বাগমারা উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বাগমারা বাংলাদেশের রাজশাহী জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

ইতিহাস[সম্পাদনা]

উত্তর বঙ্গ রাজশাহীর এক গৌরব গাঁথা স্থান হচ্ছে বাগমারা উপজেলা। কথিত আছে এখানে এক সময় বন-জঙ্গলে পরিপূর্ণ ছিল। শোনা যায় বৃটিশ আমলে বিসত্মীর্ণ বন-জঙ্গল কেটে জনবসতি গড়ে উঠায় উপজেলার নামকরণ হয় ‘‘বাগমারা’’। এছাড়াও কথিত আছে বর্তমান বাগমারা থানা ভবনের জমির উপর বিরাট একটি বাগান ছিল। বাগানটি কেটে থানা ভবন নির্মাণের কারণেও অঞ্চলটি ‘‘বাগমারা’’ নামে পরিচিতি পায়। বাগমারার প্রাচীন জায়গা হিসেবে তাহেরপুর দেশ ও বিদেশে পরিচিতি লাভ করে। জানা যায় বাংলার বার ভূঁইয়ার অন্যতম তাহের ভূঁইয়া সদলবলে তাহেরপুরে আসেন এবং তাঁর নামানুসারে ‘‘তাহেরপুর’’ নামকরণ হয়। তাহের ভূঁইয়া ইংরেজ শাসকদের খাজনা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ইংরেজ সেনাবাহনী তাহের ভূঁইয়াকে যুদ্ধের মাধ্যমে পরাজিত করে রাজা কংস নারায়ণকে খাজনার বিনিময়ে তাহেরপুরের রাজত্ব প্রদান করে। অনুমান প্রায় ৫৭০ বছর আগে রাজা কংস নারায়ণ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম শারদীয় দূর্গোৎসব পালন করেন। তখন থেকেই প্রতি বছর হিন্দু ধর্মে বিশ্বাসীরা তাদের ধর্মের প্রধান উৎসব হিসেবে শারদীয় দূর্গাপূজা পালন করে আসছে। বাগমারা উপজেলা প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৩ সালে। ঐতিহাসিক স্থানের মধ্যে তাহেরপুর এবং বীরকুৎসা উল্লেখযোগ্য।

অবস্থান[সম্পাদনা]

বাগমারা উপজেলার উত্তরে নওগাঁ জেলার মান্দা ও আত্রাই উপজেলা, দক্ষিণে দূর্গাপুর ও পুঠিয়া উপজেলা, পূর্বে নাটোর সদর ও আত্রাই উপজেলা এবং পশ্চিমে মোহনপুর ও মান্দা উপজেলা। উপজেলার আয়তন ৩৬৬.৩০ বর্গ কিলোমিটার। এ উপজেলাটি ২৪ডিগ্রী ৩০ফিট ও ২৪ডিগ্রী ৪১ফিট উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৮ডিগ্রী ৪১ফিট ও ৮৮ডিগ্রী ৫৭ফিট পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত। বাগমারা উপজেলাটি রাজশাহী শহর হতে প্রায় ৫৫ কিলোমিটার উত্তর পূর্বে অবস্থিত। ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভা নিয়ে এ উপজেলা গঠিত। পৌরসভা দুটি হচ্ছে তাহেরপুর ও ভবানীগঞ্জ।

অবকাঠামোঃ

বাগমারা উপজেলা সদর ভবানীগঞ্জে অবস্থিত।

উপজেলা ভূমি অফিস ০১টি

ইউনিয়ন ভূমি অফিস ০৭টি

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কমপ্লেক্স ১০টি

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য উপকেন্দ্র ০৬টি

পুলিশ ক্যামপ ০৩টি, তদন্ত- কেন্দ্র ০২টি

বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘর কমপ্লেক্স ১ টি

বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘর কমপ্লেক্সঃ ১৯৪৯ সালে যখন দলটি (বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ) ইস্ট পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় তখন থেকে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হিসেবে রূপান্তর পর্যন্ত দলটিকে ভাঙ্গিয়ে অনেকে পাহাড় সমান সুনাম, টাকা, সম্পদ বা নেতা হয়েছেন। কিন্তু দলটির প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের বাহিরে কেউ (বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ) এর জন্য স্থায়ী কোন সম্পদ গড়ে তোলার উদ্দোগ বা আগ্রহ প্রকাশ করেননি। ৫৫ রাজশাহী-(বাগমারা-৪) এমপি ইঞ্জি: মোঃ এনামুল হক সেখানে গড়ে তোলেছেন “বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘর কমপ্লেক্স’’ নামে একটি ভবন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ-এর সর্বকালের সর্ববৃহৎ পাটি অফিস নামে পরিচিত লাভ করেছে ভবনটি।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • মোঃ এনামুল হক, সংসদ সদস্য।

নদ-নদী/বিল[সম্পাদনা]

বারনই নদী, রাণী নদী, কম্পো নদী, কোলাবিল, বিল কালাই, বিলশনি, বিল সূতি, বিল মাললী, জোকার বিল, যশোবিল