রবার্ট জি. এডওয়ার্ডস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রবার্ট জি. এডওয়ার্ডস
জন্ম সেপ্টেম্বর ২৭, ১৯২৫
ম্যানচেস্টার
জাতীয়তা যুক্তরাজ্য
প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
প্রাক্তন ছাত্র ইউনিভার্সিটি অফ এডিনবার্গ
ইউনিভার্সিটি অফ ওয়েলস
পরিচিতির কারণ রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন
ইন-ভাইট্রো ফার্টিলাইজেশন
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার (২০১০)

রবার্ট জি. এডওয়ার্ডস (ইংরেজী ভাষায়: Robert G. Edwards) (জন্ম ২৭ সেপ্টেম্বর ১৯২৫ - মৃত্যু ১০ এপ্রিল ২০১৩)[১] একজন ব্রিটিশ জীববিজ্ঞানী যিনি ইন-ভাইট্রো ফার্টিলাইজেশনের (আইভিএফ) উপর গবেষণার জন্য বিখ্যাত। এ গবেষণার তাঁর সহকর্মী ছিলেন প্যাট্রিক স্টেপটো (১৯১৩-১৯৮৮)। তিনি আইভিএফ-এর অগ্রদূত এবং তাঁর এ গুরুত্বপূর্ণ গবেষণার ফল হল ১৯৭৮ সালের ২৫ জুলাইয়ে পৃথিবীর প্রথম টেস্ট-টিউব শিশু লুইস ব্রাউনের জন্ম।[২][৩] ইন-ভাইট্রো ফার্টিলাইজেশন সম্পর্কিত গবেষণার জন্য রবার্ট এডওয়ার্ড ২০১০ সালে চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার অর্জন করেন।[৪] তিনি রয়াল সোসাইটির একজন গবেষণা ফেলো।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.natunbarta.com/international/2013/04/11/20721/76c855a7c90e13901099420c8290c2f4
  2. "1978: First 'test tube baby' born"। BBC। 1978-07-25। সংগৃহীত 2009-06-13। "The birth of the world's first "test tube baby" has been announced in Manchester (England). Louise Brown was born shortly before midnight in Oldham and District General Hospital" 
  3. Moreton, Cole (2007-01-14)। "World's first test-tube baby Louise Brown has a child of her own"। London: Independent। সংগৃহীত 2010-05-22। "The 28-year-old, whose pioneering conception by in-vitro fertilisation made her famous around the world ... The fertility specialists Patrick Steptoe and Bob Edwards became the first to successfully carry out IVF by extracting an egg, impregnating it with sperm and planting the resulting embryo back into the mother." 
  4. "The 2010 Nobel Prize in Physiology or Medicine - Press Release"। Nobelprize.org। 2010-10-04। সংগৃহীত 2010-10-04 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]