পিয়ের গাসেঁদি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পিয়ের গাসেঁদি, এঁকেছেন Louis Édouard Rioult

পিয়ের গাসেঁদি (ফরাসি ভাষায়: Pierre Gassendi) (২২শে জানুয়ারি, ১৫৯২ - ২৪শে অক্টোবর, ১৬৫৫) ছিলেন ফরাসি দার্শনিক, বিজ্ঞানী ও গণিতবিদ। তার জন্ম ফ্রান্সের Provence অঞ্চলে Digne-এর নিকটে Champtercier নামক স্থানে এক দরিদ্র দম্পতির ঘরে। খুব কম বয়সে তার মানসিক শক্তির বহিঃপ্রকাশ ঘটে এবং পড়াশোনার জন্য তাকে Digne-এর কলেজে প্রেরণ করা হয়। ভাষা ও গণিতে তিনি বিশেষ আগ্রহ পোষণ করেছিলেন এবং কথিত আছে, মাত্র ১৬ বছর বয়সে তাকে কলেজে অলঙ্কার শাস্ত্রের উপর বক্তৃতা করতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এর পরপরই তিনি Aix বিশ্ববিদ্যালয়ে দর্শন অধ্যয়নের জন্য ভর্তি হন। ১৬১২ সালে তাকে Digne-এর কলেজে ধর্মতত্ত্ব বিষয়ের উপর লেকচার দিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়। এর ৪ বছর পর Avignon-এ ধর্মতত্ত্বের উপর ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন এবং ১৬১৭ সালে খ্রিস্ট ধর্মের পুণ্য শপথ গ্রহণ করেন। অবশ্য একই বছর Aix-এ দর্শনের অধ্যাপক পদে যোগ দেন এবং এরপর ধীরে ধীরে ধর্মতত্ত্ব থেকে সরে আসেন।

তিনি প্রধানত এরিস্টটলীয় দর্শন পড়াতেন এবং পড়াতে গিয়ে যতদূর সম্ভব অর্থোডক্স পন্থা অবলম্বন করতেন। অবশ্য একইসাথে তিনি মনোযোগ দিয়ে গালিলেও গালিলেই এবং ইয়োহানেস কেপলারের আবিষ্কারগুলো অধ্যয়ন করেন এবং দিনদিন পেরিপ্যাটেটিক দর্শনের (যার প্রতিষ্ঠাতা এরিস্টটল নিজে) প্রতি অসন্তুষ্ট হতে থাকেন। যে যুগটাই ছিল এরিস্টটলবাদী দর্শনধারার বিরুদ্ধে কথা বলার যুগ এবং গাসেঁদি যুগের সাথে তাল মিলিয়েই চলছিলেন। তিনি অবশ্য এরিস্টটলীয় দর্শনের বিরুদ্ধে কথা বললেও প্রথম দিকে তেমন কিছু প্রকাশ করেননি। কিন্তু ১৬২৪ সালে Aix ত্যাগ করার পর তার Exercitationes paradoxicae adversus Aristoteleos গ্রন্থের প্রথম খণ্ড প্রকাশ করেন। দ্বিতীয় খণ্ডের কিছুটা ১৬৫৯ সালে তার মৃত্যুর পর প্রকাশিত হয়, আরও ৫টি খণ্ড প্রকাশিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ফ্রানচেস্কো পাত্রিৎজি-র Discussiones Peripateticae প্রকাশের পর তিনি ভেবেছিলেন তার এতো পরিশ্রম করার প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়েছে।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Gassendi, Encyclopædia Britannica Eleventh Edition, 1911