ফ্রেডরিক টারম্যান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফ্রেডরিক টারম্যান
জন্ম (১৯০০-০৬-০৭)জুন ৭, ১৯০০
ইংরেজি, ইন্ডিয়ানা
মৃত্যু ডিসেম্বর ১৯, ১৯৮২(১৯৮২-১২-১৯) (৮২ বছর)
বাসস্থান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
জাতীয়তা আমেরিকান
কর্মক্ষেত্র তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল
প্রাক্তন ছাত্র স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার আইইইই মেডেল অব অনার

ফ্রেডরিক টারম্যান (জুন ৭, ১৯০০ - ডিসেম্বর ১৯, ১৯৮২) একজন আমেরিকান শিক্ষাবিদ। তাকে 'সিলিকন ভ্যালি'র জনক বলা হয়। [১][২][৩]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

টারম্যান স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯২০ সালে রসায়নে ব্যাচেলর ডিগ্রি এবং ১৯২২ সালে তড়িৎ প্রকৌশলে মাস্টার ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ১৯২৪ সালে ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি থেকে তড়িৎ প্রকৌশলে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন। [৪]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯২৫ সালে টারম্যান স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এ প্রকৌশল অনুষদের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগে শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ১৯৪২ সালে তিনি পূর্ণ অধ্যাপকে উন্নীত হন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় টারম্যান হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের রেডিও রিসার্চ ল্যাবরেটরীতে ৮৫০ এর বেশি সদস্যের দল পরিচালনা করেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর টারম্যান স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এ ফিরে আসেন এবং তাকে প্রকৌশল অনুষদের ডীন হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। ১৯৫১ সালে স্ট্যানফোর্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক (বর্তমানে স্ট্যানফোর্ড রিসার্চ পার্ক) গঠনে অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করেন। ১৯৫৫ থেকে ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত তিনি স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রভোস্টের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব ইঞ্জিনিয়ারিং গঠনেও অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করেন।

বই[সম্পাদনা]

টারম্যানের লেখা Radio Engineering বইটি তড়িৎ ও বেতার প্রকৌশলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি বই। বইটি ১৯৩২ সালে প্রকাশিত হয়। ১৯৩৮ সালে ব্যাপক সংশোধনসহ বইটির দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয়। ১৯৪৭ সালে বইটির তৃতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয়। ১৯৫৫ সালে Electronic and Radio Engineering নামে বইটির চতুর্থ সংস্করণ প্রকাশিত হয়।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

সম্মানসূচক ডক্টরেট[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]