শর্টফিন মকো শার্ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শর্টফিন মকো শার্ক
সংরক্ষণ অবস্থা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
শ্রেণী: Chondrichthyes
বর্গ: Lamniformes
পরিবার: Lamnidae
গণ: Isurus
প্রজাতি: I. oxyrinchus
দ্বিপদী নাম
Isurus oxyrinchus
রফিনেস্ক, ১৮১০

শর্টফিন মকো শার্ক (ইংরেজি: Shortfin mako shark; বৈজ্ঞানিক নাম: Isurus oxyrinchus) Isurus গোত্র এবং Lamnidae পরিবারের অন্তর্গত হাঙ্গর প্রজাতির জলজ প্রাণী বিশেষ। ১৮১০ সালে প্রথম এই হাঙ্গরের সন্ধান পাওয়া যায়। এই হাঙ্গর সাগরের সবচেয়ে দ্রুতগামী হাঙ্গর হিসাবে পরিচিত। এরা ঘন্টায় ৩২ কি.মি. (২০ মাইল) পর্যন্ত গতি অর্জন করতে সক্ষম। এদেরকে সমুদ্রের নাতিশীতোষ্ণ জলে পাওয়া যায়। এদের প্রধান খাবার হলো বনি মাছ। শর্টফিন মকো হাঙ্গর মানুষের জন্য অনেক বিপজ্জনক।

নামকরণ[সম্পাদনা]

রফিনেস্ক ১৮১০ সালে এ হাঙ্গর প্রজাতিটি আবিষ্কার করেন। তিনি এটির নামকরণ করেন Isurus oxyrinchus (আইসুরাস অক্সিরিনচাস)। oxyrinchus শব্দটি এসেছে গ্রিক "oxy" এবং "rynchus" থেকে। এরপর সুরুস স্পাল্লাঞ্জানি রফিনেস্ক তাঁর নানা লেখায় ও সাহিত্যে এই নামটি ব্যবহার করা শুরু করেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] তাঁর দেখাদেখি আরো অনেক লেখকরা তাঁদের লেখায় এই নামটি ব্যবহার করেন।

এদেরকে আর যেসব নামে শোনা যায় তা হলো: আরবি: Al Karcher, Deeb‎; ইংরেজি: atlantic mako, blue pointer, ব্লউ শার্ক, bonito shark, mackerel porbeagle, Dog Sharks; স্প্যানিশ ভাষায়: atunero, cane de mare, carcharias, Caritas, dentuda, dentuse, diamante, dientuse, azul dientuso, janequín, Janequin; ওলন্দাজ ভাষায়: haringhaai, Haai, kortvinmakreelhaai; হিব্রু ভাষায়: amlez; পর্তুগীজ ভাষায়: anequim, curta barbatana anequin, cação atum; সামোয়ার ভাষায়: aso-Polotan; জার্মান ভাষায়: blauhai; জাপানি ভাষায়: aozame; ফরাসি ভাষায়: belu pointu, lamie; তুর্কি ভাষায়: canavaro Baligian, dikburun, dikburuncanavar Baligian; cawar (সোমালি), chlarm (খেমের), kortvin-mako (আফ্রিকানস), Sora ganumu (তেলুগু), gisandoo (ওলুফ)।

বিচরণ[সম্পাদনা]

চোয়াল

পৃথিবীর সব ক্রান্তীয় ও শীতপ্রধান সাগরে শর্টফিন মকো হাঙ্গর দেখতে পাওয়া যায়। উত্তর আমেরিকায় ক্যালিফোর্নিয়ার প্রশান্ত মহাসাগরে, ব্রাজিলের গ্র্যান্ড ব্যাংকসে, মেক্সিকোর উপসাগর এবং ক্যারিবিয়ান আটলান্টিক সাগরে এদের দেখতে পাওয়া যায়। সাধারণতঃ সমুদ্রতীর থেকে একটু দূরেই এদেরকে দেখা যায়। পূর্ব আটলান্টিক সাগরে এদের এলাকা হলো "নরওয়ে থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাভূমধ্যসাগরীয় এলাকায় এটির দেখা যায়। ভারত মহাসাগর, দক্ষিণ আফ্রিকাঅস্ট্রেলিয়ার ভিতরে, পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় এদেরকে দেখা যায় জাপান থেকে নিউজিল্যান্ড পর্যন্ত। মধ্য প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় এদের দেখা যায় আলেউসিয়ান দ্বীপপুঞ্জ থেকে সোসাইটি দ্বীপপুঞ্জের ভেতরে।

