মিরান্ডা কের

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মিরান্ডা কের
Miranda Kerr.jpg
২০০৯ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি, অস্ট্রেলিয়ার পার্থে মিরান্ডা কের
মডেলিং তথ্য
উচ্চতা ১.৭৫ মি (৫ ফু ৯ ইঞ্চি)
চুলের রঙ বাদামী
চোখের রঙ নীল
পরিমাপ ৩২-২৪-৩৪ (যুক্তরাষ্ট্রীয়)
৮১-৬১-৮৬ (ইউরোপীয়)[১]
পোষাকের আকার ৬ (যুক্তরাষ্ট্রীয়)[১]
৩৬ (ইউরোপীয়)[১]

মিরান্ডা মে কের (ইংরেজি: Miranda May Kerr) (জন্ম: ২০ এপ্রিল, ১৯৮৩)[২] একজন অস্ট্রেলীয় মডেল। তিনি মূলত পরিচিত ২০০৭ সালের মধ্যভাগ থেকে ভিক্টোরিয়া’স সিক্রেটের হয়ে মডেলিং করার জন্য। তিনি ভিক্টোরিয়া’স সিক্রেটের ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণকারী প্রথম অস্ট্রেলীয়। এছাড়া তিনি অস্ট্রেলীয় ফ্যাশন চেইন পোর্টম্যান, ও ডেভিড জোন্স লিমিটেডেরও প্রতিনিধিত্ব করেন। ১৩ বছর বয়স থেকেই তাঁর মডেলিং জগতে পদার্পণ। তাঁর প্রথম মডেলিং এজেন্সি ছিলো শে’স মডেলিং এজেন্সি। পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে ডলি ম্যাগাজিন ও ইম্পালস সুগন্ধীর এক যৌথ মডেল অনুসন্ধানের মাধ্যমে সুযোগ পেয়ে তাঁর পুরোদমে মডেলিং জগতে পদার্পণ।[৩]

প্রাথমিক জীবন ও পরিবার[সম্পাদনা]

মিরান্ডা কেরের জন্ম হয়েছিলো অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে, কিন্তু তিনি বড় হয়েছেন নিউ সাউথ ওয়েলসের গিনেদা শহরে।[৪] তাঁর মা থেরেসা কের, ও বাবা জন কের। এছাড়া ম্যাথিউ সামে মিরান্ডার ছোট একটি ভাই আছে। কের বলেছেন যে তাঁর ভেতরে ইংরেজ, ফরাসি, ও স্কটল্যান্ডীয় রক্ত রয়েছে। এছাড়া গুজব আছে যে, তাঁর ভেতর ফিলিপিনো ঐতিহ্যের ছোঁয়াও রয়েছে। শৈশবে কের তাঁর দাদীর খামারে মোটরসাইকেল রেসিং ও ঘোড়ার রোডিও খেলতেন।[৫] কের ও তাঁর ছোট ভাইকে শহুরে জীবনে অভ্যস্ত করানোর জন্য কেরের পরিবার পরবর্তীতে ব্রিসবেনে চলে আসে। ব্রিসবেনের অল হ্যালোস স্কুল থেকেই কের স্নাতক সম্পন্ন করেন। মডেলিং শুরুর আগে তিনি পুষ্টিবিদ্যায় পড়াশোনা করার পরিকল্পনা করেছিলেন।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ Miranda Kerr Profile. Fashion Model Directory. Accessed 2008-06-22.
  2. Miranda's model life Daily Telegraph says she turned 14 after winning the 1997 Dolly/Impulse content, and during a 2008 video at TodayTonight she said she had just turned 25. Accessed 2008-05-01.
  3. Miranda Kerr OneThousandModels. Accessed 2008-04-26.
  4. Miranda's blog. PortmansComAu. Accessed 2008-04-26.
  5. ৫.০ ৫.১ Elissa Blake (November 11, 2007). Miranda's Model Life Daily Telegraph. Accessed 2008-04-26.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]