মাহমুদ দারউইশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মাহমুদ দারউইশ
MahmoudDarwish.jpg
জন্ম (১৯৪১-০৩-১৩)১৩ মার্চ ১৯৪১
আল-বোরো, ফিলিস্তিন
মৃত্যু আগস্ট ৯, ২০০৮(২০০৮-০৮-০৯) (৬৭ বছর)
টেক্সাস, যুক্তরাষ্ট্র
বাসস্থান ফিলিস্তিন
পেশা কবিসাহিত্যিক
যে জন্য পরিচিত ফিলিস্তিনীদের জাতীয় কবি

মাহমুদ দারউইশ (আরবি: محمود درويشইংরেজি: Mahmoud Darwish) (১৩ই মার্চ ১৯৪১ - ৯ই আগস্ট ২০০৮) ছিলেন ফিলিস্তিনীদের জাতীয় কবি।

জীবনী[সম্পাদনা]

মাহমুদ দারউইশ জন্মগ্রহণ করেন, ১৯৪২ সালে, ফিলিস্তিনের এক অখ্যাত গ্রাম 'আল-বোরোতে'। ১৯৪৮ সালে ইসরায়েলী সৈন্যদের ফিলিস্তিন দখলের সময়, এক ভয়াবহ রাতে আক্রান্ত হয় দারউইশের এই ছোট্ট গ্রামটিও। সৌভাগ্যক্রমে বেঁচে যায় দারউইশের পরিবার। ইসরায়েলী সৈন্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে তারা প্রায় ছত্রিশ ঘণ্টা লুকিয়ে ছিলেন ক্ষেতের মাঝে। পরে শরণার্থী হয়ে আশ্রয় নেন লেবাননে। এক বছর পর, সাত বছর বয়সে, দারউইশ লেবাননের সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ করেন ফিলিস্তিনে, তার হারানো জন্মভূমিতে। কিন্তু শিশু দারউইশ দেখলেন ইসরায়েলী গোলার আগুনে পুরে গেছে তার বাড়ি-গ্রাম্তফিলিস্তিনের মানচিত্র। দারউইশ লিখেছেন : এক রাতে আমার চাচা এবং একজন পথপ্রদর্শকের সাথে লেবাননের সীমান্ত দিয়ে আমি প্রবেশ করলাম ফিলিস্তিনে। সকালে উঠে দেখি আমি একটি ইস্পাতের দেয়ালের মুখোমুখি : আমি ফিলিস্তিনে। কিন্তু কোথায় আমার ফিলিস্তিন? আমি কখনো আমার বাড়িতে ফিরে যেতে পারিনি। প্রচন্ড কষ্ট নিয়ে আমি দেখতে পেলাম আমার গ্রাম বিধ্বস্ত-ভস্ম।

ইসরায়েলের বিরূদ্ধে প্রতিরোধ[সম্পাদনা]

ফিলিস্তিনের সন্তান মাহমুদ দারউইশ ফিলিস্তিনে প্রবেশ করেন অবৈধ অনুপ্রবেশকারী হয়ে। ১৯৬৯ সালে ইসরায়েলী কমিউনিস্ট পার্টির পত্রিকা জো হাদারেক-এ এক সাক্ষাৎকারে দারউইশ বলেছেন : সেই একটি রাত সবাইকে শরনার্থী বানিয়ে দেয়, লেবনানে আমি শরনার্থী ছিলাম। ফিলিস্তিনেও আমি শরনার্থী হয়ে আছি। এটা কোন কাব্যিক দীর্ঘশ্বাস ছিল না। ইসরায়েলী রাষ্ট্রের প্রথম আদমশুমারিতে যে সব ফিলিস্তিনী অন্তর্ভুক্ত হয়নি, নতুন ইসরায়েলী সরকার তাদেরকে পরিচয় পত্র দেয়নি। তাদের চিহ্নিত করে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী হিসেবে। ফলে দারউইশের মত অজস্র ফিলিস্তিনী নিজ জন্মভূমিতে হয়ে থাকে অবৈধ অভিবাসী।

লেবানন থেকে ফিরে আসার পর তার প্রাথমিক শিক্ষা শুরু হয় 'দাইরুল আছাদ'-এ, আত্মপরিচয় গোপন করে। কারণ ইসরায়েলী সরকারের দৃষ্টিতে তিনি ছিলেন অবৈধ অভিবাসী। তিনি জানতেন ধরা পড়লে তাকে দেশ থেকে তাড়িয়ে দেয়া হবে। তার মাধ্যমিক শিক্ষা 'কাফার ইয়াসিফ' গ্রামে। মাধ্যমিক শিক্ষার পরই তিনি জড়িয়ে পড়েন নানা তৎপরতায়। তার জীবন হয়ে উঠে শুধু কবিতা লেখা এবং কবিতার মাধ্যমে লড়াই করা।

