থু-মি-সাম-ভো-তা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

থু-মি-সাম-ভো-তা (তিব্বতী: ཐུ་མི་སམ་བྷོ་ཊ།ওয়াইলি: thu-mi-sam-bho-ta) বা থোন-মি-গ্সম-পো-রা (ওয়াইলি: Thon-mi-gSam-po-ra) তিব্বতী লিপির উদ্ভাবকi।[১]

জন্ম[সম্পাদনা]

থু-মি-সাম-ভো-তা আনুমানিক ৬১৯ খ্রিষ্টাব্দে তিব্বতের ব্রহ্মপুত্র নদের দক্ষিণ তীরে কাম্ভালা পর্বতশ্রেণীর নীচে অবস্থিত থু নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা থোন-মি-আ-নু-রা-গা-তা (ওয়াইলি: thon mi a nu ra ga ta) তিব্বত সম্রাট স্রোং-ব্ত্সন-স্গাম-পোর মন্ত্রী ছিলেন।[১]

তিব্বত যাত্রা[সম্পাদনা]

সম্রাট স্রোং-ব্ত্সন-স্গাম-পো থু-মি-সাম-ভো-তা সহ সাতজন জ্ঞানী মন্ত্রীদের তিব্বতীদের জন্য নতুন লিপি উদ্ভাবনের জন্য ভারত পাঠান। তাঁরা নেপাল হয়ে ভারতে প্রবেশ করেন। থু-মি-সাম-ভো-তা দক্ষিণ ভারতে লিজিঙ্কর নামক এক ব্রাহ্মণ ও দেববিদ্যাসিংহ বা ল্হা'ই-রিগ-পা-সেং-গে (ওয়াইলি: lha'i rig pa seng ge) নামক এক পন্ডিতের নিকট ভাষা, ব্যাকরণ, সাহিত্য, কাব্য ওদর্শন সম্বন্ধে সাত বছর ধরে অধ্যয়ন করেন। এরপর তিনি ভারত থেকে তিব্বত ফিরে আসার সময় ম্দো-স্দে-দ্কোন-ম্ছোগ-স্প্রিন (ওয়াইলি: mdo sde dkon mchog sprin), দাম-পা'ই-ছোস-পাদ-মা-দ্কার-পো (ওয়াইলি: dam pa'i chos pad ma dkar po), গ্ত্সোগ-তোর-দ্রি-মেদ-ক্যি-গ্জুংস (ওয়াইলি: gtsog tor dri med kyi gzungs), নোর-বু-কী-তু (ওয়াইলি: nor bu kee tu), 'দুস-পা-রিন-পো-ছে'ই-তোগ-ম্দো-জা-মা-তোগ-ব্কোদ-পা (ওয়াইলি: 'dus pa rin po che'i tog, mdo za ma tog bkod pa), স্প্যান-রাস-গ্জিগ্স-ক্যি-ম্দো-র্গ্যুদ-ন্যি-শু-র্তা-গ্চিগ (ওয়াইলি: spyan ras gzigs kyi mdo rgyud nyi shu rtsa gcig) প্রভৃতি বৌদ্ধ শাস্ত্র ও সংস্কৃত ব্যাকরণ সম্পর্কিত গ্রন্থগুলিকে নিয়ে যান। এই গ্রন্থগুলি ঐতিহাসিকভাবে ভারত থেকে তিব্বতে প্রবিষ্ট প্রথম গ্রন্থমালা। তাঁর সঙ্গীরা সকলেই মৃত্যুবরণ করায় থু-মি-সাম-ভো-তাকে একাকী তিব্বত ফিরে আসতে হয়।[১]

তিব্বতী লিপি উদ্ভাবন[সম্পাদনা]

থু-মি-সাম-ভো-তা তিব্বত ফিরে এসে স্কু-ম্খার-মা-রু (ওয়াইলি: sku mkhar ma ru) নামক প্রাসাদে তিব্বতীদের জন্য এক নতুন লিপি উদ্ভাবনে সচেষ্ট হন। তিনি ভারতে সেই সময় প্রচলিত ব্রাহ্মীগুপ্ত লিপি থেকে এই লিপি তৈরী করেন। [২][৩] দেবনাগরী লিপির চৌত্রিশটি ব্যঞ্জনবর্ণ ও ষোলটি স্বরবর্ণকে কমিয়ে তাঁর নতুন লিপিতে যথাক্রমে তিরিশ ও চারে নামিয়ে আনেন। তিনি স্বরবর্ণ গুলিকে শুধুমাত্র চিহ্নাকারে প্রকাশের বিধি তৈরী করেন বলে তিব্বতী ব্যাকরণে স্বরবর্ণগুলিকে বর্ণ হিসেবে ধরা হয় না। এছাড়া তিনি ত্স, ত্শ, দ্জ, 'অ ইত্যাদি নতুন ধরণের বর্ণেরও সৃষ্টি করেন। তিনি সংস্কৃত ব্যাকরণের ওপর ভিত্তি করে তিব্বতী ব্যাকরণ তৈরী করার উদ্দেশ্যে লুং-স্তোন-পা-লা-র্ত্সা-বা-সুম-চু-পা (ওয়াইলি: lung ston pa la rtsa ba sum cu pa) এবং র্তাগ্স-ক্যি-'জুগ-পা (ওয়াইলি: rtags kyi 'jug pa) সহ ছয়টি গ্রন্থ রচনা করেন। [১] এই নতুন লিপিব্যাকরণ শেখার জন্য সম্রাট স্রোং-ব্ত্সন-স্গাম-পো পাঁচ বছরের জন্য রাজ্যশাসন থেকে অবসর নেন। এই সময় তিনি বৌদ্ধ ধর্মের অবলোকিতেশ্বর সংক্রান্ত গ্রন্থের অনুবাদ ও নতুন সংবিধান তৈরী করেন।[৪]

