পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিম
সংরক্ষণ অবস্থা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
পর্ব: Chordata
উপ-পর্ব: Vertebrata
শ্রেণী: Reptilia
বর্গ: Testudines
পরিবার: Trionychidae
গণ: Amyda
প্রজাতি: A. cartilaginea
দ্বিপদী নাম
Amyda cartilaginea
(Boddaert, 1770)
প্রতিশব্দ[২]
  • Testudo cartilaginea Boddaert, 1770
  • Testudo membranacea Blumenbach, 1779
  • Testudo boddaerti Schneider, 1787
  • Testudo bodderti Schneider, 1787 (ex errore)
  • Amyda javanica Schweigger, 1809 (nomen nudum)
  • Trionyx javanicus Geoffroy Saint-Hilaire, 1809
  • Trionyx stellatus Geoffroy Saint-Hilaire, 1810(nomen novum)
  • Aspidonectes javanicus Wagler, 1830
  • Gymnopus javanicus A.M.C. Duméril & Bibron, 1835
  • Gymnopus cartilaginea Cantor, 1847
  • Trionyx cariniferus Gray, 1856
  • Trionyx ornatus Gray, 1861
  • Aspilus cariniferus Gray, 1864
  • Aspilus ornatus Gray, 1864
  • Aspilus punctulatus Gray, 1864
  • Potamochelys stellatus Gray, 1864
  • Trionyx phayrei Theobald, 1868
  • Trionyx jeudi Gray, 1869
  • Aspilus javanicus Gray, 1873
  • Ida ornata Gray, 1873
  • Trionyx ephippium Theobald, 1875
  • Trionyx cartilagineus Boulenger, 1889
  • Trionyx phayrii Boulenger, 1889 (ex errore)
  • Aspidonectes cartilagineus Baur, 1893
  • Aspidonectes phayrei Baur, 1893
  • Potamochelys cartilagineus O.P. Hay, 1904
  • Potamochelys javanicus O.P. Hay, 1904
  • Amyda cartilaginea Barbour, 1912
  • Amyda phayrii Barbour, 1912
  • Trionyx boddaertii Bourret, 1941 (ex errore)
  • Trionyx carinifera Bourret, 1941
  • Trionyx cartilagneus Thelwall, 1971 (ex errore)
  • Testudo boddaerta Auffenberg, 1974 (ex errore)
  • Trionyx cartilaginosis Auffenberg, 1974 (ex errore)
  • Trionyx cartilaginosus Auffenberg, 1974 (ex errore)
  • Tryonyx cartilageneus Nutaphand, 1979 (ex errore)
  • Trionyx cartilageneus Nutaphand, 1979
  • Trionyx cartlageneus Nutaphand, 1979 (ex errore)
  • Trionyx nakornsrithammarajensis Nutaphand, 1979
  • Trionyx cartilaginous Chkhikvadze, 1987 (ex errore)
  • Amyda nakornsrithammarajensis Ernst & Barbour, 1989
  • Amyda nakornsrithammarajensis Stubbs, 1989
  • Trionyx cartilageneus nakorn Nutaphand, 1990
  • Trionyx cartilageneus cartilageneus Nutaphand, 1990
  • Amyda cartilaginae Nöllert, 1992 (ex errore)
  • Trionyx cartilagineus nakorn Obst, 1996
  • Trionix cartilagineus Richard, 1999

পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিম (বৈজ্ঞানিক নাম: Amyda cartilaginea) Trionychidae (ট্রায়োনিকিডি) গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Amyda (অ্যামিডা) গণের অন্তর্গত এক প্রজাতির নরম খোলের মাঝারি আকারের কাছিম। এর ইংরেজি নাম Asiatic Softshell Turtle। ১৭৭০ খ্রিস্টাব্দে পিটের বোদ্যারত এ প্রজাতির প্রথম বৈজ্ঞানিক নামকরণ করেন Testudo cartilaginea। স্বভাবে এটি নিশাচর[৩] বিগত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা ক্রমেই আশঙ্কাজনক হারে কমছে। সেকারণে আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে সংকটাপন্ন বলে ঘোষণা করেছে।[১]

