নিউজপ্রিন্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

‌‌‌

নিউজপ্রিন্ট

নিউজপ্রিন্ট হল এক প্রকার কাগজ যা সাধারণতঃ সংবাদপত্র মুদ্রণের কাজে ব্যবহৃত হয়। এর সাধারণ বর্ণ হল ময়লাটে সাদা। এই কাগজ তুলনামূলক কম দামি, বেশ শক্ত এবং এতে চার রঙা ছবি বেশ ভালভাবেই দেখা যায়। এসব কারণে এটি সংবাদ পত্র ছাপানোর উপযুক্ত। দলিলপত্র বা এ জাতীয় মূল্যবান কাগজপত্র, যা সংরক্ষণ প্রয়োজন পড়ে, সে সব কাজে নিউজপ্রিন্ট ব্যবহার করা হয়না।

চাহিদা[সম্পাদনা]

মন্ট্রিল ভিত্তিক “পাল্প এন্ড পেপার প্রোডাকশন কাউন্সিল” (PPPC) -এর হিসাব অনুযায়ী ২০০৬ খৃস্টাব্দে বিশ্বব্যপী নিউজপ্রিন্টের চাহিদা ছিল তিন কোটি বাহাত্তর লক্ষ (৩৭.২ মিলিয়ন) মেট্রিকটন। দিন দিন এশিয়ার দেশগুলোতে সংবাদপত্রের ব্যবসা লাভজনক হয়ে উঠছে, আর সেই সাথে এখানে বাড়ছে নিউজপ্রিন্টের চাহিদা।“ওয়ার্ল্ড অ্যাসোসিয়েশন অব নিউজপেপার” -এর এক হিসেব অনুযায়ী ২০০৭ সালে বিশ্বে সর্বাধিক মুদ্রিত সংবাদপত্রের মধ্যে ৭৪ টি ছিল এশিয়ার।উক্ত কাউন্সিলের হিসেব অনুযায়ী সবচেয়ে বেশি নিউজপ্রিন্টের চাহিদা রয়েছে এশিয়া মহাদেশে (বিশেষত ভারতে এবং চীনে। বিশ্বের মোট নিউজপ্রিন্ট উৎপাদনের ৩৫% এশিয়াতে, ২৬% উত্তর আমেরিকাতে,২৫% পশ্চিম ইউরোপে, ল্যাটিন আমেরিকা এবং পূর্ব ইউরোপ প্রত্যেকে ৫% করে ব্যবহার করে। ওশেনিয়া এবং আফ্রিকার দেশগুলোতে এর ব্যবহার অল্প।

উৎপাদন[সম্পাদনা]

কাগজ উৎপাদন যন্ত্র

নিউজপ্রিন্ট মূলত যান্ত্রিক মিলিং পদ্ধতিতে উৎপাদন করা হয়। মণ্ড হতে লিগনিন অপসারণের জন্য বেশ কিছু রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করা হয়। লিগনিন কাগজকে ভঙ্গুর করে এবং সূর্যের আলো এবং বাতাসে এ কাগজ হলদে হয়ে যায়। নিউজপ্রিন্ট উৎপাদনে নরম কাঠ ব্যবহৃত হয় (যেমন:ফার, পাইন, বালসাম ইত্যাদি)। বাংলাদেশে খুলনা নিউজপ্রিন্ট মিলস্-এ কাঁচামাল হিসেবে গেওয়া কাঠ ব্যবহৃত হত ।