পিরালী ব্রাহ্মণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

পিরালী ব্রাহ্মণ বা পীরালি ব্রাহ্মণ বাংলাব্রাহ্মণ সমাজের একটি "থাক" বা উপসম্প্রদায়। ভারতবাংলাদেশ উভয় রাষ্ট্রেই এই থাকের ব্রাহ্মণদের দেখা যায়। উল্লেখ্য, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সহ ঠাকুর পরিবারের সদস্যরা ছিলেন এই থাকভুক্ত ব্রাহ্মণ।

ঐতিহাসিকভাবে এই "পিরালী" (বা "পীরালি") শব্দটি অপবাদমূলক ও নিন্দাসূচক অর্থদ্যোতক। নগেন্দ্রনাথ বসুর "বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস" গ্রন্থের ব্রাহ্মণ কাণ্ডের তৃতীয় ভাগে ব্যোমকেশ মুস্তফী "পিরালী ব্রাহ্মণ বিবরণ" প্রথম খণ্ডে কুলাচার্য নীলমণি ভট্টের কারিকা অবলম্বনে পিরালী থাকের উৎপত্তির যে বিবরণটি দিয়েছেন তা নিম্নরূপ: যশোর জেলার চেঙ্গুটিয়া পরগণার গুড়-বংশীয় জমিদার দক্ষিণারঞ্জন রায়চৌধুরীর চার পুত্র কামদেব, জয়দেব, রতিদেব ও শুকদেবের মধ্যে প্রথম দুই জন স্থানীয় শাসক মামুদ তাহির বা পীর আলির প্রভাবে ইসলামে ধর্মান্তরিত হন।[১] এর ফলে তাঁদের পুরো পরিবার, এমনকি যাঁরা ধর্মান্তরিত হননি তাঁরাও সমাজচ্যুত হন। ব্যোমকেশ মুস্তফীর অনুমান, এই ঘটনা ঘটে পঞ্চদশ শতাব্দীর মাঝামাঝি কোনো সময়ে। রবীন্দ্রনাথের পূর্বপুরুষ পিঠাভোগের জমিদার জগন্নাথ কুশারী শুকদেবের কন্যাকে বিবাহ করে পিরালী থাকভুক্ত হয়েছিলেন।[২][৩]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. প্রশান্তকুমার পাল, "রবিজীবনী" প্রথম খণ্ড, ভূর্জপত্র, কলকাতা, ১৩৮৯ বঙ্গাব্দ, পৃষ্ঠা ৪
  2. Thompson, Jr., E (1926), Rabindranath Tagore: Poet and Dramatist, Read, পৃ: 12, আইএসবিএন 1-4067-8927-5, "The [Tagores] are Pirili Brahmans [sic]; that is, outcastes, as having supposedly eaten with Musalmans in a former day. No strictly orthodox Brahman would eat or inter-marry with them." 
  3. (Dutta & Robinson 1995, পৃ. 17-18).

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Dutta, K & A Robinson (1995), Rabindranath Tagore: The Myriad-Minded Man, St. Martin's Press, ISBN 0-312-14030-4.