এরা শীতল, গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলের গভীর জলে থাকে। কিছু কিছু গ্রীষ্মমন্ডলীয় পৃষ্ঠ যেখানে তাপমাত্রা ২৭° সে (৮১° ফা) মতো হয়, সেখানে জলের তাপমাত্রা ৫৯° ফারেনহাইটের কম হয়, সেখানেই ৩০-৬০ মিটার গভীরতায় এদের দেখা যায়। মকো হাঙ্গরের শরীরের ক্ষমতাই এদের তাপমাত্রা বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে ৪১°-৫২° ফারেনহাইট তাপমাত্রার মধ্যে এরা নিজেদের রক্ষা করতে সক্ষম হয়। এর অর্থ হচ্ছে, মকো হাঙ্গরের রক্ত বেশ উষ্ণ হয়। গবেষণা করে দেখা গিয়েছে, এরা অনেক সময় উষ্ণ জল অনুসরণ করে। অনেক সময় এরা নির্দিষ্ট এলাকা অবরোধ করে দেয়। এদের সামাজিক আচরণের বিষয়ে মানুষ খুবই কম জানতে পেরেছে। নিরিবিলি পরিবেশে থাকতেই এরা পছন্দ করে বেশী।

জীববিদ্যা[সম্পাদনা]

Isurus-oxyrinchus.jpg

শর্টফিন মকো হাঙ্গরের শরীর অনেকটা মোচাকার ও নলাকার, ঠিক যেমনটা হয় মিসাইলের। এদের নাক বেশ সুচালো, চোখ কালো ও বড় হয়। এদের লেজের উল্টো দিকটা বাঁকা অর্ধ-চন্দ্রাকৃতির মতো হয়। শর্টফিন মকো শার্কের আরো একটি জাত ভাই আছে যার নাম "লংফিন মকো শার্ক"। এটি অনেকটা লংফিন মকো শার্কের বর্ণনার অনুরূপ, তবে এদের বক্ষীয় পাখনা ও চোখ অনেকটা বড়ো হয় শর্টফিন মকোর থেকে। এদের বক্ষীয় পাখনা ছোট হওয়ার কারণেই এদের নাম হয়েছে শর্টফিন মকো হাঙ্গর

এদের রং উজ্জ্বল ধাতব নীল এবং সাদা হয়। এদের লম্বাটে নাকের নিচে ও মুখের চারপাশ সাদা হয়। এদের আকারের সাথে রংয়ের একটা সম্পর্ক আছে। দেখা গেছে বড় আকারের হাঙ্গরের শরীরের রং বেশী গাঢ় হয়।

এদের দাঁত বড়, ত্রিভুজ আকৃতির ও সংকীর্ণ হয় এবং এদের দাঁতের প্রান্ত খুবই মসৃণ ও সুতীক্ষ্ণ হয়। এদের উপর ও নিচের দাঁত অনেকটা একই রকমের হয়। এদের দাঁত বাইরে বেরিয়ে আসতে দেখা যায় এবং এদের দাঁত ভিতরের দিকে বাঁকানো থাকে। এদের মধ্যম প্রান্তিক দাঁত দীর্ঘ হয় এবং এটি বাইরে থেকে দেখা যায়।

গড়পড়তা একটা প্রাপ্তবয়স্ক শর্টফিন মকো শার্ক হাঙ্গরের আকার ৩.২ মিটার (১০ ফুট) এবং ৬০-১২৫ কেজি (১৩৫-৩০০ পাউন্ড) হয়। অধিকাংশ হাঙ্গর প্রজাতির মতো স্ত্রীজাতীয় হাঙ্গর পুরুষ হাঙ্গরের থেকে বড় হয়। একটি স্ত্রীজাতীয় হাঙ্গর ৩৮০ মি (১২.৫ ফুট) পৌঁছাতে পারে এবং এদের ওজন ৫৭০ কেজি (১,৪২৫ পাউন্ড) পৌঁছাতে পারে। শর্টফিন মকো শার্ক সাধারণতঃ ২০ বছর বাঁচে।

শর্টফিন মকো হাঙ্গর খুবই দ্রুততম হাঙ্গর। এরা ৩২ কি.মি./ঘঃ (২০ মাইল) পর্যন্ত গতি অর্জনের সক্ষম। দীর্ঘ দূরত্ব ভ্রমণের জন্য এরা একটি রেকর্ডধারী হাঙ্গর। ২১৩০ কি.মি. (১৩২০ মাইল) এরা ৩৭ দিনের ভেতর যেতে পারে হিসাব করলে প্রতিদিন প্রায় ৫৮ কিলোমিটার (৩৬ মাইল) গড়ে। শর্টফিন মকো হাঙ্গর অন্যান্য দ্রুতগামী সামুদ্রিক মাছপ্রাণী খায় যেমন - সোর্ড ফিস, টুনা, অন্য জাতের হাঙ্গর ,স্কুইড ইত্যাদি। তাছাড়া কখনো কখনো এরা সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণীও শিকার করে।

