Baba Sansthan Shirdi, (translated from Marathi into English by Nagesh V. Gunaji in 1944) available online or downloadable
  • Dabholkar, Govind Raghunath, Shri Sai satcharita : the life and teachings of Shirdi Sai Baba (1999)
  • Hoiberg, D. & Ramchandani, I., 'Sai Baba of Shirdi', in Students' Britannica India. Page available online
  • Kamath, M. V. & Kher, V. B., Sai Baba of Shirdi: A Unique Saint, India: Jaico Publishing House (1997). ISBN 81-7224-030-9
  • Osborne, Arthur, The Incredible Sai Baba. The Life and Miracles of a Modern-day Saint, Hyderabad, Orient Longman, 1957. ISBN 81-250-0084-4
  • Panday, Balkrishna, Sai Baba’s 261 Leelas. A Treasure House of Miracles, New Delhi, Sterling, 2004. ISBN 81-207-2727-4
  • Parthasarathy, Rangaswami, God Who Walked on Earth. The Life and Times of Shirdi Sai Baba, New Delhi, Sterling, 1996. ISBN 81-207-1809-7.
  • Rao, Sham P. P., Five Contemporary Gurus in the Shirdi (Sai Baba) Tradition, Bangalore: Christian Institute for the Study of Religion and Society, 1972. LC Control No.: 75905429.
  • Rigopoulos, Antonio, The Life and Teachings of Sai Baba of Shirdi State University of New York press, Albany, (1993) ISBN 0-7914-1268-7.
  • Ruhela, S. P. (ed), What Researchers Say about Sri Shirdi Sai Baba, Faridabad, Sai Age Publications, 1994. ISBN 81-85880-85-9
  • Ruhela, S. P. (ed), Sri Shirdi Sai Baba – The Universal Master, Sterling Publishers Pvt. Ltd, New Delhi, 1994. ISBN 81-288-1517-2
  • Ruhela, S. P. (ed), Truth in Controversies about Sri Shirdi Sai Baba, Faridabad, Indian Publishers Distributors, 2000. ISBN 81-7341-121-2
  • Shepherd, Kevin R. D., Gurus Rediscovered: Biographies of Sai Baba of Shirdi and Upasni Maharaj of Sakori, Cambridge: Anthropographia Publications, 1985. ISBN 0-9508680-2-7
  • Shepherd, Kevin R. D., Investigating the Sai Baba Movement: A Clarification of Misrepresented Saints and Opportunism, Dorchester: Citizen Initiative, 2005. ISBN 0-9525089-3-1
  • Venkataraman, Krishnaswamy, Shirdi Stories, Srishti Publishers, New Delhi, 2002. ISBN 81-87075-84-8
  • Warren, Marianne, Unraveling the Enigma. Shirdi Sai Baba in the Light of Sufism, Revised edition, New Delhi, Sterling Publishing, 2004. ISBN 81-207-2147-0
  • White, Charles S. J., The Sai Baba Movement: Approaches to the Study of India Saints in Journal of Asian Studies, Vol. 31, No. 4 (Aug., 1972), pp. 863–878
  • White Charles S. J., The Sai Baba Movement: Study of a Unique Contemporary Moral and Spiritual Movement, New Delhi, Arnold-Heinemann, 1985.
  • Williams, Alison, Experiencing Sai Baba’s Shirdi. A Guide, revised edition, Shirdi, Saipatham Publications. 2004 ISBN 81-88560-00-6
  • Walshe-Ryan, Lorraine, I am always with you, Reprint 2008, New Delhi, Sterling Publishing, 2006. ISBN 978-81-207-3192-9.

বহিসংযোগ[সম্পাদনা]