নিকোলাস হল্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নিকোলাস হল্ট
Hoult.jpg
২০০৯ সালের সেপ্টেম্বরে ৬৬তম ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে হল্ট
জন্ম নিকোলাস কারাডক হল্ট
পেশা অভিনেতা
কার্যকাল ১৯৯৬-বর্তমান

নিকোলাস কারাডক হল্ট (ইংরেজি: Nicholas Caradoc Hoult)[১] (জন্ম ৭ ডিসেম্বর, ১৯৮৯)[২][৩][৪] হলেন একজন ইংরেজ অভিনেতা। তিনি ২০০২ সালে অ্যাবাউট আ বয় চলচ্চিত্রে মার্কাস ব্রিউয়ার এবং স্কিনস নামক ই৪ টিভি সিরিজে টনি স্টোনেম চরিত্রে অভিনয়ের জন্য খ্যাতি অর্জন করেছেন।

প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

হল্ট বার্কশায়ারের ওয়ার্কিংহ্যামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি পিয়ানো শিক্ষক গ্লেনিস হল্ট (ব্রাউন) ও ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পাইলট রজার হল্টের চার সন্তানের মধ্যে তৃতীয়।[১][৫][৬] তাঁর ভাইবোনেদের নাম জেমস, রোজি ও ক্ল্যারিস্টা। অভিনেত্রী ডেম অ্যানা নিজেল তাঁর আত্মীয়া।[৬] তিনি বার্কশায়ারের ব্র্যাকনেলের রেনলাফ চার্চ অফ ইংল্যান্ড স্কুলে পড়াশোনা করেছিলেন। দ্বাদশ বর্ষে তিনি স্কুল ছেড়ে অভিনয় কর্মজীবনে মনোনিবেশ করেন।[৭]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিন বছর বয়সে হল্ট মায়ের সঙ্গে একটি নাটক দেখতে গিয়েছিলেন। সেই সময় নাট্যপরিচালক তাঁকে দেখতে পান এবং নাটকে অভিনয় করার পরামর্শ দেন।[৮] তিনি সিলভিয়া ইয়ং স্টেজ স্কুলে অভিনয় শেখেন। ১৯৯৬ সালে ইন্টিমেট রিলেশনস ছবিতে প্রথম বাণিজ্যিকভাবে অভিনয় করেন। এরপর তিনি মূলত টেলিভিশনে অভিনয় করতেন। পরে অ্যাবাউট আ বয় চলচ্চিত্রে বারো বছর বয়সী মার্কাসের ভূমিকায় অভিনয় করেন।

সিক্সথ ফর্মে থাকাকালীন তিনি ই৪ ড্রামা স্কিনস-এর প্রথম দুটি সিরিজে টনি স্টোমেনের ভূমিকায় অভিনয় করেন। এই চরিত্রে অভিনয় করে হল্ট ওয়াকারস হোম গ্রোন ট্যালেন্ট অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন।[৯]

২০০৯ সালের অগস্ট মাসে হল্ট "হেল্প গিভ দেম আ ভয়েস" প্রচার কর্মসূচিতে অংশ নেন। এই প্রচার কর্মসূচিকে সাহায্য করার জন্য মুক্তিপ্রাপ্ত একটি শর্ট ফিল্মে তিনি এক কিশোরীর ভূমিকায় অভিনয়ও করেছিলেন। ২০০৯ সালেই তিনি টম ফোর্ডের চলচ্চিত্র আ সিঙ্গল ম্যান-এ অভিনয় করেন। এই ছবিটি ক্রিস্টোফার ইশারউড রচিত একই নামের একটি উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়।

২০১০ সালের মার্চ মাসে তিনি দ্য মিডনাইট ব্লাস্টের একটি ভিডিওতে অভিনয় করেন।[১০] ২০১০ সালের ৮ জুলাই, ঘোষণা করা হয় ম্যাথিউ ভন পরিচালিত এক্স-মেন স্পিন-অফ চলচ্চিত্র এক্স-মেন: ফার্স্ট ক্লাস-এ তিনি বিস্ট চরিত্রে অভিনয় করবেন।[১১] এমটিভি নেটওয়ার্কের নেক্সটমুভি ডট কম 'ব্রেকআউট স্টারস টু ওয়াচ ফর ইন ২০১১' তালিকায় তাঁর নাম অন্তর্ভুক্ত করে।[১২]

২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে জানা গিয়েছে যে হল্টকে জ্যাক দ্য জায়েন্ট কিলার ছবির প্রধান চরিত্রটিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।[১৩]

ফিল্মোগ্রাফি[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা দ্রষ্টব্য
১৯৯৬ ইন্টিমেট রিলেশনস ববি
২০০২ অ্যাবাউট আ বয় মার্কাস ব্রিউয়ার ফিনিক্স ফিল্ম ক্রিটিকস সোসাইটি অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ইউথ অ্যাকটর
মনোনীত — ব্রডকাস্ট ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ইয়াং পারফরমার
২০০৫ ওয়াহ-ওয়াহ রালফ কম্পটন
২০০৬ দি ওয়েদার ম্যান মাইক স্প্রিটজেল
২০০৬ কিডাল্টহুড ব্লেক
২০০৯ আ সিঙ্গল ম্যান কেনি পটার
২০১০ ক্ল্যাশ অফ দ্য টাইটানস ইউসেবায়োস
২০১১ এক্স-মেন: ফার্স্ট ক্লাস হ্যাঙ্ক ম্যাককয় / বিস্ট
২০১১ স্কিনস[১৪] টনি স্টোমেন
২০১২ জ্যাক দ্য জায়েন্ট কিলার জ্যাক