বিস্তৃতি[সম্পাদনা]

পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিম ভারতের মিজোরামমায়ানমার থেকে শুরু করে থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, লাওস, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া (সুমাত্রা, জাভাবোর্নিও), সিঙ্গাপুর ও ব্রুনাই পর্যন্ত বিস্তৃত।[১][৩] ২০১১ সালের নভেম্বর মাসে বাংলাদেশের বান্দরবান জেলার রেমাক্রি খালে প্রথমবারের মত এটির সন্ধান পাওয়া যায়।[৪]

Amyda cartilaginea (Trionyx cartilagineus), সেন্ট পিটার্সবার্গ জাদুঘর

বিবরণ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের মিঠাপানিজাত ধুম কচ্ছপ এবং কালুয়া কচ্ছপের মতো দেখতে হলেও পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিম আকারে বেশ ছোট ও চ্যাপ্টা আকৃতির। এর দৈর্ঘ্য সর্বোচ্চ ৮৩ সেন্টিমিটার। খোলসের ওপরের অংশের সামনের প্রান্তে অবস্থিত এক সারি গোলাকার গুটিকা (টিউবারকল) এবং সরু ও লম্বা নাক দেখে সহজেই অন্য সব কাছিম প্রজাতি থেকে একে আলাদা করে চেনা সম্ভব। পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিমের ওপরের অংশ ধূসর থেকে জলপাই রং হয়ে থাকে; নিচের অংশ সাদা অথবা হালকা ধূসর হয়ে থাকে। কম বয়সী কাছিমের ওপরের অংশে অনেক কালো ও হলদে ফোটা এবং উঁচু উঁচু লম্বাটে দাগ থাকে। এই দাগ কালক্রমে ধীরে ধীরে খোলসের ওপরের ত্বকের সঙ্গে মিশে যায়।[৪] পুরুষ কাছিমের খোলকের নিচের অংশ সাদা, স্ত্রী কাছিমের ধূসর।[৩]

স্বভাব[সম্পাদনা]

পাহাড়ি তরুণাস্থি কাছিমের প্রধান খাদ্য পাহাড়ি নদী ও জলাশয়ের মাছ, ব্যাঙ, ব্যাঙাচি, চিংড়ি ও বিভিন্ন প্রকার জলজ পোকামাকড়।[৩] এরা নদী বা জলাশয়ের ধারে গর্ত খুঁড়ে বছরে তিন-চারবার ডিম পাড়ে। ডিমের সংখ্যা ৫ থেকে ৩০টি। ডিম ফুটে বাচ্চা বের হতে সময় লাগে ১৩০ দিনে থেকে১৪০ দিন পর্যন্ত অর্থাৎ ৪ থেকে ৫ মাস।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ "Amyda cartilaginea"। The IUCN Red List of Threatened Species। সংগৃহীত 2013-04-10 
  2. Fritz, Uwe; Peter Havaš (2007)। "Checklist of Chelonians of the World"Vertebrate Zoology 57 (2): 303–305। ISSN 18640-5755। আসল থেকে 2010-12-17-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত 29 May 2012  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ ৩.৩ Das, Indraneil. 2006. A Photographic Guide to Snakes and Other Reptiles of Borneo. Ralph Curtis Books. Sanibel Island, Florida. 144 pp. ISBN 0-88359-061-1. (Amyda cartilaginea, p. 135.)
  4. ৪.০ ৪.১ ৪.২ মনিরুল খান (২৩-১২-২০১১)। "নতুন প্রজাতির কাছিম"। ঢাকা। দৈনিক প্রথম আলো। সংগৃহীত ১৫ জুলাই, ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]