দুর্গামোহন দাশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

দুর্গামোহন দাশ (জন্ম: নভেম্বর ১৮৪১ - ডিসেম্বর ১৮৯৭) (ইংরেজি: Durgamohan Das) একজন সমাজ সংস্কারক এবং ঊনবিংশ শতকের বাংলার নবজাগরণের একজন উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব ।

প্রথম জীবন ও পরিবার[সম্পাদনা]

দুর্গামোহন দাশের আদি নিবাস বর্তমান বাংলাদেশের ঢাকার তেলিরবাগ । তাঁর বাবার নাম কাশীশ্বর দাশ । তাঁর বাবার কর্মস্থল বরিশালে চোদ্দ বছর বয়েসে প্রদর্শনী বৃত্তিলাভ করে তিনি কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজে পড়া আরম্ভ করেন । ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দে আইনের প্রথম পরীক্ষা লাইসেন্সিয়েট অফ ল উত্তীর্ণ হয়ে তিনি কলকাতা সদর আদালতে আইনজীবী হিসাবে কাজ আরম্ভ করেন । ১৮৬৩ খ্রিস্টাব্দে বরিশালে গিয়ে সরকারী উকিল হন । ১৮৭০ খ্রীষ্টাব্দে কলকাতায় এসে ওকালতি আরম্ভ করে ক্রমে প্রতিষ্ঠা পান । তাঁর পুত্রদের মধ্যে এস.আর. দাশ এবং বিচারপতি জ্যোতিষরঞ্জন দাশের নাম উল্লেখযোগ্য । অবলা বসু এবং সরলা রায় তাঁর দুই কন্যা । বিখ্যাত বিজ্ঞানী জগদীশচন্দ্র বসু এবং দার্শনিক প্রসন্নকুমার রায় তাঁর দুই জামাতা । দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ তাঁর ভ্রাতুষ্পুত্র । [১]

সমাজসেবা[সম্পাদনা]

১২৭১ বঙ্গাব্দে তাঁর প্রচেষ্টাতে বরিশালে দুটি কায়স্থ বালবিধবার আবার বিবাহ হয় । পূর্ববঙ্গে এই প্রচেষ্টা ছিল প্রথম । এর জন্য তাঁকে বহু সামাজিক এবং আর্থিক পীড়ন সহ্য করতে হয় । পরে তাঁর চেষ্টায় বরিশালে আরো কয়েকজন বিধবার বিবাহ হয় । বাবার মৃত্যুর পর তিনি অল্পবয়স্কা বিধবা সৎমার আবার বিবাহ দিয়েছিলেন । নিজে বিপত্নীক হবার পর অতুলপ্রসাদ সেনের বিধবা মা কে বিবাহ করেন । ১৮৭২ খ্রিস্টাব্দে তিনি আইন তৈরি হলে এইরকম বিবাহের জন্য অন্যতম ভারপ্রাপ্ত কর্মচারী নিযুক্ত হন । [১]

কলকাতায় আনন্দমোহন বসু, দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়, শিবনাথ শাস্ত্রী প্রমুখদের সাথে স্ত্রীশিক্ষা এবং মেয়েদের উন্নতিবিধানে নানা কাজ করেন । উদ্ধারপ্রাপ্ত বালবিধবা এবং কুলীন মেয়েদের নিজের বাড়িতে আশ্রয় দিতেন । এই সমস্ত বালিকাদের শিক্ষার জন্য ১৩ সেপ্টেম্বর ১৮৭৩ খ্রিস্টাব্দে হিন্দু মহিলা বিদ্যালয় এবং এটি বন্ধ হবার পর ১ জুন ১৮৭৬ খ্রিস্টাব্দে বঙ্গ মহিলা বিদ্যালয় তাঁদের মিলিত চেষ্টায় স্থাপিত হয়েছিল । [১]

ব্রাহ্ম ধর্ম[সম্পাদনা]

প্রধানত তাঁর প্রচেষ্টায় ও অর্থসাহায্য বরিশাল ব্রাহ্মমন্দির প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল । কলকাতায় নব্য ব্রাহ্মদের একটি ছোট দলের তিনি নেতা ছিলেন । তিনি সাধারণ ব্রাহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম ছিলেন । [১]

রাজনীতি[সম্পাদনা]

১৮৭৬ খ্রিস্টাব্দে তিনি কলকাতা পৌরসভার সদস্য হন । ভারতসভার তিনি অন্যতম পৃষ্ঠপোষক ছিলেন । [১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ ১.৩ ১.৪ সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান - প্রথম খণ্ড - সাহিত্য সংসদ ISBN 81-85626-65-0