মোহাম্মদ কায়কোবাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মোহাম্মদ কায়কোবাদ
Mohammad Kaykobad (মোহাম্মদ কায়কোবাদ).JPG
মোহাম্মদ কায়কোবাদ, বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড ২০১১ এর অনুষ্ঠানে
জন্ম (১৯৫৪-০৫-০১) ১ মে ১৯৫৪ (বয়স ৬০)
মানিকগঞ্জ, বাংলাদেশ
জীবিকা অধ্যাপক, শিক্ষাবিদ
জাতীয়তা বাংলাদেশী
জাতি বাঙালি
নাগরিকত্ব বাংলাদেশFlag of Bangladesh.svg
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি
ফ্লিন্ডার্স ইউনিভার্সিটি অব সাউথ অস্ট্রেলিয়া
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি পদক
দম্পতি সালেহা সুলতানা

[www.angelfire.com/space2/m_kaykobad/


অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ (জন্ম: ১ মে, ১৯৫৪) কম্পিউটার বিজ্ঞানী, শিক্ষক, কলামিস্ট এবং লেখক। তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে শিক্ষকতা করছেন। বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াড শুরু করার পেছনে তার উল্লেখযোগ্য অবদান আছে। বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের জন্যে সবচেয়ে বড় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা এসিএম আইসিপিসিতে বুয়েটের অংশ নেয়ার ব্যাপারেও তার অবদান আছে।

পারিবারিক জীবন[সম্পাদনা]

অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ মানিকগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম আনিছউদ্দিন আহমেদ ও মাতা সাহেরা খাতুন। তাঁর স্ত্রী সালেহা সুলতানা এবং তিনি দুই পুত্রসন্তানের জনক।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

মোহাম্মদ কায়কোবাদ ১৯৭০ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষায় মানিকগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১তম স্থান অধিকার করেন। ১৯৭২ সালে দেবেন্দ্র কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। ১৯৭৯ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের ওডেসা ইনস্টিটিউট অব মেরিন ইঞ্জিনিয়ার্স থেকে মাস্টার অব সায়েন্স ইন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৮২ সালে থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে কম্পিউটার এপ্লিকেশন্স টেকনোলজিতে মাস্টার অব ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করেন। তিনি ১৯৮৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার ফ্লিন্ডার্স ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ অস্ট্রেলিয়া থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন। [১]

পেশাজীবন[সম্পাদনা]

ড. কায়কোবাদ ১৯৭৯ সালে বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনে কমার্শিয়াল অফিসার হিসেবে যোগ দেন এবং ১৯৮০ সাল পর্যন্ত কর্মরত ছিলেন। মাস্টার অব ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডক্টরেট সম্পন্ন করে দেশে ফিরে ১৯৮৭ সালে তিনি বাংলাদেশ প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটে সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে যোগ দেন। একই বছর তিনি বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তি কমিশনের ইনস্টিটিউট অব কম্পিউটার সায়েন্সে জ্যেষ্ঠ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেন। ১৯৯১ সালে তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এর কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগে সহকারী অধ্যাপক পদে যোগ দেন। ১৯৯৪ সালে তিনি সহযোগী অধ্যাপক পদে এবং ১৯৯৭ সালে অধ্যাপক পদে উন্নীত হন। ১৯৯৬ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত তিনি এই বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। [২] এছাড়া তিনি নানা গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটারায়নের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছিলেন।

কোচ হিসেবে সাফল্য[সম্পাদনা]

ড. কায়কোবাদ একাধিকবার এসিএম আইসিপিসি ওয়ার্ল্ড ফাইনালে বুয়েট দলের কোচ হিসেবে নেতৃত্ব দিয়েছেন।[৩][৪]

উল্লেখযোগ্য কাজ[সম্পাদনা]

ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ বাংলাদেশের ছাত্র-ছাত্রীদের বিশ্বমানের মেধার প্রতিযোগিতায় যোগদান করতে উৎসাহ দেন। তিনি ও মুহম্মদ জাফর ইকবাল মিলে নিউরণে অনুরণন কার্যক্রম শুরু করেছিলেন, যা পরে বাংলাদেশে গণিত অলিম্পিয়াড চালুর পথ সুগম করে। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সদস্য হিসেবে কাজ করছেন। তিনি গণিত অলিম্পিয়াডে প্রস্তুতির ওপর বেশ কয়েকটি বইও লিখেছেন। তার লেখা কলামে বাংলাদেশের ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় সাফল্যের খবর এবং দেশের শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়ন সংক্রান্ত দিকনির্দেশনা পাওয়া যায়। তিনি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশলের পাঠ্যসূচী প্রণয়নে ভূমিকা রেখেছেন। তিনি তিতাস গ্যাস কোম্পানি, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, জীবন বীমা কর্পোরেশন, নির্বাচন কমিশন, পরিসংখ্যান ব্যুরো, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ প্রভৃতি প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটারাইজেশন বিশেষজ্ঞ হিসেবে কাজ করেছেন। [৫] ১৯৯৮ সালের অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন কম্পিউটার অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজির মূল আয়োজক হিসেবে কাজ করেছেন ।

অভিসন্দর্ভ তত্ত্বাবধান[সম্পাদনা]

মোহাম্মদ কায়কোবাদ ১৯টি আন্ডারগ্র্যাজুয়েট, ১৭টি মাস্টার্স ত্তত্বাবধান করেছেন। (জানুয়ারি ২০০৪ পর্যন্ত) [৬]

রচিত গ্রন্থসমূহ[সম্পাদনা]

  1. আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড
  2. অলিম্পিয়াড সমগ্র
  3. যারা গণিত অলিম্পিয়াডে যাবে
  4. আন্তর্জাতিক প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ও বাংলাদেশ
  5. মেধাবী মানুষের গল্প
  6. কম্পিউটার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ও বাংলাদেশ
  7. রিফাত শাহরিয়ার, এম তানভির কায়কোবাদ, মোহাম্মদ কায়কোবাদ, আরেকটি গণিতের বই Publisher: Technology Today, First Print January, 2009.
  8. System Analysis and Design: A Practitioner’s Approach, Author : Munawar Hafiz, Mohammad Sohel Rahman, Mohammad Saifur Rahman, Mohammed Eunus Ali and M Kaykobad, Published by University Grants Commission, Bangladesh
  9. মেধাবী মানুষের গল্প, মোহাম্মদ কায়কোবাদ, প্রকাশক : অন্যপ্রকাশ, ফেব্রুয়ারি ২০০৫
  10. International Mathematics Olympiad: Problems and Solutions, in coauthorship with M Zafar Iqbal, published by Anonya Prokashani, 2003.
  11. নিউরণে আবারো অনুরণন, ,মোহাম্মদ কায়কোবাদ M Zafar Iqbal published by অনন্যা প্রকাশনী, ২০০৩
  12. নিউরণে অনুরণন, মোহাম্মদ কায়কোবাদ, M Zafar Iqbal published by অনন্যা প্রকাশনী, ২০০২
  13. Delightful Mathematics – Brain twister published in coauthorship with Professor M. Shamsher Ali and Tanbir Ahmed, Voyager Publishers, 2002.
  14. Computer Programming Contest and Bangladesh, published by Voyager Publications, 2002.
  15. Computer Programming, published as a textbook for students of Bangladesh Open University, 1997
  16. Information Technology Management-I, published by the Institute of Cost and Management Accountants, Bangladesh, Dhaka, 1993.
  17. Information Technology Management-II, published by the Institute of Cost and Management Accountants, Bangladesh, Dhaka, 1993.
  18. Member of the Editorial Board for "Computer Basics" published by the Bangladesh Open University, 1997.
  19. সম্পাদক, জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড অনুমোদিত “মাধ্যমিক কম্পিউটার শিক্ষা”, ৯ম-১০ম শ্রেণী.
  20. Coauthor of Training Manual, কম্পিউটার শিক্ষা (নবম-দশম শ্রেণী), জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড

লেখালেখি[সম্পাদনা]

মোহাম্মদ কায়কোবাদ প্রথম আলো, ভোরের কাগজ, ইত্তেফাক, The Daily Star, The Independent, The Observer, প্রভৃতি দৈনিকে এবং কম্পিউটার জগত, কম্পিউটার বিচিত্রা, কম্পিউটার বার্তা প্রভৃতি কম্পিউটার ম্যাগাজিনে দুই শতাধিক নিবন্ধ লিখেছেন।

পুরস্কার[সম্পাদনা]

  • এসিএম আইসিপিসির সেরা কোচের পুরস্কার, ২০০২।[৭]
  • বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি পদক।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]