লিপি বিতর্ক[সম্পাদনা]

যদিও তিব্বতী বৌদ্ধরা থু-মি-সাম-ভো-তাকে তিব্বতী লিপির স্রষ্টা বলে মনে করেন, কিন্তু বোন ধর্মাবলম্বীদের মতে ঝাংঝুং ভাষার লিপিকে আরো একশত বছর পুরাতন বলে দাবী করেন। তাঁদের মতে ঝাংঝুং ভাষার লিপি স্মার, স্পুংস ও ব্রুশা লিপি থেকে উদ্ভূত, কিন্তু লিপইবিদদের মতে ঝাংঝুং ভাষার লিপি তিব্বতী লিপি থেকে উদ্ভূত।[১]

ঐতিহাসিকতা[সম্পাদনা]

পুরাতন তিব্বতী বর্ষানুক্রমিক ইতিবৃত্ত গ্রন্থে থু-মি-সাম-ভো-তার কোনো উল্লেখ না থাকায় রয় অ্যান্ড্রু মিলারের মতো গবেষকেরা তাঁকে ঐতিহাসিক ব্যক্তি হিসেবে স্বীকার করেননি। অপরদিকে তিব্বতবিদ রল্ফ আলফ্রেড স্টেইন তাঁর ঐতিহাসিক অস্তিত্ব মেনে নিয়েছেন। [n ১] দ্বা-ব্ঝেদ নামক তিব্বতের প্রাচীনতম ঐতিহাসিক পুঁথিতে থু-মি-সাম-ভো-তার উল্লেখ পাওয়া যায়।[n ২]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. "According to Tibetan tradition, Songsten Gampo sent a young man of the Thönmi or Thumi clan, Sambhoṭa son of Anu (or Drithorek Anu), to India (in 632?) with other youths, to learn the alphabet. The pattern chosen was the script of Kashmir. At all events, the ancient annals of Tun-huang record against the year 655 that 'the text of the laws was written'. It is staggering to realize that, in a couple of decades, not only was the Tibetan alphabet invented, but the script had been adapted to the Tibetan language by a highly complicated orthography, and used for the writing of documents. Thönmi is also said to have composed, no doubt later on, a very learned grammar on the Indian pattern."[৫]
  2. Then during the reign of bTsan po Khri Srong btsan, after his marriage with Khri btsun, the daughter of the king of Nepal, the temple (gtsug lag khang) of Ra sa [Lhasa] Pe har gling was built. Furthermore, the construction of the forty-two temples of the Ru bzhi was requested and the Brag lha [temple] was built. 'Thon mi gSam po ra was sent by royal order [to India] in order to get the Indian doctrine and the model of the alphabet (yi ge'i dpe). . . [৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ ১.৩ ১.৪ Chhosphel, Samten (September 2010)। "Tonmi Sambhota"The Treasury of Lives: Biographies of Himalayan Religious Masters। সংগৃহীত 2013-08-11 
  2. Tibet: A Political History, p. 12. 1967. Tsepon W. D. Shakabpa. Yale University Press, New Haven and London.
  3. The White Annals, pp. 70-73. Gedun Choephel, translated by Samten Norboo. 1978. Tibetan Library and Archives, Dharamsala, H.P., India.
  4. Ancient Tibet: Research Materials from the Yeshe De Project, pp. 192-193. 1986. Dharma Publishing, Berkeley, California. ISBN 0-89800-146-3.
  5. R. A. Stein. Tibetan Civilization. (1972), pp. 51, 58. Stanford University Press. ISBN 0-8047-0806-1 (cloth); ISBN 0-8047-0901-7 (paper).
  6. Pasang Wandu and Hildegard Diemberger. (2000) dBa' bzhed: The Royal Narrative concerning the bringing of the Buddha's Doctrine to Tibet, pp. 25-26, n. 15. Verlag der Österreichischen Akademie der Wissenschaften, Wein. ISBN 3-7001-2956-4.

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

  • The Clear Mirror: A Traditional Account of Tibet's Golden Age. Sakyapa Sonam Gyaltsen, translated by McComas Taylor and Lama Choedak Yuthok. 1996. Snow Lion Publications, Ithaca, New York. ISBN 1-55939-048-4. "Chapter 10: Minister Tonmi brings the alphabet from India, and King Songsten Gampo creates the Laws of the Ten Virtues", pp. 99–110.
  • Chattopadhyaya, Alaka. 1967. "Thon mi Sambhota." In Atisha and Tibet, pp. 198-211. Delhi: Motilal Banarsidass.
  • K. Angrup Lahuli. 2000. Thon mi kun tu bzang po’i rnam thar. Sarnath: Central University of Tibetan Studies.
  • Miller, Roy Andrew. 1963. "Thon-mi Sambhota and His Grammatical Treatises." Journal of the American Oriental Society, vol. 83 no. 4, pp. 485-502.
  • Miller, Roy Andrew. 1983. . "Thon-mi Sambhota and His Grammatical Treatises Reconsidered." In Steinkellner, Ernst, and Helmut Tauscher, eds, Contributions on Tibetan Language, History, and Culture. Proceedings of the Csoma de Kőrös Symposium, pp. 183-205.
  • Roerich, George, trans. 1996. The Blue Annals. 2nd ed. Delhi: Motilal Banarsidas, 218‑219.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]