বলিভিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(বলিভিয়ার সামরিক বাহিনী থেকে ঘুরে এসেছে)
República de Bolivia
রেপুব্লিকা দ়ে বোলিব্‌য়া
Bulibya Republika
বুলিব্‌য়্যা রেপুব্লিক্যা
Wuliwya Suyu
উলিউয়া সুয়ু
বলিভিয়া প্রজাতন্ত্র
পতাকা কোট অফ আর্মস
নীতিবাক্য
"¡La unión es la fuerza!"  (স্পেনীয়)
"Unity is strength!"
জাতীয় সঙ্গীত
Bolivianos, el hado propicio  (স্পেনীয়)
রাজধানী সুক্রে (সাংবিধানিক, বিচার বিষয়ক)
১৯°২′ দক্ষিণ ৬৫°১৫′ পশ্চিম / ১৯.০৩৩° দক্ষিণ ৬৫.২৫০° পশ্চিম / -19.033; -65.250

লা পাজ (প্রশাসনিক)
১৬°২৯′ দক্ষিণ ৬৮°৮′ পশ্চিম / ১৬.৪৮৩° দক্ষিণ ৬৮.১৩৩° পশ্চিম / -16.483; -68.133
বৃহত্তম শহর Santa Cruz de la Sierra
১৭°৪৮′ দক্ষিণ ৬৩°১০′ পশ্চিম / ১৭.৮০০° দক্ষিণ ৬৩.১৬৭° পশ্চিম / -17.800; -63.167
রাষ্ট্রীয় ভাষাসমূহ Spanish, Quechua, Aymara
জাতীয়তাসূচক বিশেষণ Bolivian
সরকার Republic
 -  President Evo Morales
Independence
 -  from Spain August 6 1825 
আয়তন
 -  মোট ১ বর্গ কিমি. (n/a)
৪২৪ বর্গ মাইল 
 -  জলভাগ (%) 1.29
জনসংখ্যা
 -  July 2007 আনুমানিক 9,119,152 (84th)
 -   আদমশুমারি 8,857,870 
 -  ঘনত্ব 8.4/বর্গ কিলোমিটার 
২১.৮/বর্গ মাইল
জিডিপি (পিপিপি)  আনুমানিক
 -  মোট $25.684 billion (101st)
 -  মাথাপিছু $2,817 (125th)
জিনি (2002) 60.1 (high
এইচডিআই (2004) বৃদ্ধি 0.692 (medium) (115th)
মুদ্রা Boliviano (BOB)
সময় স্থান (ইউটিসি-4)
ইন্টারনেট টিএলডি .bo
কলিং কোড 591

বলিভিয়া (স্পেনীয়: Bolivia বোলিব‌্‌য়া, কেচুয়া: Bulibya বুলিব্‌য়্যা, আইমারা: Wuliwya উলিউয়া) দক্ষিণ আমেরিকার মধ্যভাগের একটি দেশ। আন্দেস পর্বতমালায় অনেক উঁচুতে অবস্থিত বলে দেশটিকে পৃথিবীর ছাদ নামেও অনেক সময় ডাকা হয়। বলিভিয়াতে আছে বরফাবৃত বহু পর্বতশৃঙ্গ, আর দেশটির উন্মুক্ত মালভূমির উপর দিয়ে বয়ে যায় দুরন্ত হাওয়া। পর্বতমালার পূর্বে রয়েছে সবুজ তৃণভূমি এবং তারও নিম্নে আছে ক্রান্তীয় বনাঞ্চল।

সরকারীভাবে বলিভিয়ার রাজধানীর নাম সুক্রে। তবে লা পাজ দেশটির প্রশাসনিক রাজধানী ও সরকারের প্রধান কর্মস্থল। ৩,৬০০ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত লা পাজ বিশ্বের উচ্চতম রাজধানী।

বলিভিয়া দক্ষিণ আমেরিকার দরিদ্রতম দেশগুলির একটি। দেশের অধিকাংশ লোক আদিবাসী আমেরিকান। কিন্তু একটি ক্ষুদ্র স্পেনীয়ভাষী অভিজাত শ্রেণী ঐতিহ্যগতভাবে দেশটির রাজনীতি ও অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ করে এসেছে এবং দেশের বেশির ভাগ সম্পদ এদের হাতে কুক্ষিগত। প্রথমে আন্দেস পর্বতমালায় প্রাপ্ত খনিজ ছিল এই সম্পদের উৎস। ১৯৯০-এর দশকে শেষের দিকে এসে পেট্রোলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস বলিভিয়ার প্রধান খনিজ সম্পদ। বিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে দেশটি কোকেনের উপকরণ কোকা পাতাও রপ্তানি শুরু করে।

