মানস জাতীয় উদ্যান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মানস জাতীয় উদ্যান
Manas Wildlife Sanctuary
Manas National Park.jpg
মানস জাতীয় উদ্যানের প্রধান ফটক
মানচিত্রে মানস জাতীয় উদ্যান  Manas Wildlife Sanctuary এর অবস্থান দেখাচ্ছে-এ অবস্থিত
মানচিত্রে মানস জাতীয় উদ্যান  Manas Wildlife Sanctuary এর অবস্থান দেখাচ্ছে
মানস জাতীয় উদ্যান
অবস্থান অসম, ভারত
নিকটবর্তী শহর বরপেটা রোড
স্থানাঙ্ক ২৬°৩০′০″ উত্তর ৯১°৫১′০″ পূর্ব / ২৬.৫০০০০° উত্তর ৯১.৮৫০০০° পূর্ব / 26.50000; 91.85000স্থানাঙ্ক: ২৬°৩০′০″ উত্তর ৯১°৫১′০″ পূর্ব / ২৬.৫০০০০° উত্তর ৯১.৮৫০০০° পূর্ব / 26.50000; 91.85000
আয়তন ৯৫০ বৰ্গ কি.মি.
স্থাপিত ১৯৯০
কর্তৃপক্ষ পরিবেশ ও বন মন্ত্ৰালয় , ভারত সরকার
ওয়েবসাইট http://www.manasassam.org
ধরন: প্ৰাকৃতিক
মানদণ্ড: vii, ix, x
মনোনীত: ১৯৮৫(৯ মবৰ্ষ)
সূত্র নং. ৩৩৮
ৰাজ্যিক দল:  ভারত
অঞ্চল: এছিয়া-পেছিফিক
বিপদাপন্ন: ১৯৯২–২০১১

মানস জাতীয় উদ্যান (ইংরেজি: Manas National Park) আসামের এক অন্যতম রাষ্ট্ৰীয় উদ্যান, ইউনেস্কোর দ্বারা স্বীকৃত প্ৰাকৃতিক বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান (World Heritage site), ব্যাঘ্ৰ প্ৰকল্প সংরক্ষিত বনাঞ্চল (Project Tiger Reserve), হাতি সংরক্ষিত বনাঞ্চল (Elephant Reserve), তথা বায়োস্ফিয়ার রিজাৰ্ভ (Biosphere Reserve)৷ এটি গুয়াহাটি থেকে প্রায় ১৭৬ কিলোমিটার নিকটে বরপেটা জেলার উত্তরাঞ্চলে, ভূটান পৰ্বতের পাদদেশে অবস্থিত। উত্তরে মানস নদী তথা ভূটান রাজ্য, দক্ষিণে বাঁহবাড়ি, পালসিগুরি এবং কাটাঝাড় গাঁও, পশ্চিমে সোণকোষ নদী থেকে পূর্বে ধনশিরি নদী পর্যন্ত এই রাষ্ট্ৰীয় উদ্যানটি বিস্তৃত।। এই জাতীয় উদ্যান ভূটানের রয়েল মানস রাষ্ট্ৰীয় উদ্যানের সাথে সংলগ্ন হয়ে রয়েছে।[১] মানস জাতীয় উদ্যান অধোক্ৰান্তীয় মণ্ডলের অন্তৰ্ভুক্ত এবং এর জলবায়ু ক্ৰান্তীয় ধরণের। এই জাতীয় উদ্যান অনেক বিপন্ন তথা লুপ্ত-প্ৰায় বন্যপ্ৰাণী যেমন (Pygmy Hog), সোনালী বানরের (Golden Langur) আদি বাসস্থান হিসাবে খ্যাত। বুনো মহিষের (Wild Water Buffalo) অন্যতম প্ৰধান আশ্ৰয়স্থল হিসাবেও মানস জাতীয় উদ্যানের খ্যাতি আছে।[২]

নামের উৎস[সম্পাদনা]

ব্রহ্মপুত্র নদের উপনদী মানস এই উদ্যানের মাঝখানে দিয়ে বয়ে যাওয়ার জন্য উদ্যানটির নাম মানস রাষ্ট্রীয় উদ্যান হয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

পূর্বে মানস উদ্যানকে সংরক্ষিত বনাঞ্চল হিসেবে গন্য করা হত। ১৯২৮ সনের ১ অক্টোবরে বন্যপ্রানী অভয়ারন্যের মর্যদা দেওয়া হয়। এই বনাঞ্চলটি গৌরিপুরের রাজা শিকার স্থল হিসেবেও ব্যবহার করিতেন। ১৯৭৩ সনে এখানে ব্যাঘ্র প্রকল্প আরম্ভ করা হয়। ১৯৮৫ সনে ইউনেসকো মানস রাষ্ট্রীয় উদ্যানকে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে ঘোষনা করে ও ১৯৯৫ সনে রাষ্ট্রীয় উদ্যানের মর্যদা প্রদান করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "WWF - Royal Manas National Park, Bhutan"। Panda.org। সংগৃহীত 2013-03-22 
  2. Choudhury, A.U.(2010)The vanishing herds : the wild water buffalo. Gibbon Books, Rhino Foundation, CEPF & COA, Taiwan, Guwahati, India

বহিসংযোগ[সম্পাদনা]