ব্যবস্থাপনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ব্যবস্থাপনা (ইংরেজি: Management) হলো কোন নির্দিষ্ট লক্ষ্য বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে এক বা একাধিক ব্যক্তির সমন্বয়ে গঠিত কোন গোষ্ঠীর উপর কর্তৃত্ব স্থাপন ও নিয়ন্ত্রণ। ব্যবস্থাপনা বলতে মানব সম্পদ, তথ্য-প্রযুক্তি ভান্ডার ও প্রাকৃতিক সম্পদের নিয়ন্ত্রণকেও বোঝানো হয়ে থাকে। ব্যবস্থাপনা বলতে সেই ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকেও বোঝানো যেতে পারে যারা ব্যবস্থাপনা করে থাকে। এটা হতে পারে পারিবারিক জীবন সংক্রান্ত ব্যবস্হাপনা বা পেশাগত দাপ্তরিক ব্যবস্হপনা।

"ব্যবস্থাপনার" কোন সুনির্দিষ্ট সংজ্ঞা নেই। ব্যবস্থাপনা ও এর মূল ফাংশনগুলোকে নিম্নলিখিতভাবে সংজ্ঞায়িত করা যায়ঃ

ব্যবস্থাপনা (Management)[সম্পাদনা]

ব্যবস্থাপনা হল সেই প্রক্রিয়া (process) যা ৫টি ফাংশন (planning, organizing, leading, controlling and coordinating) এর মাধ্যমে কোন প্রতিষ্ঠানের যে লক্ষ্যগুলো থাকে, তা অর্জন করে।

প্রতিষ্ঠান (organization)[সম্পাদনা]

যখন একদল মানুষ একত্রে নিয়মতান্ত্রিক ভাবে (systematic manner) কিছু কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য (objectives) অর্জনের লক্ষ্যে একসাথে কাজ করে তখন তাকে প্রতিষ্ঠান বলে। প্রতিষ্ঠানের ৪টি মূল বিষয় (issue) থাকেঃ ১) Objective, ২) People, ৩) Structure, ৪) Technology

পরিকল্পনা (Planning )[সম্পাদনা]

কোন প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্যগুলো ঠিক করা আর সেগুল অর্জন করার সবচেয়ে ভাল উপায় আগেই ঠিক করে রাখাই পরিকল্পনা (planning)।

সংগঠিত করা (Organizing)[সম্পাদনা]

কোন প্রতিষ্ঠানের পরিকল্পিত লক্ষ্যগুলো অর্জনের জন্য তার সম্পদ (resources) কিভাবে বন্টিত হবে তা ঠিক করা ও সে অনুযায়ী বণ্টন করাই organizing । সম্পদ বলতে মানব সম্পদ (human resource) ও অন্যান্য (non-human resource) বুঝানো হয়েছে। Organizing ঠিকমতো না হলে সম্পদের অপচয় হয়।

নেতৃত্ব (Leading)[সম্পাদনা]

প্রতিষ্ঠানের মানুষ যেন সঠিক ভাবে কাজ করে সে জন্য তাদের প্রভাবিত করা আর প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেওয়াই নেতৃত্ব।

নিয়ন্ত্রণ (Controlling)[সম্পাদনা]

কোন প্রতিষ্ঠান তার পরিকল্পিত পথে লক্ষ্য অর্জনের দিকে সঠিক ভাবে এগিয়ে চালছে, তা নিশ্চিত করাই নিয়ন্ত্রণ।

সমন্বয় (Coordinating)[সম্পাদনা]

একটি প্রতিষ্টানের সমস্ত সম্পদ যেমন মূলধন, মানব সম্পদ, সময়, অবকাঠামো ইত্যাদির মধ্যে সমন্বয় সাধন করা।

হেনরি ফেয়লের অবদান[সম্পাদনা]

আধুনিক ব্যবস্থাপনা কিংবা প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনার জনক হেনরি ফেয়ল হিসেবে পরিচিত হয়ে আছেন। তিনি ফ্রান্সে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মূলত একজন খনি প্রকৌশলী ছিলেন। ১৯ বছর বয়সে ১৯৬০ সালে "কম্প্যাগনি ডি কমেন্ট্রি-ফোরচ্যাম্ব্যু-ডিকেজেভিল" কোম্পানিতে কাজ শুরু করেন এবং ১৮৮৮ সালে ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে পদোন্নতি পান। তখন কোম্পানির আর্থিক মন্দাবস্থায় চলছিল। ১৯১৮ সালে যখন তিনি ঐ পদ থেকে অবসর নেন তখন কোম্পানি একটি দৃঢ় অর্থনৈতিক অবস্থানে ছিল। তিনি ব্যবস্থাপনার ৫টি কার্যাবলি এবং ১৪টি মূল নীতি প্রবর্তন করেন।[১] হেনরি ফেয়ল ১৯১৬ সালে প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনার উপর একটি বই লিখেন যা পরবর্তিতে অন্যান্য লেখকদেরকে ব্যাপকভাবে অনুপ্রাণিত করে।

F.W.Taylor এর অবদান[সম্পাদনা]

ফ্রেদেরিক উইন্সলো টেইলর (Frederic Winslow Taylor: 1856 ~ 1915) Scientific Management এর পিতা বলে স্বীকৃত। তিনি U.S.A তে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি Midvale steel company তে একজন শ্রমিক হিসাবে যোগদান করেন এবং ৬ বছরের মধ্যে তার প্রধান প্রকৌশলী হন।

ব্যবস্থাপনার উদ্দেশ্য[সম্পাদনা]

মুখ্য উদ্দেশ্য[সম্পাদনা]

  • মুনাফা অর্জন
  • মালিকের কল্যাণ
  • কর্মীদের কল্যাণ
  • অস্তিত্ব রক্ষা

গৌণ উদ্দেশ্য[সম্পাদনা]

  • উপকরনাদির সর্বোত্তম ব্যবহার
  • উপকরনাদির উন্নয়ন
  • সম্পর্কোন্নয়ন
  • উত্‍পাদনশীলতা বৃদ্ধি
  • নীতিমালা প্রনয়ন
  • উত্‍পাদন
  • মানোন্নয়ন
  • উদ্ভাবন
  • কর্মী পরিচালনা
  • সামাজিক দায়িত্ব পালন
  • বাজার সম্প্রসারন
  • সুস্থ কার্যপরিবেশ সৃষ্টি

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Book: The History of Management Thoughts by Claude S. George Jr

বাংলায় ব্যবস্থাপনা শিক্ষা ~ মোহাম্মদ সোহেল রেজা