মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ
মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ

মির্যা গোলাম আহমেদ (উর্দু: مرزا غلام احمد, ਮਿਰਜ਼ਾ ਗੁਲਾਮ ਅਹਮਦ; ফেব্রুয়ারি ১৩, ১৮৩৫ - মে ২৬, ১৯০৮) একজন বিতর্কিত ভারতীয় ধর্মীয় নেতা, এবং আহ্‌মদিয়া মুসলিম জামাত নামক এক ধর্মের প্রবর্তক। তাঁর দাবী মতে তিনি ১৪ শতাব্দীর মুজাদ্দেদ (আধ্যাত্মিক সংস্কারক), প্রতিশ্রুত মসীহ, মাহদী এবং খলীফা।

আহমদিয়া সম্প্রদায়[সম্পাদনা]

আহ্‌মদিয়া একটি ধর্মীয় সম্প্রদায়। যার প্রতিষ্ঠাতা মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ কাদিয়ান। ইসলামের আসল পথ থেকে বিচ্যুত মুসলমানদের সঠিক পথের সন্ধান দিতে প্রতিষ্ঠিত হয় আহ্‌মদিয়া আন্দোলনের। পরবর্তীতে আহ্‌মদিয়ারা দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পরে লাহোর আহ্‌মদিয়া আন্দোলন ,আহ্‌মদিয়া মুসলিম সম্প্রদায় নামে। লাহোর আহ্‌মদিয়া আন্দোলন মনে করে আহ্‌মদিয়া জামাতের প্রতিষ্ঠাতা মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ একজন মুজাদ্দিদ (সংস্কারক), প্রতিশ্রুত মসীহ্‌, ইমাম মাহাদি এবং প্রত্যাবর্তনকারী যীশু খ্রিস্ট হিসাবে। তারা কায়মনো বাক্যে স্বীকার করে যে মুহাম্মদ(সঃ)সর্বশেষ নবী। অপরদিকে আহ্‌মদিয়া মুসলিম সম্প্রদায় এর মতে মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ একজন মুজাদ্দিদ (সংস্কারক), প্রতিশ্রুত মসীহ্‌, ইমাম মাহাদি এবং প্রত্যাবর্তনকারী যীশু পাশাপাশি মুহাম্মদ(সঃ)এর প্রদর্শিত পথে পাঠানো একজন নবী। তাদের মতে নবুয়াতের সমাপ্তি মানে আর কোন নতুন নবী আসতে পারবেননা তা নয়, নতুন নবী আসতে পারবেন তবে তা অবশ্যই হতে হবে মুহাম্মদ(সঃ) যে পথ-প্রদর্শন করে গেছেন সেই পথে কিন্ত্ত কখনই নতুন কোন মতবাদ নিয়ে নয়।

মূলধারার মুসলিমদের সাথে পার্থক্যসমূহ[সম্পাদনা]

১। যীশু কুমারী মেরির গর্ভেই জন্ম গ্রহন করেছেন এবং তিনি ক্রশ বিদ্ধ হয়ে মৃত্যু বরণ করেননি। বরঞ্চ তিনি পূর্ব ইন্ডিয়ায় চলে আসেন ঈসরাঈলের একটি হারানো গোত্র কে খুঁজতে। যীশু এই পৃথিবীতেই ছিলেন এবং এখানেই মৃত্যুবরণ করেন। তাকে সমাধিস্থ করা হয়েছে কাশ্মীরের "উয আসাফ" এ। কিন্তু মুসলিমরা মনে করেন আল্লাহ হজরত ঈসা (আঃ) কে আকাশে উঠিয়ে নিয়েছেন। এবং কিয়ামতের আগে তিনি পৃথিবীতে ফিরে আসবেন।

২। যীশু খ্রিস্টর/ হযরত ঈসা (আঃ) দ্বিতীয় আগমন কথাটি রূপক অর্থে ব্যবহৃত। যাকিনা মির্যা গোলাম আহ্‌মেদ এর আগমন এর মাধ্যমে পরিপূর্ণ হয়েছে। মূলধারার মুসলিমরা কাদিয়ানীদের এই মতবাদের ব্যাপারে সবচেয়ে আপত্তি প্রকাশ করেন। তারা মনে করেন হজরত ঈসা (আঃ) এর দ্বিতীয়বার পৃথিবীতে আসার কথা রুপক অর্থে নয়। এটি সত্যি সত্যি ঘটবে। আর মুসলিমরা গোলাম আহমাদ কাদিয়ানীকে প্রতিশ্রুত মসীহ বা ঈসা মানতে নারাজ।

৩। আহমদিয়ারাও মুসলিমদের মত মক্কা শরীফের(বায়তুল্লাহর) দিকে মুখ করে নামাজ পড়ে।

৪। আহমদিয়ারা গোলাম আহমাদ এর প্রথম দিককার অনুসারীদেরকে সাহাবি মনে করেন ।

উপরোক্ত কারণগুলি পর্যালোচনা করে বিশ্বের সকল মুসলিম আহমদিয়াদের অমুসলিম মনে করে। ইতিমধ্যে তারা বিভিন্ন দেশে অমুসলিম বলে ঘোষিত হয়েছে। যদিও আহমদিয়ারা নিজেদের মুসলিম বলেই মনে করে ।