দ্য ডিপার্টেড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দ্য ডিপার্টেড
Departed234.jpg
পরিচালক মার্টিন স্কোরসেজি
প্রযোজক ব্র্যাড গ্রে
গ্রাহাম কিং
রয় লি
ব্র্যাড পিট
রচয়িতা চিত্রনাট্য (ইন্টারনাল অ্যাফেয়ার্স):
ফেলিক্স চং
অ্যালান ম্যাক
চিত্রনাট্য:
উইলিয়াম মনাহ্যান
সুরকার হাওয়ার্ড শোর
চিত্রগ্রাহক মাইবেল ব্যালহাউস
সম্পাদক থেলমা স্কুনমেকার
বণ্টনকারী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ওয়ার্নার ব্রাদার্স
যুক্তরাজ্য এন্টারটেইনমেন্ট ফিল্ম ডিস্ট্রিবিউটির্স
ফ্রান্সটিএফএম ডিস্ট্রিবিউশন
তাইওয়ানলং শং এন্টারটেইনমেন্ট মাল্টিমিডিয়া কোম্পানি
ইতালিমেডুসা ডিস্ট্রিবিউজিয়ন
মুক্তি ৬ই অক্টোবর, ২০০৬
দৈর্ঘ্য ১৫১ মিনিট
দেশ  যুক্তরাষ্ট্র
ভাষা ইংরেজি, ক্যান্টোনিজ
নির্মাণব্যয় ৯০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার
আয় ২৮৯,৮৪৭,৩৫৪ ডলার (বিশ্বব্যাপী)

দ্য ডিপার্টেড (ইংরেজি ভাষায়: The Departed) মার্টিন স্কোরসেজি পরিচালিত অপরাধ থ্রিলার চলচ্চিত্র যা ২০০৬ সালে মুক্তি পায়। ডিপার্টেড সেরা ছবি হিসেবে একাডেমি পুরস্কার অর্জন করে। এটা ২০০২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত হংকং-এর সিনেমা ইন্টারনাল অ্যাফেয়ার্স এর মার্কিন পুনর্নির্মাণ। সেরা ছবির পাশাপাশি আরও তিনটি ক্ষেত্রে সিনেমাটি অস্কার লাভ করে।

কাহিনী সূত্র[সম্পাদনা]

সিনেমার কাহিনী ম্যাসাচুসেট্‌স অঙ্গরাজ্যের বোস্টন শহরকে ঘিরে। শহরের আইরিশ মব বস ফ্রান্সিস ফ্র্যাংক কস্টেলো (জ্যাক নিকোলসন) পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের ভিতরে তার অনুচর কলিন সুলিভান-কে (ম্যাট ডেমন) নিয়োগ করে। অপর দিকে ম্যাসাচুসেট্‌স স্টেট পুলিশ কস্টেলোর বিরুদ্ধে প্রমাণ সংগ্রহের জন্য আন্ডারকাভার পুলিশ কমকর্তা উইলিয়াম কস্টিগান জুনিয়র-কে (লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও) নিয়োগ করে। কস্টিগান কস্টেলোর গ্যাং-এ নিজেকে অন্তর্ভুক্ত করতে সফল হয়। একসময় মব আর পুলিশ উভয় পক্ষই জেনে যায় যে, তারা একে অপরের তথ্য ফাঁস করার জন্য অনুচর নিয়োগ করেছে। এক পক্ষ অন্য পক্ষের অনুচরের পরিচয় বের করার চেষ্টা শুরু করে এবং নিজের অনুচরের পরিচয় গোপন রাখার সকল ব্যবস্থা করতে থাকে। এভাবেই কাহিনী এগিয়ে যায়।

চরিত্রসমূহ[সম্পাদনা]

  • লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও - ট্রুপার উইলিয়াম কস্টিগান জুনিয়র (আন্ডারকাভার পুলিশ কর্মকর্তা)
  • ম্যাট ডেমন - গোয়েন্দা সার্জেন্ট কলিন সুলিভান (কস্টেলোর অনুচর)
  • জ্যাক নিকোলসন - ফ্রান্সিস ফ্র্যাংক কস্টেলো (বোস্টনের আইরিশ মব বস)
  • মার্ক ওয়ালবার্গ - সার্জেন্ট ব্রাইস ডিগনাম (পুলিশের আন্ডারকাভার ইউনিটের সেকেন্ড ইন কমান্ড)
  • মার্টিন শিন - ক্যাপ্টেন অলিভার চার্লস কুইনান (আন্ডারকাভার ইউনিটের কমান্ডার)
  • ভেরা ফ্যার্মিগা - ডঃ ম্যাডোলিন ম্যাডেন (পেশাদার মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও সুলিভানের গার্লফ্রেন্ড)
  • রেই উইনস্টোন - মিস্টার ফ্রেঞ্চ (কস্টেলোর ডান হাত)

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

দ্য ডিপার্টেড দর্শক ও সমালোচকদের কাছে বিপুল প্রশংসা অর্জন করেছে। রটেন টম্যাটোস-এ এর রেটিং ৯২%। জনপ্রিয় সমালোচক জেমস বেরার্ডিনেলি একে চারের মধ্যে চার তারকাই প্রদান করেন এবং একে একটি "অ্যামেরিকান এপিক ট্রাজেডি" হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তিনি এও দাবী করেন যে, এটা মার্টিন স্কোরসেজির অন্যান্য ছবি যেমন ট্যাক্সি ড্রাইভার, রেইজিং বুলগুডফেলাস এর সাথে তুলনীয়।

শ্রদ্ধাঞ্জলি[সম্পাদনা]

১৯৩২ সালের স্কারফেইস সিনেমার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি হিসেবে স্কোরসেজি এই ছবির বেশ কয়েক স্থানে ইংরেজি "X" বর্ণের প্রতীক ব্যবহার করেছেন। এক্স হল মৃত্যুর চিহ্ন। দ্য ডিপার্টেড ছবিতে যারা যারা মারা যাবে তথা ডিপার্টেড হবে তাদের সবার আশেপাশেই এক্স প্রতীক দেখানো হয়েছে, কখনও মৃত্যুর ঠিক আগে, কখনও বা অনেক আগে। যেমন, দ্য ডিপার্টেড লেখা দেখানোর ঠিক পরই সুলিভানের অ্যাপার্টমেন্টের জানালায় টেপ দিয়ে এক্স লেখা থাকতে দেখা যায়। জানালার এক পাশ থেকে অন্য পাশে দণ্ডায়মান সুলিভানের শট নেয়া হয়। কুইনান মারা যাওয়ার ঠিক আগে ঘরের দেয়ালে কাঠের মাধ্যমে এক্স চিহ্ন দেখানো হয়। কস্টেলো মারা যাওয়ার আগে সুলিভানের শট নেয়ার সময় দূরবর্তী ব্রিজে এবং পাশের যন্ত্রে এক্স চিহ্ন দেখা যায়। ছবির শুরুর দিকে কস্টিগান জেলে থাকার সময় এক শটে অনেক এক্স চিহ্ন সম্বলিত জানালা দেখা যায়। সবচেয়ে প্রকট এক্স চিহ্ন দেখা যায় ছবির শেষের দিকে লিফ্‌টে। কস্টিগান সুলিভানকে বন্দি করে লিফ্‌টে উঠায়। দুজনের মাথার মাঝখানে লিফ্‌টের দেয়ালে কালো টেপ দিয়ে এক্স লেখা থাকতে দেখা যায়। সুলিভান মারা যাওয়ার ঠিক আগে, তার রুমে প্রবেশের সময় কার্পেটে এক্স চিহ্ন দেখা যায়।

প্রাপ্ত পুরস্কারসমূহ[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]