লাহিরু থিরিমানে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লাহিরু থিরিমানে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম হেত্তিগে ডন রুমেশ লাহিরু থিরিমানে
জন্ম (১৯৮৯-০৮-০৮) ৮ আগস্ট ১৯৮৯ (বয়স ২৫)
মরতোয়া, শ্রীলঙ্কা
উচ্চতা ৫ ফুট ১০ ইঞ্চি (১.৭৮ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরণ বামহাতি
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি মিডিযাম-ফাস্ট
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক (ক্যাপ ১১৬) ১৬ জুন ২০১১ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট ১৬ মার্চ ২০১৩ বনাম বাংলাদেশ
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ১৪৩) ৫ জানুয়ারি ২০১০ বনাম ভারত
শেষ ওডিআই ৩১ জুলাই ২০১৩ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
২০০৮-বর্তমান রাগামা
২০০৮-০৯ বাসনাহিরা সাউথ
কর্মজীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১০ ৫২ ৫৭ ১০০
রানের সংখ্যা ৫২৬ ৯৯০ ৩,৬৪৪ ২,১৭১
ব্যাটিং গড় ৩২.৮৭ ২৯.১১ ৪১.৮৮ ৩০.৫৭
১০০/৫০ ১/২ ১/৬ ১০/১৮ ১/১৬
সর্বোচ্চ রান ১৫৫* ১০২* ১৫৫* ১০২*
বল করেছে ১৮ ৫০ ৭৮ ৬০
উইকেট
বোলিং গড় ৪১.০০ ২৫.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a
সেরা বোলিং dash; ১/২৫ ১/৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/– ১৯/– ৫১/– ৩১/–
উত্স: Cricinfo, ৬ আগস্ট ২০১৩

হেত্তিগি ডন রুমেশ লাহিরু থিরিমানে (তামিল: லகிரு திரிமான்ன; জন্ম: ৮ আগস্ট, ১৯৮৯) শ্রীলঙ্কার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হিসেবে মরতোয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তবে, ক্রিকেট জগতে তিনি লাহিরু থিরিমানে নামেই সর্বাধিক পরিচিত। শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্ট ম্যাচ, একদিনের আন্তর্জাতিকটুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে খেলছেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি ব্যাটসম্যানের ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেও ডানহাতে মিডিয়াম-ফাস্ট বোলিং করে থাকেন। মরতোয়ার প্রিন্স অব ওয়েলস কলেজের প্রাক্তন ছাত্র ছিলেন থিরিমানে।[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

থিরিমানের একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে ভারত দলের বিপক্ষে ২০১০ সালের শুরুর দিকে।[২] ২০১২-১৩ মৌসুমে অ্যাডিলেড ওভালে অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ ব্যাংক সিরিজের দ্বিতীয় একদিনের আন্তর্জাতিকে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বিপক্ষে তার প্রথম সেঞ্চুরি করেন।[৩]

রোজ বোলে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে জুন, ২০১১ সালে।[৪] তিলকরত্নে দিলশানের আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তিনি এ সুযোগ পান।[৫] প্রথম টেস্ট ইনিংসে জেমস অ্যান্ডারসনের বলে কট আউট হন।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Cambrians field a formidable team this year
  2. "Lahiru Thirimanne to debut today against India"। ColomboPage। 5 January 2010। সংগৃহীত 10 January 2010 
  3. "Thirimanne guides Sri Lanka to resounding win"। সংগৃহীত 13 January 2013 
  4. Sheringham, Sam (16 June 2011)। "England put Sri Lanka under pressure at the Rose Bowl"BBC Sport (British Broadcasting Corporation)। সংগৃহীত 16 June 2011 
  5. McGlashan, Andrew (15 June 2011)। "Hosts aim to expose Sri Lanka's problems"। ESPNcricinfo। সংগৃহীত 19 June 2011 
  6. "Anderson removes Thirimanne before lunch"The Hindu (Rose Bowl, Southampton: AP)। 16 June 2011। সংগৃহীত 16 June 2011 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]