তাজরীন ফ্যাশনস অগ্নিকাণ্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তাজরীন ফ্যাশনস অগ্নিকাণ্ড
তারিখ নভেম্বর ২৪, ২০১২ (2012-11-24)
স্থান ঢাকা, বাংলাদেশ
ক্ষতিগ্রস্ত
১১২–১২৪ মৃত্যু[১][২]
২০০+ আহত

তাজরীন ফ্যাশনস অগ্নিকাণ্ড ২০১২ খ্রিস্টাব্দের ২৪শে নভেম্বর তারিখে বাংলাদেশে সংঘটিত একটি মারাত্মক অগ্নিকাণ্ড যাতে মোট ১১৭ জন পোষাকশ্রমিক নিহত হয়। ঢাকা মহানগরীর উপকণ্ঠ আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় অবস্থিত তাজরীন ফ্যাশনস লিমিটেড-এ এই অগ্নিকাণ্ড সংঘটিত হয়। ভয়ানক এই দুর্ঘটনায় ঐ পোষাক কারখানার নয়তলা ভবনের ছয়তলা ভস্মীভূত হয়ে যায়। সরাসরি আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা যায় ১০১ জন পোষাকশ্রমিক। আগুন থেকে রেহাই পেতে ওপর থেকে লাফিয়ে পড়ে মৃত্যু হয় আরও ১০ জনের। ২৭ নভেম্বর ২০১২ মঙ্গলবার বাংলাদেশে শোক দিবস পালিত হয়।[৩]

অগ্নিকাণ্ডের কারণ[সম্পাদনা]

তদন্তে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ইলেকট্রিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে ধারনা করে হয়।[৪] শনিবার সন্ধ্যায় তাজরীন ফ্যাশনস লিমিটেডে আগুন লাগে। পরদিন রবিবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়।

তদন্ত[সম্পাদনা]

এই ভয়াবহ অগ্নিঘটনার কারণ নিরূপণ করতে বাংলাদেশ সরকারের তরফ থেকে চার দফা তদন্তের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতর এবং বাংলাদেশ পুলিশ - সরকারের এই চারটি অঙ্গ পৃথক পৃথক তদন্ত কার্যক্রম গ্রহণ করে। উপরন্তু হংকংভিত্তিক পোষাকক্রেতা প্রতিষ্ঠান লি অ্যান্ড ফাং নিজেরা এ ঘটনা তদন্তের উদ্যোগ গ্রহণ করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Anis Ahmed & Ruma Paul (25 November 2012)। "More than 100 die in garment factory fire, the deadliest in Bangladesh's history"The Christian Science Monitor। Reuters। 25 November 2012-এ মূল থেকে আর্কাইভ। সংগৃহীত 25 November 2012 
  2. "Garment factory fire kills 112 in Bangladesh"Los Angeles Times। Associated Press। 25 November 2012। 25 November 2012-এ মূল থেকে আর্কাইভ। সংগৃহীত 25 November 2012 
  3. At least 117 killed in fire at Bangladeshi clothing factory
  4. http://www.bbc.co.uk/news/world-asia-20482273