মিনহাজুর রহমান নয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মিনহাজুর রহমান নয়ন
জন্ম (১৯৮৯-০৯-২৬) ২৬ সেপ্টেম্বর ১৯৮৯ (বয়স ২৫)
ঢাকা, বাংলাদেশ
বাসস্থান ঢাকা
জাতীয়তা বাংলাদেশী
বংশোদ্ভূত বাংলাদেশী
পেশা

লেখক, অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক।

প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা Chitrojogot.com
আদি শহর ঢাকা, বাংলাদেশ
ধর্ম ইসলাম
পিতা-মাতা

মনতাজুর রহমান আকবর

মরিয়ম রহমান

মিনহাজুর রহমান নয়ন(ইংরেজি: Minhazur Rahman Nayan ) একজন বাংলাদেশী লেখক, অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক।[১] তিনি একজন স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র তোফায়েল - দ্যা টি স্টল বয় এর লেখক, পরিচালক এবং প্রযোজক।[১][২][৩][৪] তিনি তার অভিষেক পরিচালনায় স্বল্প দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্রে জন্য দর্শক পুরষ্কার অর্জন করেন। তিনি একজন অভিনেতাও। তিনি প্রথম অভিনয় করেন শিশু শিল্পী হিসেবে, তার বাবা পরিচালিত ১৯৯৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শয়তান মানুষ সিনেমায়।[১] তিনি একুশে টেলিভিশনে ২০১০ সালে প্রচারিত শিশুদের সংবাদ বিষয়ক অনুষ্ঠান মুক্ত খবর এর একজন ফ্রিল্যান্স সহকারী পরিচালক।[৫] ২০১৩ সালে, তিনি বাংলাদেশের প্রথম বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ভিত্তিক ইন্টারনেট পোর্টাল চিত্রজগৎ.কম প্রতিষ্ঠা করেন।[৬]

শৈশব[সম্পাদনা]

মিনহাজুর রহমান নয়ন বাংলাদেশের ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন, তার বাবা বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর এবং মা মরিয়ম রহমান। তিনি চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন সম্পাদক অপু মনোয়ারের ছোট ভাই,[৭] তার চাচা ইস্তোফা রহমান[৮] ও ঢালিউড চলচ্চিত্রের একজন চিত্রগ্রাহক।

নয়ন আল-আমিন কিন্ডার গার্ডেন, শেওড়াপাড়া, ঢাকায় প্রাথমিক শিক্ষ্যা গ্রহন করেন। এরপর ঢাকার তালতলায় অবস্থিত হালি ফাউন্ডেশন মডেল স্কুলে তিনি চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপরা করেন, তারপর ঢাকার মগবাজারের নয়াটোলায় অবস্থিত ইউসেপ টুইটা বোর্ডফিল্ড বিদ্যালয় থেকে তিনি নিম্ন মাধ্যমিক শিক্ষ্যা সম্পন্ন করেন । তিনি উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন সিদ্ধেশ্বরী ডিগ্রী কলেজ থেকে। বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্থায় নয়ন প্রায় তার পরীক্ষাতে অকৃতকার্য হতেন, ফলে তার শিক্ষাজীবনে বহু বিরতি হ্য়।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

নয়ন তার প্রাথমিক জীবনেই লেখালেখি শুরু করেন, তিনি প্রথমে কবিতা লেখন। তিনি সাপ্তাহিক রোববারের মত ম্যাগাজিনে এবং বিভিন্ন সংবাদপত্রে অপেশাগত স্বতন্ত্র কলাম লেখক হিসেবে কাজ করেছিলেন এছাড়া তিনি বহু জনপ্রিয় সংবাদপত্র এবং ম্যাগাজিনে কবিতা, গল্প ও ছোট গল্প লেখেন।