দারউইশ তখন এই বঞ্চনার বিরুদ্ধে লড়ায়ের পথ খুঁজছিলেন। এই সময় তিনি ইসরাইলী কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন এবং পার্টির পত্রিকার সম্পাদক হিসাবে কাজ শুরু করেন। সেই ফিলিস্তিনীদের মুক্তি সংগ্রামের একটি শক্তিশালী অস্ত্র হয়ে ওঠেছিল কবিতা। 'আমছিয়া' বা সান্ধ্য কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানগুলোতে গ্রামে গ্রামে গিয়ে দারউইশ কবিতা পাঠ করতেন, যা ফিলিস্তিনীদের দারুণ প্রভাবিত করেছিল। ইসরাইলী সরকার শংকিত হয়ে পড়ে এবং তার আমছিয়াগুলোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করে। সেই সময় ইসরাইলী সৈন্যরা সন্ধ্যা থেকে সকাল পর্যন্ত দারউইশকে গৃহবন্দী করে রাখত।

স্বাভাবিক কারণেই ইসরাইলে দারউইশের এই রাজনৈতিক তৎপরতা নির্বিঘ্ন হয় নি। ১৯৬১, ১৯৬৫, ১৯৬৭ তে তিনি তিনবার জেলে গিয়েছিলেন। সত্তরের দশকের শুরুতে তিনি বৈরুত চলে যান। ততদিনে কবি হিসেবে দারউইশ বেশ বিখ্যাত হয়ে ওঠেছেন। ১৯৭৭ সালে বের হয় তার বিখ্যাত জনপ্রিয় কাব্যগ্রন্থ আবিরুনা ফি কালামিন আবিরীন, যা ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল। এই সময় দারউইশ আল্লাজনাতুত্তানফিযা লি মুনাজ্জামাতিত তাহরীরির ফিলিস্তিনী-তে যোগ দেন। এই প্রতিষ্ঠানে তিনি দীর্ঘদিন আরাফাতের ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে কাজ করেছিলেন। ফিলিস্তিনী সরকার গঠন কালে আরাফাত তাকে সাংস্কৃতিক মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব করেছিলেন। দারউইশ তা গ্রহণ করেন নি। দারউইশ বলেছিলেন, আমার একমাত্র আকাংখা বারুদের ধোঁয়া মুক্ত ফিলিস্তিনে বসে কবিতা লেখা। কিন্তু ১৯৯৩ সালে অসলো চুক্তির পর দারউইশ এই দল থেকে বের হয়ে যান। এরপর তিনি আরাফাতের সাথে আর কোনো সম্পর্ক রাখেন নি। তিনি প্রতিবাদ করে বলেছিলেন : এই চুক্তিতে ইনসাফ নেই, এই চুক্তিতে ফিলিস্তিনী পরিচয়ের ন্যুনতম অনুভূতি এবং তার ভৌগোলিক অবস্থানের প্রতি কোনো ল্য রাখা হয় নি। এই চুক্তি ফিলিস্তিনীদের একটি যাযাবর জাতিতে পরিণত করবে। তারপরও দারউইশ আরাফাতকে ভালবাসতেন। আরাফাতের মৃত্যুর পর এক সাক্ষাতকারে দারউইশ বলেছিলেন : পৃথিবীর কানে যারা 'ফিলিস্তিন' শব্দটি তুলেছেন আরাফাত তাদের অন্যতম। আরাফাত তার জীবনকে এর জন্য উৎসর্গ করে দিয়ে ছিলেন। আরাফাত কখনো নিজের জন্য বাঁচেন নি্ত আমি চাই আমার স্মৃতিতে আরাফাতের এই চিত্রটি জেগে থাক । আরাফাতকে আমরা খুব মিস করি কিন্তু আমরা আর কোনো আরাফাত চাইনা

নানা দেশ ঘুরে ১৯৯৪ সালে দারউইশ ফিলিস্তিনের রামাল্লায় ফিরে আসেন এবং ইসরায়েলী সৈন্যরা তাকে গৃহাবোরোধ করে রাখে। অবরোধ কালে দারউইশ নিরন্তর লিখেছেন, ইসরায়েলী সৈন্যদের বিরুদ্ধে লড়েছেন ভাষা-কবিতা দিয়ে। ২০০২ এর মার্চে বিখ্যাত কবি সাহিত্যিকদের একটি দল গৃহবন্দী দারউইশের সাথে সাক্ষাত করতে রামাল্লায় গিয়েছিলেন।

