লস্কর-ই-জাংভি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

লস্কর-ই-জাংভি (উর্দু: لشكرِجهنگوی; হক নওয়াজ জাংভির সৈন্য) প্রচণ্ডভাবে শিয়া মুসলমানবিরোধী সন্ত্রাসী সংগঠন।[১] পাকিস্তানে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় জড়িত থাকার দায়ে লস্কর-ই-জাংভিকে ২০০১ সালে নিষিদ্ধ করা হয়। আল কায়েদা ও তালেবানের সঙ্গে জড়িত পাঞ্জাবি জাতিগোষ্ঠীর লোক নিয়ে লস্কর-ই-জাংভি গঠিত হয়েছে।[২]

হামলার বিবরণ[সম্পাদনা]

  • ১৬ ফেব্রুয়ারি এ গোষ্ঠী বেলুচিস্তানের রাজধানী কোয়েটায় শিয়া সম্প্রদায়ের ওপর ভয়াবহ বোমা হামলা চালায়। এতে নারী ও শিশুসহ ৯০ জনের বেশি নিহত এবং অন্তত ২০০ ব্যক্তি আহত হয়। এর আগে গত ১০ জানুয়ারি কোয়েটায় অন্য এক হামলায় অন্তত ৯০ জন নিহত হয়।[২][৩]
  • ২০০৯ সালে পাকিস্তান সফররত শ্রীলংকার জাতীয় ক্রিকেট দলের ওপর হামলার সঙ্গেও লস্কর-ই জাংভি জড়িত ছিল।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. পাকিস্তানে ৮০ শতাংশ হামলায় লস্কর-ই-জাংভি জড়িত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, দৈনিক আমাদের সময়। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০৩-০৩-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  2. ২.০ ২.১ পাকিস্তানে লস্কর-ই-জাংভি’র শীর্ষ নেতা গ্রেপ্তার, সাগর হোসেন, প্রথম নিউজ ডটকম। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২৩-০২-২০১২ খ্রিস্টাব্দ।
  3. ‘পাকিস্তানে বেশিরভাগ সন্ত্রাসী হামলার সঙ্গে জড়িত লস্কর-ই জাংভি’, দৈনিক মানবকণ্ঠ। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ৩ মার্চ ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  4. পাকিস্তানে লস্কর-ই জাংভি প্রধান ইসহাক গ্রেফতার, দৈনিক ডেসটিনি। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ১ সেপ্টেম্বর ২০১২ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

An early version of this article was adapted from the public domain U.S. federal government sources.