২০০৯ সালে, তিনি দৈনিক আজকের বসুন্ধরা সংবাদপত্রে সংবাদ প্রতিবেদক হিসেবে যোগদান করেন।[৯][১০][১১] তিনি কলাম লেখক এবং প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করতেন। তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র বিষয়ক, বেসরকারী সংগঠন এবং সামাজিক উন্নয়ন বিষয়ে লেখয়েন এবং আরো অন্যান্য বিষয়ের লেখা তার অন্যান্য ম্যাগাজিনে প্রকাশিত হত। এই সংবাদপত্রে ছয়মাস কাজ করার পর তিনি প্রতিবেদকের কাজ ছেড়ে দেন।

২০১০ সালে, তিনি একুশে টেলিভিশন [৫] এ প্রচারিত শিশুদের সংবাদ বিষয়ক অনুষ্ঠান মুক্ত খবর এর একজন স্বতন্ত্র সহকারী পরিচালক হিসেবে প্রযোকজক বশির আহমেদের অধীনে যোগদান করেন।[১২] এই অনুষ্ঠানে পরিচালক অব্যাহতি নেওয়ার কিছুদিন পর তিনিও এই কাজ থেকে অব্যাহত নেন। নয়ন বাংলা টেলিফিল্ম “পাখাল” এর চিত্রনাট্য লেখেন। এই কাহিনীকার হলে তার চাচা রফিক নতবর এবং এর পরিচালক তার বাবা। এই টেলিফিল্মের সংলাপ উপদেষ্টা হলেন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র চিত্রানাট্যকার আব্দুল্লাহ জহির বাবু।.[১৩] এই নাটকটি ২০১৩ সালে ঈদ-উল-আযহার সময় মোহনা টেলিভিশনে প্রচারিত হয়। তারপর তিনি তার বাবা’র প্রযোজনা সংস্থা “স্বাধীনতা হোম বক্স” এর অধীনে একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র নির্মানের জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেন।[১৪] তিনি তার বাবার প্রতিষ্ঠানকে আরো এগিয়ে নিয়ে যান।

২০১৩ সালের জানুয়ারীতে, তার বড় ভাই,[১৫] তার চাচা রফিক নটবর "[১৬] এবং তার বন্ধু শাহরিয়ার ফাহাদের,[১৭] সাহায্যে স্বল্প দৈর্ঘ্যে চলচ্চিত্র “তোফায়েল - দ্যা টি স্টল বয়” সিনেমাটি লেখেন এবং পরিচালনা করেন। এই সিনেমাটি বেলারুশে অনুষ্ঠিত ভাগ্রান্ট চলচ্চিত্র উৎসবে এবং ভারতে অনুষ্ঠিত ফ্রী স্পিরিট চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হয়। এবং এই সিনেমাটি সেখানে দর্শক পুরষ্কার অর্জন করে।

২০১৩ সালে জুলাই মাসে, নয়ন ঢালিউড চলচ্চিত্রের অনলাইন সমর্থনের জন্য একটি একটি পরিকল্পনা নিয়ে চিত্রনাট্যলেখক আব্দুল্লাহ জহির বাবু এবং তার বন্ধু ওয়েব ডেভেলপার সুমন মোল্লা সেলিমের সাথে আলোচনা করে। আব্দুলাহ জহির এই পোর্টালের নাম দেন চিত্রজগৎ.কম। সুমন মোল্লা সেলিম এই ওয়েবসাইটটি ডেভেলপ করেন এবং codeoo এবং স্টার প্লাস (প্রাক্তন স্বাধীনতা হোম বক্স) যৌথভাবে ঢালিউড চলচ্চিত্রের দর্শকের জন্য চলচ্চিত্র ওয়েব পোর্টাল চিত্রজগৎ.কম এর শুভসূচনা করেন।

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

স্বল্প দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্র চরিত্র টীকা
২০১৩ তোফায়েল - দ্যা টি স্টল বয় প্রযোজক
পরিচালক
লেখক
প্রদর্শন – দ্য ভাগ্রান্ট চলচ্চিত্র উৎসব, বেলারুশ
দর্শক পুরষ্কার – ফ্রী স্পিরিট চলচ্চিত্র উৎসব, ভারত

টেলিভিশন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]