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

দারউইশ ফিলিস্তিনী মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মাঠে ছিলেন। তবে তিনি লড়েছেন ভাষা কবিতা দিয়ে। এই সময় দারউইশের কবিতায় একটি গুরুত্বপূর্ণ বদল ঘটে। তিনি, তার এর পূর্বেকার কবিতায় যে কাব্যিক জটিলতা ছিল তা থেকে ফিরে আসেন। তিনি দেখতে পান তার এই ধরণের কবিতাগুলো সাধারণ মানুষ-যোদ্ধারা বুঝতে পারে না। দারউইশ কবিতা লিখতে শুরু করলেন সরল ভাষায়, সহজ করে, যা বুঝতে পারে সাধারণ মানুষ, উদ্দীপ্ত করে সাধারণ মুক্তিসংগ্রামীদের। এই সংকলনের চোদ্দটি কবিতার তেরোটিই এই সময়, মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে অবস্থান কালে, লেখা।

দারউইশ কবিতাকে গ্রহণ করেছিলেন শিশুকালেই। স্কুল জীবনে তিনি কাসিক আরবী কবিতার সবটুকু পড়ে ফেলেছিলেন। দারউইশ জীবনে প্রথম কবিতা পাঠ করেন নতুন ইসরায়েলী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার প্রথম উদযাপন অনুষ্ঠানে। দারউইশ তখন স্কুলের ছাত্র। প্রধান শিক্ষকের নির্দেশে দারউইশ স্বরচিত কবিতা পাঠ করেছিলেন। তিনি বলেন 'সেখানেই জীবনের প্রথম বারের মত আমি মাইক্রোফোনের সামনে দাঁড়িয়ে কবিতা পাঠ করি। কবিতাটি ছিল এক ইহুদী বালকের প্রতি এক ফিলিস্তিনী বালকের আর্তনাদপূর্ণ আহ্বান।

স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

লেনিন সাহিত্য পুরষ্কারসহ দারউইশ তার কাব্যকীর্তির জন্য অনেক পুরস্কার পেয়েছেন। তবে তার সবচেয়ে বড় পুরস্কার তার প্রতি ফিলিস্তিনীদের ভালবাসা।

বিখ্যাত উক্তিসমূহ[সম্পাদনা]

Why are we always told that we cannot solve our problem without solving the existential anxiety of the Israelis and their supporters who have ignored our very existence for decades in our own homeland?[২]

We have triumphed over the plan to expel us from history.[৩]

"I thought poetry could change everything, could change history and could humanize, and I think that the illusion is very necessary to push poets to be involved and to believe, but now I think that poetry changes only the poet."[৪][৫]

"We should not justify suicide bombers. We are against the suicide bombers, but we must understand what drives these young people to such actions. They want to liberate themselves from such a dark life. It is not ideological, it is despair."

"We have to understand - not justify - what gives rise to this tragedy. It's not because they're looking for beautiful virgins in heaven, as Orientalists portray it. Palestinian people are in love with life. If we give them hope - a political solution - they'll stop killing themselves."

“Sarcasm helps me overcome the harshness of the reality we live, eases the pain of scars and makes people smile. The sarcasm is not only related to today’s reality but also to history. History laughs at both the victim and the aggressor.”

"I will continue to humanise even the enemy... The first teacher who taught me Hebrew was a Jew. The first love affair in my life was with a Jewish girl. The first judge who sent me to prison was a Jewish woman. So from the beginning, I didn't see Jews as devils or angels but as human beings." Several poems are to Jewish lovers. "These poems take the side of love not war,"

মৃত্যু[সম্পাদনা]

২০০৮ সালের ৬ই আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে তার হৃৎপিন্ডে একটি অস্ত্রপচার করা হয়। তার ৩দিন পর ৯ই আগস্ট তিনি মারা যান।[৬]

প্রকাশিত কবিতা ও সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

কবিতা[সম্পাদনা]

