মার্ভ হিউজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মার্ভিন হিউজ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম মার্ভিন গ্রিগোরি হিউজ
জন্ম (১৯৬১-১১-২৩) ২৩ নভেম্বর ১৯৬১ (বয়স ৫৩)
ইউরোয়া, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
ডাকনাম ফ্রুটফ্লাই
ব্যাটিংয়ের ধরণ ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকা বোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক (ক্যাপ ৩৩২) ১৩ ডিসেম্বর ১৯৮৫ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট ১৭ মার্চ ১৯৯৪ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ১০৪) ১১ ডিসেম্বর ১৯৮৮ বনাম পাকিস্তান
শেষ ওডিআই ২৩ মে ১৯৯৩ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
১৯৯৭/৯৮-১৯৯৮/৯৯ অস্ট্রেলিয়ান ক্যাপিটাল টেরিটরি
১৯৮৩ এসেক্স
১৯৮১/৮২-১৯৯৪/৯৫ ভিক্টোরিয়া
কর্মজীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৫৩ ৩৩ ১৬৫ ৮৮
রানের সংখ্যা ১,০৩২ ১০০ ২,৬৪৯ ২৬৪
ব্যাটিং গড় ১৬.৬৪ ১১.১১ ১৭.৫৪ ৮.৫১
১০০/৫০ –/২ –/– –/৭ –/–
সর্বোচ্চ রান ৭২* ২০ ৭২* ২০
বল করেছে ১২,২৮৫ ১,৬৩৯ ৩৪,৮৮১ ৪,৪৬৬
উইকেট ২১২ ৩৮ ৫৯৩ ১০৫
বোলিং গড় ২৮.৩৮ ২৯.৩৪ ২৯.৩৯ ৩০.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট ২১
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৮/৮৭ ৪/৪৪ ৮/৮৭ ৫/৪১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২৩/– ৬/– ৫৬/– ১৯/–
উত্স: Cricinfo, ২ মে ২০১৪

মার্ভিন গ্রিগোরি হিউজ (জন্ম: ২৩ নভেম্বর, ১৯৬১) ভিক্টোরিয়া প্রদেশের ইউরোয়ায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার। ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিউজ ১৯৮৫ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের হয়ে টেস্ট ও একদিনের আন্তর্জাতিকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি হ্যাট্রিক করেছিলেন। কার্যকরী নিম্ন সারির ব্যাটসম্যান হিসেবেও সফলকাম ছিলেন তিনি। এছাড়াও, ঘরোয়া ক্রিকেটে ভিক্টোরিয়ান বুশরেঞ্জার্স ও অস্ট্রেলিয়ান ক্যাপিটাল টেরিটরি, কাউন্টি ক্রিকেটে এসেক্স, বিশ্বসিরিজ কাপে অস্ট্রেলিয়া এ দলের হয়েও খেলেছেন তিনি।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ভিক্টোরিয়ার ইউরোয়ায় জন্মগ্রহণকারী হিউজ এপোলো বে এলাকায় অবস্থিত কিন্ডারগার্টেনে অধ্যয়ন করেন। কিন্তু তাঁর পরিবার ইউরোয়ায় ফিরে আসলে ১ম বছর এখানেই পার করেন। ওয়েরিবি এলাকায় তৃতীয় গ্রেডে অধ্যয়নকালীন তিনি ক্রীড়ায় জড়িত হন। পঞ্চম গ্রেডে অধ্যয়নকালীন তিনি ফুটবল খেলায় জড়িত হতে বাবার অনুমতি লাভ করেন। বয়সভিত্তিক খেলায় তিনি সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়দের একজন ছিলেন। ফুটবলের প্রতি তাঁর আসক্তি ছিল অসন্তুষ্টিজনক।[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে ফুটসক্রে দলের হয়ে জেলা পর্যায়ের ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ করেন। ফুটসক্রে (বর্তমানে - ফুটসক্রে-এজওয়াটার) পরবর্তীকালে তাদের প্রধান মাঠের নাম তাঁর সম্মানে নামাঙ্কিত করে মার্ভিন জি. হিউজ ওভাল রাখে। ১৯৮১-৮২ মৌসুমে ভিক্টোরিয়ার পক্ষে ক্রিকেট খেলার জন্য নির্বাচিত হন ও সাউথ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তাঁর অভিষেক ঘটে।

১৯৮৫-৮৬ মৌসুমে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট খেলায় অভিষেক ঘটে। ঐ খেলায় তিনি ১২৩ রানের বিনিময়ে ১ উইকেট লাভ করেন। পরের বছর অ্যাশেজ সিরিজে অংশগ্রহণের পূর্ব-পর্যন্ত অন্য কোন টেস্টে খেলার জন্য নির্বাচিত হননি। হিউজ তাঁর সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ৫৩ টেস্টে খেলে ২১২ উইকেট লাভ করেছেন। এছাড়াও, ৩৩টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করে ৩৮ উইকেট দখল করেন।

সর্ববৃহৎ সাফল্য হিসেবে ছিল ১৯৮৮-৮৯ মৌসুমে পার্থের ওয়াকা গ্রাউন্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হ্যাট্রিক লাভ করা। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে একমাত্র বোলাররূপে তিনি একটি টেস্ট হ্যাট্রিক করতে তিন ওভারের ছোঁয়া লাগিয়েছেন ও সময় নিয়েছেন দুইদিন। হ্যাট্রিক পূরণের লক্ষ্যে প্রথম উইকেট পান তাঁর ব্যক্তিগত ৩৬তম ওভারের শেষ বলে কার্টলি অ্যামব্রোসকে কট-আউটের মাধ্যমে। ব্যক্তিগত ৩৭তম ওভারের প্রথম বলে প্যাট্রিক প্যাটারসন আউট করলে প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসের সমাপ্তি ঘটে। পরদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান গর্ডন গ্রীনিজকে এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে ফেলে তাঁর পরম আকাঙ্খিত হ্যাট্রিক পূর্ণ করেন।[২] ঐ খেলায় তিনি ৮৭ রানে ৮ উইকেট পেয়েছিলেন। ১৯৯৩ সালের অ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩১ উইকেট লাভ করেছিলেন। টেস্টে দু’টি অর্ধ-শতকসহ সহস্রাধিক রান করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Patrick Keane, in association with Merv Hughes, Merv: the Full Story (Australia: HarperCollinsPublishers, 1997), page 11.
  2. "AUSTRALIA v WEST INDIES 1988–-89: Second Test Match"Wisden 

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  • Patrick Keane, in association with Merv Hughes, Merv: the Full Story (Australia: HarperCollinsPublishers, 1997)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]