প্রজনন[সম্পাদনা]

Close up of mako shark head 005.jpg

একটা পুরুষ শর্টফিন মকো হাঙ্গর ৮ বছর না হলে পূর্ণতাপ্রাপ্ত হয় না এবং একটা নারী শর্টফিন মকো হাঙ্গরের বয়স ১৮ না হলে পূর্ণতাপ্রাপ্ত নারী হাঙ্গর বলা চলে না। সঠিক বয়স হলেই এদের প্রজননচক্র শুরু হয়। এদের প্রজননচক্র চলে সাধারণতঃ তিন বছর। শরীরের ভেতর মা এবং বাচ্চার মধ্যে প্ল্যাসেন্টাল সংযোগ থাকে না। এরা জরায়ুর নরমাংসভক্ষণ (যেটি Oophag হিসাবে পরিচিত) করে। ১৫-১৮ মাস গর্ভকাল সময়সীমার পরে বাচ্চা হয়। বাচ্চা সাধারণতঃ ৬৮-৭০ সেন্টিমিটারের মধ্যে হয়। প্রজনন চক্র শেষ হলে নারী সাধারণত বন্ধ্যা হয়ে যায়। প্রজনন সম্পর্কে সুনির্দিষ্টভাবে সব কিছু আজও মানুষ জানতে পারেনি।

গুরুত্ব[সম্পাদনা]

এটির সৌন্দর্য, হামলাচারিতা এবং লাফানোর ক্ষমতার কারণে শর্টফিন মকো হাঙ্গরকে দুর্দান্ত গেমফিস হিসেবে ভাবা হয়। জীবিত শর্টফিন মকো হাঙ্গর এ কারণে বিনোদনমূলক জেলেদের কাছে শিকারে পরিণত হয়। এটি একটি অত্যন্ত বাণিজ্যিক প্রজাতি হিসেবে বেশ নামকরা। পরিমিত পরিমাণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়াসহ আরো অনেক বাজারের এটিকে খুঁজে পাওয়া যেতে পারে যেখানে কখনও কখনও এটি এক ধরনের সামুদ্রিক মাছ হিসাবে বিক্রি হয়। এটির মূলতঃ পাখনা এবং যকৃতের তেল বাজারে বিক্রী হয়। মকো হাঙ্গর ধরার উপাদান হলো সামুদ্রিক টুনা মাছ যেটিকে ফাঁদ হিসাবে ব্যবহার করা হয়।

বিপদ[সম্পাদনা]

মহাসাগরীয় শর্টফিন মকো হাঙ্গরের ক্ষমতা, হামলাচারিতা, দাঁত এবং দুর্দান্ত গতির কারণে এটি মানুষের বিপদের কারণ হয়ে ওঠে। এরা মানুষের উপর সাধারণ ও মারাত্মক - দুইভাবেই আক্রমণ করতে পারে। এরা বঁড়শি বা জালে ধরা পড়লে খুবই মারাত্মক হয়ে ওঠে। তখন নাগালের ভেতর পেলে হামলা করে বসে। তবে এরা বেশীরভাগ হামলা করে মানুষের কারণে।

সংরক্ষণ[সম্পাদনা]

সারা দুনিয়ায় এটির "পাখনা" এবং এটি একটি আনন্দদায়ক শিকার হওয়ার কারণে এটিকে অনেকেই ধরে থাকে। যদিও বিশ্বব্যাপী সরাসরি এটিকে শিকার করতে দেয়া হয় না। শর্টফিন মকো হাঙ্গর, মার্কিন জাতীয় সামুদ্রিক মৎস্য পরিষেবা (NMFS) এর পরিচালিত সামুদ্রিক হাঙ্গর তালিকায় এটির নাম আছে। NMFS-এর মতে বাণিজ্যিক দিক থেকেও শুধুমাত্র বিনোদনের কারণে এটি ভয়ানকভাবে শিকার করা হয়। হুমকির ভেতর থাকা প্রাণী হিসেবে এটি আইইউসিএন লাল তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "More oceanic sharks added to the IUCN Red List" (Press release)। IUCN। 2007-02-22। সংগৃহীত 2007-02-25। "The global threat status was heightened for shortfin mako, a favorite shark among commercial and recreational fishermen, from Near Threatened in 2000 to Vulnerable today." 

পাদটীকা[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]