  • Asafir bila ajniha (ডানাহীন পাখি), 1960
  • Awraq Al-Zaytun (শান্তির প্রতীক জলপাই), 1964
  • Ashiq min filastin (ফিলিস্তিনের প্রেমিক), 1966
  • Akhir al-layl (The end of the night), 1967
  • Yawmiyyat jurh filastini (Diary of a Palestinian wound), 1969
  • Habibati tanhad min nawmiha (My beloved awakens), 1969
  • al-Kitabah 'ala dhaw'e al-bonduqiyah (Writing in the light of the gun), 1970
  • al-'Asafir tamut fi al-jalil (Birds are Dying in Galilee), 1970
  • Mahmoud Darwish works, 1971. Two volumes
  • Mattar na'em fi kharif ba'eed (Light rain in a distant autumn) 1971
  • Uhibbuki aw la uhibbuki (I love you, I love you not), 1972
  • Jondiyyun yahlum bi-al-zanabiq al-baidaa' (A soldier dreaming of white lilies), 1973
  • Complete Works, 1973. Now al-A'amal al-jadida (2004) and al-A'amal al-oula (2005).
  • Muhawalah raqm 7 (Attempt number 7), 1974
  • Tilka suratuha wa-hadha intihar al-ashiq (That's her image, and that's the suicide of her lover), 1975
  • Ahmad al-za'tar, 1976
  • A'ras (Weddings), 1977
  • al-Nasheed al-jasadi (The bodily anthem), 1980. Joint work
  • The Music of Human Flesh, Heinemann 1980, Poems of the Palestinian struggle selected and translated by Denys Johnson-Davies
  • Qasidat Bayrut (Ode to Beirut), 1982
  • Madih al-zill al-'ali (A eulogy for the tall shadow), 1983
  • Hissar li-mada'eh al-bahr, 1984
  • Victims of a Map, 1984. Joint work with Samih al-Qasim and Adonis in English.
  • Sand and Other Poems, 1986
  • Hiya ughniyah, hiya ughniyah (It's a song, it's a song), 1985
  • Ward aqal (Fewer roses), 1985
  • Ma'asat al-narjis, malhat al-fidda (Tragedy of daffodils, comedy of silver), 1989
  • Ara ma oreed (I see what I want), 1990
  • Ahad 'asher kaukaban (Eleven planets), 1992
  • Limaza tarakt al-hissan wahidan (Why Did You Leave the Horse Alone?), 1995. English translation 2006 by Jeffrey Sacks (Archipelago Books) (ISBN 0-9763950-1-0)
  • Psalms, 1995. A selection from Uhibbuki aw la uhibbuki, translation by Ben Bennani
  • Sareer El-Ghariba (Bed of a stranger), 1998
  • Then Palestine, 1999 (with Larry Towell, photographer, and Rene Backmann)
  • Jidariyya (Mural), 2000
  • The Adam of Two Edens: Selected Poems, 2000 (Syracuse University Press and Jusoor) (edited by Munir Akash and Carolyn Forche)
  • Halat Hissar (State of siege), 2002
  • La ta'tazer 'amma fa'alt (Don't apologize for what you did), 2003
  • Unfortunately, It Was Paradise: Selected Poems, 2003. Translations by Munir Akash, Caroyln Forché and others
  • al-A'amal al-jadida (The new works), 2004. A selection of Darwish's recent works
  • al-A'amal al-oula (The early works), 2005. Three volumes, a selection of Darwish's early works
  • Ka-zahr el-lawz aw ab'ad (Same as almond flowers or farther), 2005
  • The Butterfly's Burden, 2007 (Copper Canyon Press) (translation by Fady Joudah)

গদ্য[সম্পাদনা]

  • Shai'on 'an al-wattan (Something about the homeland), 1971
  • Wada'an ayatuha al-harb, wada'an ayuha al-salaam (Farewell, war, farewell, peace), 1974
  • Yawmiyyat al-hozn al-'aadi (Diary of the usual sadness), 1973 (Turkish translation, 2009 by Hakan Özkan [১])
  • Dhakirah li-al-nisyan (Memory for Forgetfulness), 1987. English translation 1995 by Ibrahim Muhawi
  • Fi wasf halatina (Describing our condition), 1987
  • al-Rasa'il (The Letters), 1990. Joint work with Samih al-Qasim
  • Aabiroon fi kalamen 'aaber (Bypassers in bypassing words), 1991
  • Memory for Forgetfulness, 1995 (University of California Press) (translated by Ibrahim Muhawi)
  • Fi hadrat al-ghiyab (In the presence of absence), 2006
  • athar alfarasha (A River Dies of Thirst: journals), 2009 (Archipelago Books) (translated by Catherine Cobham)

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  • David Garrow, Bearing the Cross: Martin Luther King, Jr., and the Southern Christian Leadership Conference (1989)
  • Kirk, John A., ed. Martin Luther King Jr. and the Civil Rights Movement: Controversies and Debates (2007). 224 pp.
  • Flip Schulke and Penelope McPhee, King Remembered, Foreword by Jesse Jackson (1986)
  • Nick Kotz, Judgment Days: Lyndon Baines Johnson, Martin Luther King Jr., and the Laws that Changed America (2005)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Silverstein, Richard (14 August 2008)। "The poetry of loss"The Guardian (London)। সংগৃহীত 12 May 2010 
  2. New York Times 19 September 1988 Waiting, Forever, for Mr. Arafat
  3. New York Times 15 May 1998 Mideast Turmoil: In Jerusalem; Israeli Police In a Clash With Arabs by Joel Greenberg
  4. The Progressive May 2002 Mahmoud Darwish: Palestine's Poet of Exile By Nathalie Handal
  5. Tikun Olam Aug 10th, 2008 Mahmoud Darwish, Palestine’s Greatest Poet, Dies by Richard Silverstein
  6. al Jazeera.net 10 August 2008 Palestinian poet Darwish dies
  • Gavrilin, Vyacheslav Sportsmen of the Soviet Union

বহিসংযোগ[সম্পাদনা]