টেলিভিশন অভিনয়[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা দ্রষ্টব্য
১৯৯৭ মি. হোয়াইট গোজ টু ওয়েস্টমিনস্টার জন টেলিভিশন চলচ্চিত্র
২০০১ ওয়াকিং দ্য ডেড ম্যাক্স ব্রাইসন সিরিজ ১ এপিসোড ৭-৮ "আ সিম্পল স্যাক্রিফাইস"
২০০৩ কিন এডি এডওয়ার্ড মিলস "হু ওয়ান্টস টু বি ইন আ ক্লাব দ্যাট উড হ্যাভ মে অ্যাজ আ মেম্বার?" এপিসোড
২০০৭ কামিং ডাউন টু মাউন্টেন ডেভিড ফিলিপস টেলিভিশন চলচ্চিত্র
২০০৭-০৮ স্কিনস টনি স্টোমেন প্রধান চরিত্র (১৯ এপিসোড)
২০০৮ ওয়ালান্ডার স্টিফ্যান ফ্রেডম্যান "সাইডট্র্যাকড" এপিসোড

মঞ্চ[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা দ্রষ্টব্য
২০০৯ নিউ বয় ব্যারি ট্র্যাফালগার স্টুডিওজ

পুরস্কার[সম্পাদনা]

বছর পুরস্কার বিভাগ ভূমিকা ফলাফল
২০০৩ ইয়াং আর্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড বেস্ট পারফরম্যান্স ইন আ ফিচার ফিল্ম
লিডিং ইয়াং অ্যাকটর[১৫]
মার্কাস ব্রিউয়ার, অ্যাবাউট আ বয় চলচ্চিত্রে মনোনীত
ফিনিক্স ফিল্ম ক্রিটিকস সোসাইটি অ্যাওয়ার্ড বেস্ট পারফরম্যান্স বাই আ ইউথ ইন আ
লিডিং অর সাপোর্টিং রোল - মেল[১৬]
বিজয়ী
ব্রডকাস্ট ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড বেস্ট ইয়াং পারফরমার[১৭] মনোনীত
২০১০ ব্রিটিশ অ্যাকাডেমি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস রাইজিং স্টার[১৮] মনোনীত

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ Births, Marriages & Deaths Index of England & Wales, 1984-2004. Gives name at birth as "Nicholas Caradoc Hoult".
  2. Hoult, Nicholas। "The Nicholas Hoult Blog, 3rd July 2006"আসল থেকে 2007-09-28-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত 2007-05-14 . Hoult writes, "I'm still only 16!"
  3. Thomas, David (2002-05-01)। "About the Boy"Telegraph (London)। পৃ: 2। সংগৃহীত 2010-05-20 . Author refers to Hoult as a 12-year-old boy in 2002.
  4. Pool, Hannah (18 January 2007)। "Question Time"Guardian Unlimited (London) 
  5. Telegraph (2002-07-26)। "Looks like child's play"। The Age। সংগৃহীত 2007-04-14 
  6. ৬.০ ৬.১ Shoard, Catherine (2007-01-14)। "Teen player"। London: Telegraph। সংগৃহীত 2007-04-14 [অকার্যকর সংযোগ]
  7. The Daily Telegraph (2005-09-24)। "A smooth crossin-g"। Weekend Standard। সংগৃহীত 2007-04-14 
  8. Fisher, Alice (2010-01-31)। "Hoult… who goes there?"The Guardian (London)। সংগৃহীত 2010-05-20 
  9. http://www.thesun.co.uk/sol/homepage/showbiz/tv/article1160389.ece
  10. ইউটিউবে Lez Be Friends official YouTube video
  11. "Beast and Banshee Cast for X-Men: First Class"Superhero Hype!। 2010-07-08। সংগৃহীত 2010-07-08 
  12. Evry, Max (5 January 2011)। "25 Breakout Stars to Watch for in 2011"। Next Movie। সংগৃহীত 11 April 2011 
  13. Flemming, Kit (2011-02-11)। "Nicholas Hoult To Star In 'Jack The Giant Killer'"Deadline.com। সংগৃহীত 2011-03-02 
  14. skins cast stars Dev Patel and Nicholas Hoult sign up for Skins movie", nowmagazine, May 27, 2010. Retrieved on 2011-01-03.
  15. "24th Annual Young Artist Awards"। সংগৃহীত 3 June 2010 
  16. "Phoenix Film Critics Society Awards - Awards for 2003"IMDb। সংগৃহীত 3 June 2010 
  17. "The 8th Critics' Choise Awards Winners and Nominees"Broadcast Film Critics Association। সংগৃহীত 3 June 2010 
  18. "The official winners and nominees of the Orange British Academy Film Awards in 2010"BAFTA। সংগৃহীত 3 June 2010 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]