রেইমন্ড কার্জওয়াইল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রেইমন্ড কার্জওয়াইল
Raymond Kurzweil, Stanford 2006 (square crop).jpg
২০০৬ সালে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে রেইমন্ড কার্জওয়াইল
জন্ম (১৯৪৮-০২-১২) ফেব্রুয়ারি ১২, ১৯৪৮ (বয়স ৬৬)
কুইন্‌স, নিউ ইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র
পেশা লেখক, বিজ্ঞানী, উদ্ভাবক এবং ভবিষ্যদ্বিদ
দম্পতি সোনিয়া আর কার্জওয়াইল
সন্তান ইথান এবং এমি কার্জওয়াইল

রেইমন্ড কার্জওয়াইল (জন্ম: ১২ই ফেব্রুয়ারি, ১৯৪৮) প্রখ্যাত মার্কিন উদ্ভাবক এবং ভবিষ্যদ্বিদ। তিনি অপটিক্যাল ক্যারেক্টার রিকগনিশন (ওসিআর), লেখা থেকে কণ্ঠ সংশ্লেষণ, কণ্ঠ সনাক্তকরণ প্রযুক্তি এবং ইলেকট্রনিক কিবোর্ড যন্ত্রপাতি বিষয়ে অগ্রগামী ভূমিকা রেখেছেন। তিনি অনেকগুলো বই লিখেছেন যেগুলোর বিষয় কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ট্রান্সমানবতা, প্রাযুক্তিক ব্যতিক্রমী বিন্দু এবং ভবিষ্যদ্বিদ্যা। সম্প্রতি তিনি দীর্ঘায়ুকরণবিদ টেরি গ্রসম্যানের সাথে মিলে অমরত্ব এবং দীর্ঘ জীবন লাভ বিষয়ে গবেষণা করছেন। তার বিখ্যাত বইগুলো হচ্ছে, দ্য এইজ অফ স্পিরিচুয়াল মেশিন্‌স, দ্য টেন পার্সেন্ট সলিউশন ফর আ হেলদি লাইফ, দ্য এইজ অফ ইন্টেলিজেন্ট মেশিন্‌স এবং ফ্যান্টাস্টিক ভয়েজ (টেরি গ্রসম্যানের সাথে যৌথভাবে)।

জীবনী[সম্পাদনা]

রেই কার্জওয়াইল বেড়ে উঠেছেন নিউ ইয়র্কের কুইন্‌সে। তার জন্ম হয় এক ধর্মনিরপেক্ষ ইহুদি পরিবারে। তার বাবা-মা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ার ঠিক আগে অস্ট্রিয়া থেকে পালিয়ে আসেন। বেড়ে উঠতে গিয়ে বিভিন্ন ধরণের অনেক ধর্ম ও বিশ্বাসের সাথে পরিচিত হতে হয়েছে কার্জওয়াইলকে। বাবা ছিলেন সঙ্গিতজ্ঞ ও সুরকার, আআ মা ভিজুয়াল চিত্রশিল্পী। চাচা ছিলেন বেল গবেষণাগারের প্রকৌশলী। চাচার হাতেই তার কম্পিউটারের হাতেখড়ি।[১] ছোটবেলায় প্রচুর বিজ্ঞান কল্পকাহিনী পড়তেন। ১৯৬৩ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে জীবনের প্রথম কম্পিউটার প্রোগ্রাম লিখেন যার বিষয় ছিল পরিসাংখ্যনিক উপাত্তকে সুসংগঠিতবাবে তুলে ধরা। প্রোগ্রামটি এতই প্রয়োজনীয় ছিল যে, আইবিএম তা গবেষকদের জন্য সরবরাহ করে।[২] হাই স্কুলে অধ্যয়নকালে একটি জটিল গড়ন-চিহ্নিকরণ সফ্‌টওয়্যার প্রোগ্রাম লিখেন যা প্রখ্যাত ধ্রুপদী সুরকারদের গান বিশ্লেষণ করে সে অনুযায়ী নিজে নিজে বিভিন্ন স্টাইলের সুর তৈরি করতে পারতো। এই প্রোগ্রামের কার্যকারিতা ছিল বিশাল। এটি তৈরির পরই ১৯৬৫ সালে সিবিএস টিভি তাকে একটি "আই'ভ গট আ সিক্রেট" নামক অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানায় যেখানে তিনি নিজের প্রোগ্রাম দ্বারা তৈরি সফ্‌টওয়্যারে পিয়ানো বাজিয়ে শোনান।[৩] সে বছরের শেষের দিকে "ইন্টারন্যাশনাল সাইন্স ফেয়ার"-এ এই উদ্ভাবনের জন্য তিনি প্রথম পুরস্কার লাভ করেন।[৪] একই সাথে "ওয়েস্টিংহাউস ট্যালেন্ট সার্চ" তাকে সনাক্ত করে এবং হোয়াইট হাউসের এক অনুষ্ঠানে তৎকালীন মার্কিন রাষ্ট্রপতি লিন্ডন বি জনসন তাকে ব্যক্তিগতভাবে সাধুবাদ জানান।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]