বলিভিয়ার বেশির ভাগ লোক আন্দেস পর্বতমালার দুইটি পর্বতশ্রেণীর মাঝখানে অবস্থিত একটি মালভূমিতে বাস করেন। দেশের এক-তৃতীয়াংশ এলাকা জুড়ে আন্দেস পর্বতমালা অবস্থিত। তবে ১৯৫০-এর দশক থেকে পূর্বের নিচু সমভূমিগুলিতে ধীরে ধীরে ঘনবসতিপূর্ণ জনপদ গড়ে উঠেছে। বিশেষত ঐ এলাকায় খনিজ তেল ও গ্যাসের মজুদ আবিষ্কৃত হবার পর এটি ঘটেছে। এছাড়াও দেশটির উর্বর খামারভূমিগুলি বসতির জন্য খুলে দেওয়া হয়। ২০০০-এর দশকের শুরুতে এই অঞ্চলের প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র সান্তা ক্রুস লা পাজকে ছাড়িয়ে বলিভিয়ার বৃহত্তম শহরে পরিণত হয়।

১৬শ শতক থেকে ১৯শ শতকের শুরু পর্যন্ত বলিভিয়া স্পেনের একটি উপনিবেশ ছিল। ১৮২৫ সালে দেশটি স্বাধীনতা লাভ করে। ১৯৫২ সালে এখানে একটি রাজনৈতিক বিপ্লব ঘটে যার প্রভাব ছিল সুদূরপ্রসারী। বিপ্লবী নেতারা আদিবাসী আমেরিকানদের অধিকতর রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সুযোগ যুবিধা প্রদানের প্রকল্প গ্রহণ করেন। সরকার তাদের ভোট দেবার সুযোগ দেন, এবং পল্লী এলাকাগুলিতে শিক্ষার ব্যবস্থা করেন। বড় বড় জমিদারীগুলি ভেঙে দেয়া হয় এবং আদিবাসী আমেরিকান চাষীদের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জমি দেওয়া হয়। তবে এই সংস্কারগুলি বলিভিয়ার অর্থনৈতিক সমস্যার সমাধান করতে পারেনি। পরবর্তী সরকারগুলি অর্থনীতির বড় অংশ বেসরকারীকরণের চেষ্টা করলেও এখনও বলিভিয়া সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক দিক থেকে একটি অস্থিতিশীল রাষ্ট্র।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রাজনীতি[সম্পাদনা]

ডিপার্টমেন্ট ও প্রদেশসমূহ[সম্পাদনা]

বলিভিয়ার ডিপার্টমেন্টসমূহের মানচিত্র

বলিভিয়া মোট ৯টি ডিপার্মেন্টে (departamentos) বিভক্ত। এর রাজধানীগুলোকে বন্ধনীর মধ্যে দেখানো হয়েছে:

ভূগোল[সম্পাদনা]

Map of Bolivia from the CIA World Factbook.
Colours of Altiplano Boliviano

বলিভিয়ার এলাকার ক্ষেত্রফল ১,০৯৮,৫৮০ বর্গকিলোমিটার। এলাকার দিক থেকে এটি পৃথিবীতে ২৮তম। [১]

১৮৭৯ হতে বলিভিয়া একটি ভূবেষ্টিত (land-locked) দেশ। ঐ বছর চিলির সাথে প্রশান্ত মহাসাগরের যুদ্ধে বলিভিয়া উপকূলবর্তী আন্তোফাগাস্তা এলাকাটির দখল হারায়। তবে প্যারাগুয়ে নদীর মাধ্যমে বলিভিয়া অ্যাটলান্টিক মহাসাগরের সাথে সংযুক্ত।

বলিভিয়ার পরিবেশে ব্যাপক বৈচিত্র রয়েছে। পশ্চিমের পাহাড়ী এলাকা আন্দেজ পর্বতমালায় অবস্থিত। এখানে বলিভীয় আলতিপ্লানো এলাকা রয়েছে। পূর্বের সমতলভূমিতে আমাজন বনাঞ্চল এর চিরহরিৎ (??) বৃক্ষরাজি রয়েছে। বলিভিয়ার সর্বোচ্চ পর্বতশিখর হলো নেভাদো সাজামা যার উচ্চতা ৬৫৪২ মিটার। টিটিকাকা হ্রদ বলিভিয়া ও পেরুর সীমান্তে অবস্থিত। পৃথিবীর বৃহত্তম লবনাক্ত ভূমি সালার দি উইয়ুনি বলিভ্যার দক্ষিণ-পশ্চিম অংশ অবস্থিত।

বলিভিয়ার বৃহৎ শহরগুলোর মধ্যে রয়েছে লা পাজ, এল আলতো, সান্তা ক্রুজ দে লা সিয়েরা, এবং কোচাবাম্বা।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]