নীল নদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নীল নদ
মিশরে নীল নদের দৃশ্য
উৎস আফ্রিকা
মোহনা ভূমধ্যসাগর
অববাহিকার দেশ সুদান, বুরুন্ডি, রুয়ান্ডা, প্রজাতন্ত্রী কঙ্গো, তাঞ্জানিয়া, কেনিয়া, উগান্ডা, ইথিওপিয়া, মিশর
দৈর্ঘ্য 6,650 km (4,132 mi)
উত্সের উচ্চতা 1,134 m (3,721 ft)
গড় নিষ্কাশন 2,830 m³/s (99,956 ft³/s)
অববাহিকা আয়তন 3,400,000 km² (1,312,740 mi²)

নীল নদ (আরবি: النيل আন-নীল, মিশরীয় আরবি উপভাষায় el neil; প্রাচীন মিশরীয় ভাষা ইতেরু), আফ্রিকা মহাদেশের একটি নদী। এটি বিশ্বের দীর্ঘতম নদী। এর দুইটি উপনদী রয়েছে, শ্বেত নীল নদনীলাভ নীল নদ। এর মধ্যে শ্বেত নীল নদ দীর্ঘতর। শ্বেত নীল নদ আফ্রিকার মধ্যভাগের হ্রদ অঞ্চল হতে উৎপন্ন হয়েছে। এর সর্বদক্ষিণের উৎস হল দক্ষিণ রুয়ান্ডাতে ২°১৬′৫৫.৯২″ দক্ষিণ ২৯°১৯′৫২.৩২″ পূর্ব / ২.২৮২২০০০° দক্ষিণ ২৯.৩৩১২০০০° পূর্ব / -2.2822000; 29.3312000, এবং এটি এখান থেকে উত্তর দিকে তাঞ্জানিয়া, লেক ভিক্টোরিয়া, উগান্ডা, ও দক্ষিণ সুদানের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। নীলাভ নীল নদ ইথিওপিয়ার তানা হ্রদ হতে উৎপন্ন হয়ে পূর্ব দিকে প্রবাহিত হয়ে সুদানে প্রবেশ করেছে। দুইটি উপনদী সুদানের রাজধানী খার্তুমের নিকটে মিলিত হয়েছে।

নীলের উত্তরাংশ সুদানে শুরু হয়ে মিশরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত, প্রায় পুরোটাই মরুভূমির মধ্য দিয়ে। মিশরের সভ্যতা প্রাচীন কাল থেকেই নীলের উপর নির্ভরশীল। মিশরের জন্সংখার অধিকাংশ এবং বেশিরভাগ শহরের অবস্থান আসওয়ানের উত্তরে নীল নদের উপত্যকায়। প্রাচীন মিশরের প্রায় সমস্ত সাংস্কৃতিক এবং ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাও এর তীরেই অবস্থিত। বিশাল ব-দ্বীপ সৃষ্টি করে নীল নদ ভূমধ্যসাগরে গিয়ে মিশেছে।