লুইজ ফেলিপে স্কলারি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লুইজ ফেলিপে স্কলারি
Luiz Felipe Scolari.jpeg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম লুইজ ফেলিপে স্কলারি
জন্ম (১৯৪৮-১১-০৯) ৯ নভেম্বর ১৯৪৮ (বয়স ৬৫)
জন্ম স্থান প্যাসো ফান্ডো, ব্রাজিল
উচ্চতা ১.৮২ মিটার (৫–১২)[১]
মাঠে অবস্থান রক্ষণভাগ
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব পালমেরিয়াস (কোচ)
তারূণ্যের কর্মজীবন
১৯৬৬-১৯৭৩ ক্লাব এস্পোর্টিভো এইমোরে - আরএস
বলিষ্ঠ কর্মজীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
১৯৭৩-১৯৭৯ ক্যাক্সিয়াস
১৯৮০ জুভেন্তুদ
১৯৮০-১৯৮১ নোভো হ্যামবুর্গো
১৯৮১ সিএসএ
দলসমূহ পরিচালিত
১৯৮২ CSA
১৯৮২-১৯৮৩ Juventude
১৯৮৩ Brasil de Pelotas
১৯৮৪-১৯৮৫ Al-Shabab
১৯৮৬ Brasil de Pelotas
১৯৮৬-১৯৮৭ Juventude
১৯৮৭ Grêmio
১৯৮৮ Goiás
১৯৮৮-১৯৯০ Al Qadisiya
১৯৯০ Kuwait
১৯৯১ Criciúma
১৯৯১ Al-Ahli
১৯৯২ Al Qadisiya
১৯৯৩-১৯৯৬ Grêmio
১৯৯৬-১৯৯৭ Júbilo Iwata
১৯৯৭-২০০০ Palmeiras
২০০০-২০০১ Cruzeiro
২০০১-২০০২ Brazil
২০০৩-২০০৮ Portugal
২০০৮-২০০৯ Chelsea
২০০৯-২০১০ Bunyodkor
২০১০-২০১২ Palmeiras
২০১২– Brazil
* পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে।
† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

লুইজ ফেলিপে স্কলারি, কমআইএইচ (ব্রাজিলীয় পর্তুগিজ: [luˈis fɪˈɫipɪ sko̞ˈlaɾi], ইউরোপীয় পর্তুগিজ: [ˈɫwiʃ fɨˈɫip(ɨ) ʃkuˈɫaɾi]), ইংরেজি: Luiz Felipe Scolari) (জন্ম: ৯ নভেম্বর, ১৯৪৮) ২০০২ সালের বিশ্বকাপ ফুটবল জয়ী ব্রাজিল দলের ম্যানেজার ছিলেন। পরবর্তীতে ১২ জুলাই, ২০০৩ থেকে ৩০ জুন, ২০০৮ সাল পর্যন্ত তিনি পর্তুগাল জাতীয় ফুটবল দলের কোচের দায়িত্বে ছিলেন।

তিনি পুণরায় ২০১২ সাল থেকে সাবেক কোচ মানো মেনেজেসের পরিবর্তে ব্রাজিল দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন। ব্রাজিলে তাঁকে ফেলিপাও এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিগ ফিল নামে ডাকা হয়।[২][৩][৪]

কোচিং ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

জাতীয় দল[সম্পাদনা]

কুয়েত[সম্পাদনা]

১৯৯০ সালে স্কলারি কুয়েত জাতীয় ফুটবল দলকে কোচিং করাতে শুরু করেন। সে বছর গালফ নেশনস কাপ এর ফাইনালে কাতারকে পরাজিত করে কুয়েত চ্যাম্পিয়ন হয়। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই ইরাক কুয়েত দখল করে নেয়ায় তাকে কুয়েত ছেড়ে যেতে হয়।

ব্রাজিল[সম্পাদনা]

২০০১ সালের জুন মাসে স্কলারি তার স্বদেশ ব্রাজিলের দায়িত্ব পান। বাছাই পর্বের মাত্র পাঁচটি ম্যাচ হাতে রেখে সেসময় বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন নিয়ে ব্রাজিল বিরাট সংশয়ে ছিল। দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম ম্যাচেই ব্রাজিল উরুগুয়ের কাছে ০-১ গোলে হেরে গেলে সংকট আরও ঘনীভূত হয়। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি ব্রাজিলকে মূলপর্বে উত্তীর্ণ করতে সমর্থ হন।

বিশ্বকাপের জন্য চূড়ান্ত দল ঘোষণা করার আগে প্রবল জনমত উপেক্ষা করে তিনি বর্ষীয়ান স্ট্রাইকার রোমারিওকে দলে নিতে অস্বীকৃতি জানান। এমনকি রোমারিও নিজেও কান্নাজড়ানো কন্ঠে আবেদন জানালে স্কোলারি তা নাকচ করে দেন।[৫] বিশ্বকাপ শুরুর আগে ব্রাজিলকে তুলনামূলকভাবে দুর্বল দল হিসেবেই বিবেচনা করা হচ্ছিল। কিন্তু একে-একে তুরস্ক, চীন, কোস্টারিকা, বেলজিয়াম, ইংল্যান্ড এবং সেমিফাইনালে আবার তুরস্কের বিরুদ্ধে জয় ব্রাজিলকে ফাইনালে পৌঁছে দেয়। ফাইনালে রোনালদোর জোড়া গোলে ব্রাজিল জার্মানিকে পরাজিত করে পঞ্চমবারের মত বিশ্বকাপ শিরোপো নিজেদের করে নেয়।[৬] ২০০২ সালের শেষে ব্রাজিলের ম্যানেজার হিসেবে স্কলারি পদত্যাগ করেন।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Biography forLuiz Felipe Scolari" 
  2. Hamilton, Fiona। The Times (London) http://www.timesonline.co.uk/tol/sport/football/premier_league/chelsea/article5683439.ece |url= শিরোনাম অনুপস্থিত (সাহায্য) 
  3. McGarry, Ian। The Sun (London) http://www.thesun.co.uk/sol/homepage/sport/football/1280239/Phil-Scolari-named-as-new-Chelsea-boss-in-deal-worth-15m-The-Portugal-coach-to-sign-Deco-for-10m-from-Barcelona.html |url= শিরোনাম অনুপস্থিত (সাহায্য) 
  4. [১]
  5. "Defiant Big Phil leaves out Romario"। rediff.com। 7 May 2002। সংগৃহীত 9 February 2009 
  6. Murray, Scott (30 June 2002)। "Brazil 2 - 0 Germany"। London: The Guardian। সংগৃহীত 9 February 2009 
  7. "Scolari Resigns As Brazil's Coach"The New York Times। 10 August 2002। সংগৃহীত 9 February 2009 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Brazil Squad 2001 Copa América টেমপ্লেট:Brazil Squad 2002 World Cup টেমপ্লেট:Portugal Squad 2004 Euro Cup টেমপ্লেট:Portugal Squad 2006 World Cup টেমপ্লেট:Portugal Squad 2008 Euro Cup টেমপ্লেট:Kuwait national football team managers টেমপ্লেট:Júbilo Iwata managers টেমপ্লেট:Sociedade Esportiva Palmeiras managers টেমপ্লেট:Portugal national football team managers টেমপ্লেট:Chelsea F.C. managers টেমপ্লেট:FC Bunyodkor managers টেমপ্লেট:South American Coach of the Year